বানভাসিদের সাহায্যে শিশুদের আঁকা ১৭ ছবি কিনলেন মেয়র সাদিক বানভাসিদের সাহায্যে শিশুদের আঁকা ১৭ ছবি কিনলেন মেয়র সাদিক - ajkerparibartan.com
বানভাসিদের সাহায্যে শিশুদের আঁকা ১৭ ছবি কিনলেন মেয়র সাদিক

3:43 pm , July 6, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সিলেটে বানভাসি মানুষদের সাহায্যের জন্য চারুকলা বরিশালের শিশু শিল্পীরা বিক্রয়ের জন্য ছবি এঁকেছেন। আর সেই সব ছবি ২ লক্ষ টাকায় ক্রয় করেছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। মঙ্গলবার রাতে বরিশাল ক্লাবে অংকিত ছবিগুলো গ্রহণ করেন মেয়র। চারুকলা বরিশালের সংগঠক তমাল রায় বলেন, সিলেটে বানভাসি মানুষের সাহায্যার্থে চারুকলা বরিশাল এর শিল্পীরা ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে।শিল্পীদের অংকিত ছবি বিক্রয় করে বিক্রয় লব্ধ অর্থ বন্যা দুর্গতদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই লক্ষ্যে মঙ্গলবার রাতে চারুকলার শিশু শিল্পীরা বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর কাছে তাদের অংকিত ছবি নিয়ে গেলে তিনি ১৭ ছবি গ্রহণ করে। জল রং, প্যাস্টেল সহ বিভিন্ন মাধ্যমের এই ছবিগুলো গ্রহণ করে দুই লক্ষ টাকা দেয়ার ঘোষণা দেন। মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, শিশুরা যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অত্যন্ত সুন্দর। মানবতার জন্য এভাবে এগিয়ে আসতে হবে। সিলেট বাংলাদেশের অংশ, আজ সেখানে যে অবস্থা চলছে তা অসহনীয়। শিশুরা বানভাসিদের পাশে দাড়াতে ১৭টি ছবি অংকন করেছে। আর সেই ছবিগুলো আমি তাদের কাছ থেকে ক্রয় করেছি। ছবি বিক্রয় লব্ধ অর্থ দ্রুততম সময়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে পৌছানো হবে বলে চারুকলা বরিশাল এর সংগঠকরা জানায়। ছবি প্রদান অনুষ্ঠানে চারুকলা বরিশালের সাধারণ সম্পাদক রনি দাস, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র দাস , পংকজ গুপ্ত সহ শিশু শিল্পীবৃন্দ ও অভিভাবকেরা উপস্থিত ছিলেন । উল্লেখ্য, চারুকলা বরিশাল এর আয়োজনে বানভাসি মানুষের সাহায্যার্থে এই ছবি বিক্রয় কর্মসূচী আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT