পূর্ণ মেয়াদের ছুটিতে ববি ভিসি পূর্ণ মেয়াদের ছুটিতে ববি ভিসি - ajkerparibartan.com
পূর্ণ মেয়াদের ছুটিতে ববি ভিসি

2:57 pm , April 29, 2019

মোঃ মনিরুজ্জামান, ববি ॥ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (ববি) ভিসি প্রফেসর ড. এসএম ইমামুল হককে পূর্ণমেয়াদে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। গতকাল সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব হাবিবুর রহমানের স্বাক্ষরিত এক ‘অফিস আদেশ’ থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ওই আদেশে বলা হয় ১১ এপ্রিল থেকে ২৬ মে পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর এ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. এসএম ইমামুল হক’র ব্যক্তিগত ও প্রশাসনিক প্রয়োজনে ৪৬ দিনের ছুটি মঞ্জুর করেন। ভিসির অনুপস্থিতিতে ট্রেজারার অধ্যাপক ড. একেএম মাহাবুব হাসান নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত ভিসির রুটিন দায়িত্ব পালন করবেন। এদিকে উপাচার্যের পূর্ণমেয়াদের ছুটির খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থান কর্মসুচী থেকে দুপুর ২টায় আনন্দ মিছিল বের করে। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা একত্রে অংশ নেয়। এসময় শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিজয়ী স্লোগান দেয়। শিক্ষার্থীদের মাঝে শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘স্বৈরাচারী ভিসির পতন হয়েছে। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় নতুন করে মুক্তি পেয়েছে।’ তিনি প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির উপর কৃতজ্ঞ। তারা আমাদের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে ভিসিকে পূর্ণমেয়াদে ছুটিতে পাঠিয়েছেন।’ উল্লেখ যে, গত ২৬ মার্চ মহান স্বধীনতা ও জাতীয় দিবসে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের বাদ দিয়ে বৈকালিক চা-চক্র ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সেখানে শিক্ষার্থীদের আমন্ত্রণ না জানানোয় শিক্ষার্থীরা এ অনুষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানায়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উপাচার্য আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদেরকে বিইউডিএস কর্তৃক আয়োজিত এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বলায় উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। এর প্রেক্ষিতে ২৮ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয় এবং হল থেকে নেমে যাওয়ার নির্দেশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তখন হলে অবস্থান করে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে উপাচার্য দুঃখ প্রকাশ করেন। দুঃখ প্রকাশেও কাজ না হওয়ায় গত ৬ এপ্রিল স্থানীয় রাজনিৈতক ও প্রশাসনিক ব্যক্তিবর্গ এবং শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিরা সমঝোতা বৈঠক করেন। কিন্তু তা কোনো কাজে আসেনি। পরে ১০ এপ্রিল ১৫ দিনের ছুটিতে যান উপাচার্য। এ ছুটি প্রত্যাখ্যান করে উপাচার্যের পদত্যাগ অথবা পূর্ণকালীন ছুটি চেয়ে তিনদিন ধরে অনশন করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এতে ১০জন শিক্ষক-শিক্ষার্থী গুরুতর অসুস্থ হলে বরিশাল বোর্ডের চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সদস্য, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোঃ হানিফের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল এসে সোমবার পর্যন্ত অনশন স্থগিত করে। সোমবার দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের অনুমোদনক্রমে পূর্ণমেয়াদে ছুটিতে যান উপাচার্য প্রফেসর ড. এস. এম ইমামুল হক।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT