চরফ্যাশনে ইউপি নির্বাচন : হেলমেট ও মোটরসাইকেল বাহিনী আতংকে ভোটাররা চরফ্যাশনে ইউপি নির্বাচন : হেলমেট ও মোটরসাইকেল বাহিনী আতংকে ভোটাররা - ajkerparibartan.com
চরফ্যাশনে ইউপি নির্বাচন : হেলমেট ও মোটরসাইকেল বাহিনী আতংকে ভোটাররা

3:07 pm , December 27, 2022

মো. আফজাল হোসেন, ভোলা ॥ ভোলার চরফ্যাশনে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হামলা,ভাংচুরসহ বহিরাগত সন্ত্রাসীদের মহড়ায় আতংক বিরাজ করছে সাধারন ভোটারদের মাঝে। অবরুদ্ধ অবস্থায় থাকতে হচ্ছে প্রার্থীকে। অংশ নিতে পারছে না প্রচারণায়। আজ মধ্যরাত থেকে প্রচার-প্রচারণা শেষ হচ্ছে। তবে প্রশাসন বলছে যেকোন মূল্যেই নির্বাচন সুষ্ঠু শান্তিপূর্ন করার দায়িত্ব তাদের। আগামী ২৯ ডিসেম্বর ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার জিন্নাগড়, আমিনাবাদ ও নীল কমল ইউনিয়নে নির্বাচন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এসব ইউনিয়নে হেলমেট ও মোটরসাইকেল বাহিনীর নিয়মিত মহড়া,স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রচারণায় বাঁধা দেয়া, হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়। নীল কমল ইউনিয়নের ৬৭ বছরের বৃদ্ধ মো: ইয়াছিন বলেন, নিরাপদে কেন্দ্রে গিয়ে নিজের ভোট নিজেই দিয়ে পুনরায় নিরাপদে নিজ ঘরে পৌঁছতে নিরাপত্তা চাই। মো: ইউসুফ নামে এক ভোটার বলেন, দীর্য দিন ধরেই নিজের ভোট নিজে দিতে পারছি না। এবার চাচ্ছি অন্তত কেন্দ্রে গিয়ে নিজের ভোট নিজেই যেন দিতে পারি। শান্তিপূর্ন পরিবেশে ভোট দেয়া নিয়ে শঙ্কা এই ভোটারের। ভোটাররা বলছেন প্রতিদিন হেলমেট ও মোটরসাইকেল বাহিনীর অত্যাচারে বাজারে আসতে পারছি না। গতরাতে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে দুই গ্রুপের মধ্যে। মাস্তানরা হুমকি দিচ্ছে কেন্দ্রে যেতে দিবে না। প্রতিটি রাস্তার মোড়ে মোড়ে অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে অবস্থান নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আজ মধ্যরাত থেকে প্রচার প্রচারণা শেষ হলেও শুরু থেকে আজ পর্যন্ত প্রচারণা চালাতে পারেনি নীল কমল ইউনিয়নের মোটরসাইকেল মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী ইকবাল হোসেন লিখন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ঘোষের হাট বাজারে নৌকার প্রার্থী ও সমর্থকরা সমাবেশ করে নানা ধরনের উস্কানীমূলক বক্তব্য দিচ্ছেন। একই সময় বিকেল থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বাজারের পাশেই স্বতন্ত্র প্রার্থী ইকবাল হোসেন লিখনের বাড়ীর সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ পাহারায় দাঁড়িয়ে আছে। পুলিশ সদস্যরা বলেন, ‘ভাই এটা প্রতি দিনের ঘটনা। লিখন চেয়ারম্যানের বাড়িতে যাতে হামলা না করতে পারে সেজন্যই তার বাড়ির দরজায় দাঁড়িয়ে পাহারা দিচ্ছি। অপরদিকে জিন্নাগড় ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আবুল কালাম আজাদ নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে প্রচারণায় বাঁধা এবং হামলা, ভাংচুরের অভিযোগ তুলেছেন।
এ ব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সৈয়দ শফিকুল হক বলেন, তিনটি ইউনিয়নের নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য আমাদের সকল ধরণের প্রস্ততি নেয়া হয়েছে। যে কোন ধরণের পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসন প্রস্তত রয়েছে। যেখানে সমস্যার  কথা শুনছি সেখানেই পুলিশ প্রশাসন দিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছি। নির্বাচনের আগের দিন থেকেই নির্বাচনী মাঠ থাকবে প্রশাসনের নিয়ন্ত্রনে। কোন ধরণের অপ্রতিকর ঘটনা সহ্য করা হবে না। নির্বাচনের দিন ৭জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কেন্দ্রের দায়িত্ব পালন করবেন। যে কোন পরিস্থিতিতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার জন্য প্রস্তত থাকবেন তারা। এছাড়া কোস্টগার্ড,র?্যাব, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT