লঞ্চের আগাম টিকিট বিক্রি আজ থেকে শুরু লঞ্চের আগাম টিকিট বিক্রি আজ থেকে শুরু - ajkerparibartan.com
লঞ্চের আগাম টিকিট বিক্রি আজ থেকে শুরু

3:19 pm , April 11, 2022

আরিফ আহমেদ, বিশেষ প্রতিবেদক ॥ আজ থেকেই ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের জন্য লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হচ্ছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে ১৫ এপ্রিল থেকে বিক্রি শুরু হবে বলে জানা গেছে। সোমবার বরিশাল লঞ্চ টার্মিনাল কর্তৃপক্ষ, লঞ্চ মালিক, যাত্রী ও কর্মচারীদের সাথে কথা বলে এতথ্য জানা গেছে। চলতি বছর ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে নতুনভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বরিশাল-ঢাকা নৌরুটের লঞ্চ মালিক সমিতি। করোনা মহামারীর প্রভাবে গত দু বছর কঠোর নিষেধাজ্ঞা ও বিধিনিষেধের কারণে অনেক যাত্রী গ্রামে আসা যাওয়া বন্ধ রেখেছিলেন। এ বছর করোনা ঝুঁকি না থাকার কারণে অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ আশা করছেন লঞ্চ মালিকরা। তাই এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করেছেন তারা। যাত্রীদের জন্য আগাম টিকিট বুকিংও শুরু করেছেন কেউ কেউ । তবে আগাম টিকিট বিক্রি ও বিশেষ সার্ভিস চালুর বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি বলে জানিয়েছেন যাত্রীবাহী লঞ্চ মালিক সমিতির সহ সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু। তিনি বলেন, পনের রমজানের পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। এদিকে সুরভী নেভিগেশনের পরিচালক রেজিন উল কবির বলেন, আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হবার সম্ভাবনা রয়েছে। ২ বা ৩ মে ঈদুল ফিতর। ২৭ এপ্রিল থেকেই লম্বা ছুটি রয়েছে তাই ২৭ এপ্রিল থেকে ২ মে পর্যন্ত টিকিটের চাহিদা হবে। মানুষ ভাগে ভাগে আসবে, তাই খুব বেশি চাপ হবে না বলে দাবী সুরভী মালিকের। কীর্তনখোলা নেভিগেশন কোম্পানি ও কীর্তনখোলা লঞ্চের মালিক মঞ্জুরুল আহসান ফেরদৌস অবশ্য ১২ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকেই তার লঞ্চের টিকিট বিক্রি শুরু হবে বলে জানান। তিনি বলেন, কীর্তনখোলা ২ ও ১০ নিয়মিত যাত্রীসেবা দিয়ে যাচ্ছে। যাত্রীদের সুবিধাই আমার কাছে সবার আগে। যাত্রীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে আজ ১২ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকেই অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করার নির্দেশনা তার। তিনি বলেন, এবার ঈদে যাত্রী নিশ্চিত করণে তার লঞ্চ এবং স্টাফদের পুরোপুরি প্রস্তুত করা হচ্ছে। যাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়টিও আমরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেখছি। তিনি টিকিটের কালোবাজারী রোধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানান। এম ভি আওলাদ লঞ্চের টিকিট কাউন্টার পরিচালক সাবু বলেন, আত্মীয় স্বজনদের ফোন আসছে। খোঁজ নিচ্ছেন। টিকিট বিক্রি ও বুকিং চলছে ফোনে ফোনে। তবে ১৫ এপ্রিলের পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানা যাবে। এ বিষয়ে সুন্দরবন নেভিগেশনের ম্যানেজার জাকির হোসেন জানান, অগ্রিম টিকিট ১৫ এপ্রিল থেকে বিক্রি শুরু হতে পারে। তবে লোকজন এখুনি যেভাবে ফোন দিয়ে টিকিট খুঁজছেন তাতে কিছু চাপ হবে বলে মনে হচ্ছে। জাকির আরো জানান, লঞ্চ মালিক সমিতির সিদ্ধান্ত হয়ে গেলে ১৫ বা ১৬ এপ্রিল সকাল ১০টা থেকেই সব লঞ্চ কাউন্টারে একযোগে আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। কয়েকজন যাত্রী স্বজনের সাথে কথা বলে জানা গেল, তারা বেশিরভাগই আগামী ২৭ থেকে ৩০ এপ্রিল এর টিকিট খুঁজছেন। বরিশাল থেকে অগ্রিম টিকেট কিনতে চান ঢাকা থেকে আসা স্বজনের জন্য। তবে এরা বেশিরভাগ লঞ্চ মালিকেরই আত্মীয় বা বন্ধু-স্বজন। কীর্তনখোলা লঞ্চের ম্যানেজার মো. বেল্লাল হোসেন জানান, করোনার নিষেধাজ্ঞা না থাকলে এবার অতিরিক্ত চাপ সামাল দিতে কষ্ট হবে মালিক সমিতির। বেশকয়েকটি লঞ্চের কাউন্টার ম্যানেজাররা জানিয়েছেন এবার শুধু বিশেষ নয় অতি বিশেষ লঞ্চের ব্যবস্থা জরুরী হতে পারে। তা যাত্রীদের অগ্রিম টিকিটের জন্য ফোন দেখেই বুঝতে পারছি। বর্তমানে ঢাকা-বরিশাল নৌ-পথে সুরভীর ১৭টিসহ ২৪টির মতো বেসরকারি লঞ্চ চলাচল করছে। ঈদে এ সংখ্যা বেড়ে ৫০/৬০টি হবার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান বিআইডব্লিউটিএর বরিশাল নদী বন্দরের বন্দর ও পরিবহন বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান । তিনি বলেন, গত দুবছর করোনার কারণে স্পেশাল লঞ্চের প্রয়োজন হয়নি। তবে এ বছর পরিস্থিতি ভিন্ন হবে। প্রয়োজনে আরো লঞ্চ বাড়ানোর প্রস্তুতি থাকবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT