বিআইডব্লিউটিএর সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষনা নদীর বন্দর এলাকার নিচু জমি বিনামুল্যে ভরাট করে দেবে ড্রেজিং বিভাগ বিআইডব্লিউটিএর সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষনা নদীর বন্দর এলাকার নিচু জমি বিনামুল্যে ভরাট করে দেবে ড্রেজিং বিভাগ - ajkerparibartan.com
বিআইডব্লিউটিএর সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষনা নদীর বন্দর এলাকার নিচু জমি বিনামুল্যে ভরাট করে দেবে ড্রেজিং বিভাগ

3:21 pm , December 5, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশালে ড্রেজিং এর সুনির্দিষ্ট পয়েন্ট চিহ্নিত ও সুষ্ঠুভাবে ড্রেজিং কার্যক্রম সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। এসময় ড্রেজিং কাজে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও লঞ্চ মালিকদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ও অসহযোগিতার তথ্য তুলে ধরা হয়। গতকাল বুধবার দুপুরে নগরীর নদী বন্দর ভবনের সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিআইডব্লিউটিএ’র ড্রেজিং বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মিজানুর রহমান ভূইয়া তার বক্তব্যদের মধ্যে অভিযোগ সহ বিভিন্ন তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন এবং ড্রেজিং কাজে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি বলেন, আমরা চাই নৌ-পথগুলোকে সচল রাখতে। এ জন্য সরকারের উদ্যোগের পাশাপাশি সকলের সহযোগীতার প্রয়োজন। জনবলের উন্নয়ন না ঘটলেও বিগত সময়ের চেয়ে ড্রেজিং মেশিন বেড়েছে। সামনে আরো বাড়বে। যেখানে বিগত সময়ে বিআইডব্লিউটিএ’র ১০ টি ড্রেজিং মেশিন ছিলো সেখানে এখন ২৫টি। সামনে আরো ৬টির মতো সংযোজন হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা মূলত নদী খননের ক্ষেত্রে রক্ষনাবেক্ষন ডেজিং এবং ক্যাপিটাল বা বৃহত আকারের করে থাকি। ক্যাপিট্যাল ড্রেজিং মূলত মরে যাওয়া নদীতে নতুনভাবে খনন করে নাব্যতা ফিরিয়ে আনা হয়। প্রথম শ্রেণীর অর্থাৎ ঢাকা বরিশাল রুটে কিংবা বড় লঞ্চ চলাচলের জন্য নদী পথে ১৪ ফিট গভীরতার প্রয়োজন রয়েছে। সেক্ষেত্রে আমরা সার্ভের মাধ্যমে এ রুটগুলোতে প্রতিনিয়ত পরিমাপ করছি। যেখানে গভীরতা কমে যাচ্ছে সেখানে মেইনটেনেন্স ড্রেজিং বা খনন কাজ করছি। তিনি আরো বলেন, এই মুহুর্তে পাতারহাট লঞ্চঘাট সংলগ্ন নদী, লাহারহাট- ভেদুরিয়া, মিয়ারচরসহ বেশ কিছু জায়গায় ড্রেজিং করা হচ্ছে। তবে পটুয়াখালী-ঢাকা রুটের লঞ্চ মাষ্টারদের দাবীর প্রেক্ষিতে বাকেরগঞ্জের কবাইতে ড্রেজিং কার্যক্রম শুরু করলেও তা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারছি না। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ অনেকেই সে কাজে বাঁধা সৃষ্টি করেছে। এমনকি আমাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলাও করা হয়েছে। অথচ কবাইতে প্রতিনিয়ত লঞ্চ চরে আটকা পড়ছে এবং যাত্রীদের ভোগান্তিও বাড়ছে। প্রকৌশলী মিজানুর রহমান ভূইয়া বলেন, সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই আমরা নদী বন্দর এলাকায় ড্রেজিং কাজ শুরু করবো। বিগত দিনে লঞ্চ মালিকরা নৌ বন্দর এলাকায় আমাদের রাতের বেলায় কাজ করতে বাধ্য করে। অথচ ভালোমানের ড্রেজিং এর জন্য দিনের বেলায় কাজ করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরী। তাই ড্রেজিং চলাকালে কয়েক দিনের জন্য লঞ্চগুলো দিনের বেলায় সরিয়ে রাখতে লঞ্চ মালিকদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। তিনি বলেন, ড্রেজিং এর সময় ড্রেজিংকৃত পলিমাটি পূনরায় নদীতেইই ফেলা হয়। যা নিয়ে বিভিন্ন সময় সমালোচনার সম্মুখিন হতে হয় বিআইডব্লিউটিএ’কে। তাই এবার ড্রেজিংকৃত মাটি নদী থেকে অন্য কোথাও ফেলার জন্য স্থান চিহ্নিত করনে সকলের সহযোগিতা চান এই কর্মকর্তা। সে ক্ষেত্রে ড্রেজিং সংলগ্ন এলাকায় নীচু জমি ভরাটের প্রয়োজন হলে তাও বিনা মূল্যে ভরাট করে দিবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, বিআইডব্লিউটিএ বরিশালের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ-পরিচালক আজমল হুদা মিঠু সরকার, নির্বাহী প্রকৌশলী এ জেড এম শাহনেওয়াজ কবির প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT