আমতলীতে ১১৩০টি গভীর নলকূপ অকেজো আমতলীতে ১১৩০টি গভীর নলকূপ অকেজো - ajkerparibartan.com
আমতলীতে ১১৩০টি গভীর নলকূপ অকেজো

3:53 pm , April 4, 2022

 

আমতলী প্রতিবেদক ॥ আমতলী উপজেলায় ১১৩০টি গভীর নলকূপ অকেজো থাকায় বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। বিশুদ্ধ পানির অভাবে প্রত্যন্ত এলাকায় মানুষের ডায়রিয়া সহ পেটের নানা রোগ দেখা দিয়েছে। আমতলী উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, আমতলী উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে ৩৮৫৪টি গভীর নলকূপ রয়েছে। এর মধ্যে হলদিয়া ইউনিয়নে ৫৭৮টি নলকপের মধ্যে ১৬৫টি অকেজো, গুলিশাখালী ইউনিয়নে ৬১১টির মধ্যে ১৭০টি অকেজো কুকুয়া ইউনিয়নে ৫২৩টির মধ্যে ১৬০টি অকেজো, আঠারগাছিয়া ইউনিয়নে ৪৬০টির সধ্যে ১৫০টি অকেজো, চাওড়া ইউনিয়নে ৪৪১টির মধ্যে ১৫৫টি অকেজো, আমতলী সদর ইউনিয়নের ৮১৯টির মধ্যে ১৯০টি অকোজো, আড়পাংগাশিয়া ইউনয়নে ৩৮২টির মধ্যে ১৪০টি অকেজো। এত বিপুল সংখ্যক নলকূপ অকেজো থাকায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। বিশুদ্ধ পানির অভাবে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ ডোবা নালার দুষিত পানি পান করায় এলাকায় ডায়রিয়া সহ পেটের নানা রোগ ছরিয়ে পড়ছে। হলদিয়া উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে অবস্থিত নলকুপটি বছরের পর বছর সংস্কারের অভাবে পড়ে রয়েছে। উত্তর তক্তাবুনিয়া দাদন শরীফের মাদ্রাসা মাঠে অবস্থিত এবং হলদিয়া গ্রামের নাননু মীরা বাড়ির নলকুপটি দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে অকেজো হয়ে পড়ে আছে। মাদরাসা মাঠের নলকুপটি অকেজো থাকায় মাদ্রাসার শিক্ষার্থীসহ এলাকা বাসী মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। দক্ষিণ দক্তাবুনিয়া গ্রামের আলেয়া বেগম বলেন, গভীর নলকূপ অকেজো থাকায় এখানকার মানুষ ডোবা, পুকুর নদী নালা থেকে পানি পান করছে। এ সকল দুষিত পানি পান করে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পরছে।
আঠারগাছিয়া ইউনিয়নের পডশ্চম সোনাখালী গ্রামের আমিনুল ফরাজী ও সোনাখালী গ্রামের মোছলেম হাওলাদার বাড়ীর গভীর নলকূপ ২টি ৪ বছর ধরে অকেজো।
গুলিশাখালী গ্রামের মাহমুদ শাওন বলেন, নলকূপ অকেজো হওয়ায় অনেক দুর হেটে খাবার পানি আনতে হয়।
গুমন মাহমুদ বলেন, বিশুদ্ধ পানির অভাবে গরমের সময় মোগো গ্রামে বিভিন্ন রোগ বালাই বাইর‌্যা যায়।
গত এক সপ্তাহে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অন্ত:ত শতাধিক ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। এছাড়া গরমের এই মৌসুমে প্রতিদিন শত শত ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে আমতলী হাসপাতালে না এসে কমিউনিটি ক্লিনিক, গ্রাম্য ডাক্তারদের শরনাপন্ন হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
আমতলী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা বলেন, সদর ইউনিয়নের এখনো অন্ত:ত ৫ হাজার গভীর নলকুপের রয়েছে। চাহিদা থাকা সত্ত্বেও বরাদ্দ না থাকায় গভীর নলক’প দেওয়া যাচ্ছে না।
হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক বলেন, উপজেলার মধ্যে হলদিয়া ইউনিয়ন সবচেয়ে বড় এবং জনস্যখ্যাও অনেক বেশী। চাহিদা অনুযায়ী মানুষ গভীর নলকূপ পাচ্ছে না।
আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুমন খন্দকার জানান, মৌসুমের বৃষ্টিপাত না হওয়ায় পানিতে লবনাক্ত বেড়ে যাওয়া, প্রচন্ড গরম এবং বিশুদ্ধ পানির অভাবে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া দুষিত পানি পান করায় আমাশয় ও জন্ডিস সহ নানা পেটের পিড়া দেখা দিতে পারে।
আমতলী উপজেলা জনস্বাস্থ প্রকৌশলী মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলায় ১৩৭০টি গভীর নলকূপ অকেজো রয়েছে। জনসাধারনের চাহিদা বিবেচনা করে সুপেয় পানি পানের কথা বিবেচনা করে আমতলীতে অধিক সংখ্যক গভীর নলকূপ বসানো প্রয়োজন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT