বি এম কলেজে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যোগদান করতে পারেননি উপাধ্যক্ষ বি এম কলেজে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যোগদান করতে পারেননি উপাধ্যক্ষ - ajkerparibartan.com
বি এম কলেজে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যোগদান করতে পারেননি উপাধ্যক্ষ

3:12 pm , May 23, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বিএম কলেজের উপাধ্যক্ষ পদে এএস কাইউম উদ্দিন আহমেদকে যোগদান করতে দেয়নি শিক্ষার্থীরা। গতকাল রোববার তার যোগদান করার কথা ছিল। কিন্তু সাধারন শিক্ষার্থীরা এ এস কাইউম উদ্দিন আহমেদকে দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে একাডেমিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে শ্লোগান দেয়।
বেলা ১১টার দিকে অধ্যাপক এ এস কাইউম উদ্দিন আহমেদ উপাধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করতে গিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে যোগদান করতে পারেননি। জানা গেছে, গত ২০ মে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ অধ্যাপক এ এস কাইউম উদ্দিন আহমেদকে উপাধ্যক্ষ নিয়োগ দেয়। রোববার যোগদান করবেন তিনি এ খবর সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে পরলে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে আন্দোলনের ডাক দেয়। সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে তিনি উপাধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করতে পারেননি। তিনি যোগদানের জন্য অনেক চেষ্টা করেও অবশেষে ব্যর্থ হয়ে কলেজ থেকে বের হতে বাধ্য হন। তিনি চলে যাওয়ার পর সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন তুলে নেন। তবে শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, যদি তিনি ফের যোগদান করতে আসেন তাহলে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে। কারণ তিনি একজন অসৎ দুর্নীতিপরায়ণ। তার মতো শিক্ষক কলেজে থাকলে কলেজের ও শিক্ষার্থীদের ব্যাপক ক্ষতি হবে। তাই আমাদের সরকারের কাছে অনুরোধ থাকবে এই অসৎ দুর্নীতিপরায়ণ শিক্ষককে যেন আমাদের কলেজে নিয়োগ না দেওয়া হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক এ এস কাইউম উদ্দিন আহমেদ মুঠোফোনে জানান, আমি যোগদান করতে সকালে কলেজে গেলে কিছু শিক্ষার্থীরা আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে কলেজে আন্দোলন করে। তবে কি কারণে তারা আন্দোলন করেছে আমার তা জানা নেই। সূত্র জানিয়েছে, শিক্ষক এএস কাইউম উদ্দিন আহম্মেদের সাথে ছাত্রলীগের একাংশের নেতাদের সাথে পূর্ব থেকেই দ্বন্দ ছিলো। সেই দ্বন্দের জের ধরেই তাকে যোগদান করতে বাধা দেয়া হচ্ছে। তাছাড়া বর্তমান শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আলামিন সরোয়ারের সাথেও দ্বন্দ্ব রয়েছে তার।
ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, এএস কাইউম উদ্দিন আহম্মেদ বিএম কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন । সে সময় তিনি এই কলেজে নানা দুর্নীতি করেছেন। কলেজ ফান্ড থেকে দুর্নীতি করে টাকা উত্তোলন করে তিনি বিতর্কিত। তাছাড়া কলেজের এক অধ্যক্ষ যোগদান করতে আসার সময় তাকে মারধরের নির্দেশ দাতা ছিলেন উপাধ্যক্ষ পদে পদায়ন পাওয়া এই শিক্ষক। কলেজে এমন দুর্নীতিবাজকে চাই না। তাই আমরা বিক্ষোভ করছি। কলেজ অধ্যক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি।
কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া বলেন, সকাল থেকে কিছু ছেলেরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে শান্তিপূর্ণ অবস্থান নিয়েছে। তারা লিখিতভাবে আমাকে কিছু জানায়নি। তবে শুনেছি উপাধ্যক্ষ পদে পদায়নপ্রাপ্ত এএস কাইউম উদ্দিন যাতে যোগদান করতে না পারে তার জন্য তারা সেখানে অবস্থান নিয়েছে। আমরা শিক্ষার্থীদের সাথে বলেছি। তাছাড়া কাইউম সাহেবের সাথেও কথা হয়েছে। তিনি যোগদান করতে এলে আমার দায়িত্ব অনুযায়ী যোগদান গ্রহণ করবো।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT