পারাবত লঞ্চে যাত্রীর মানিব্যাগ চুরি করে ধরা পড়া যুবক হত্যা মামলার আসামী পারাবত লঞ্চে যাত্রীর মানিব্যাগ চুরি করে ধরা পড়া যুবক হত্যা মামলার আসামী - ajkerparibartan.com
পারাবত লঞ্চে যাত্রীর মানিব্যাগ চুরি করে ধরা পড়া যুবক হত্যা মামলার আসামী

3:42 pm , September 3, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল-ঢাকা রুটের এমভি পারাবত-১২ লঞ্চে পাশের যাত্রীর মানিব্যাগ চুরি করে ধরা পড়া যুবক একটি হত্যা মামলার আসামী। গতকাল শনিবার ওই যুবককে আটকের পর লঞ্চ কর্তৃপক্ষ বরিশাল সদর নৌ-থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে বলে ওসি হাসনাত জামান জানিয়েছেন।
তিনি জানান, চুরির অভিযোগে ধরা পড়া যুবক রিপন সিকদার (৩৮) পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ থানার একটি হত্যা মামলার গ্রেপ্তারী পরোয়ানার আসামী। তাকে মির্জাগঞ্জ থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। রিপন মির্জাগঞ্জ উপজেলার গিলাবুনিয়া এলাকার সোহরাব সিকদারের ছেলে।
ওসি হাসনাত জামান বলেন, শুক্রবার ঢাকা সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা এমভি পারাবত-১২ লঞ্চে ডেকের যাত্রী হিসেবে ছিলো রিপন ও তানিয়া। পাশের যাত্রী শহিদুল ইসলামের কাছে নিজেদের স্বামী ও স্ত্রী পরিচয় দেয়। পরে রিপন শহিদুলের মানিব্যাগ চুরি করে। শহিদুল বিষয়টি লঞ্চ কর্তৃপক্ষকে জানায়। তারা লঞ্চের সিসিটিভির ফুটেজ দেখে রিপনের কাছ থেকে চোরাই মানিব্যাগ উদ্ধার করে। এ সময় নিজেকে পুলিশ পরিচয় দেয় রিপন। তার কাছ থেকে পুলিশ লেখা ষ্টিকার সম্বলিত একটি ব্যাগ ও পুলিশ লেখা মোটরসাইকেল এবং স্ত্রী পরিচয় দেয়া তরুনীসহ আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
রিপনের কাছ থেকে উদ্ধার করা এফজেড ব্যান্ডের একটি মোটর সাইকেলের (মিটার শেডের উপর ইংরেজিতে পুলিশ লেখা) প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় মহানগর ট্রাফিক পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
ওসি আরো জানান, রিপনের সাথে থাকা স্ত্রী পরিচয় দেয়া একই উপজেলার নরিয়াবাদ এলাকার শাহিন মৃধার কন্যা তানিয়াকে (১৯) অভিভাবকদের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।
পারাবাত-১২ লঞ্চের সুপারভাইজার নজরুল ইসলাম বলেন, আটক রিপন এর আগে পুলিশ পরিচয়ে পারাবত-১১ লঞ্চে একই কাজ করেছিলো। পারাবত -১১ লঞ্চের এক কর্মচারী বর্তমানে পারাবত-১২ লঞ্চে চাকুরি করছে। সে রিপনকে শনাক্ত করে জানিয়ে সুপারভাইজার বলেন, একই ধরনের অপকর্ম সে আগেও করেছে। তখন সে পুলিশের একটি আইডি কার্ড দেখিয়ে ও প্রমান না থাকায় পার পেয়ে গেছে। কিন্তু এবার সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়ায় পার পায়নি বলে সুপারভাইজার জানিয়েছেন।
তিনি আরো জানান, রিপন স্বীকার করেছে সে ৫০০ টাকা চুরি করেছে। কিন্তু যাত্রী শহিদুলের দাবী মানিব্যাগে ১ হাজার ৮শ’ টাকা ছিলো। সুপারভাইজার বলেন, ধারণা করা হচ্ছে রিপন একজন পেশাদার চোরাই চক্রের সদস্য।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT