বাকেরগঞ্জে কলেজ ছাত্রী হত্যার বিচারে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন বাকেরগঞ্জে কলেজ ছাত্রী হত্যার বিচারে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন - ajkerparibartan.com
বাকেরগঞ্জে কলেজ ছাত্রী হত্যার বিচারে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

3:23 pm , July 4, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বাকেরগঞ্জের কলেজ ছাত্রী লোপা হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে সহপাঠিরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাকেরগঞ্জ উপজেলার দাড়িয়াল ইউনিয়নের কামারখালী বাজার ও আলহাজ্ব হযরত আলী ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে কর্মসুচী পালন করা হয়। কর্মসূচি চলাকালে সহপাঠীরা বলেন, লোপা আক্তার মেধাবী ছাত্রী। সে কখনও আত্মহত্যা করতে পারে না, আবার তার শারিরীক এমন কোন সমস্যা নেই যে কারনে সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করবেন। তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা চাই এ হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত তারা যতোইক্ষমতাশালী হোকে না কেন, তাদের দৃশ্টান্তমূলক শাস্তি ফাঁসি হোক।
দাড়িয়াল ইউনিয়নের উত্তমপুর কালেঙ্গার বাসিন্দা নাছির হাওলাদারের মেয়ে এবং কামারখালী আলহাজ্ব হযরত আলী ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী লোপা আক্তার (১৭) হত্যার ঘটনায় তার মা জেসমিন বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে হত্যার আগে লোপা আক্তার ধর্ষনের অভিযোগও আনা হয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বাদীর আইনজীবি মো. মশিউর রহমান (সোহেল) জানান, মামলাটি আমলে নিয়ে আদালতের বিচারক এফআইআর হিসেবে থানাকে নথিভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলায় বাকেরগঞ্জ উপজেলার দাড়িয়াল ইউনিয়নের উত্তমপুর কালেঙ্গার বাসিন্দা মন্নান হাওলাদারের ছেলে ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ হাওলাদার (৩৫) এবং তার বড় ভাই রাকিবুল আলম হাওলাদার (৪২)কে নামধারী আসামী করা হয়েছে। এছাড়া আরও ২/৩ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে।
মামলার অভিযোগে বাদী জেসমিন বেগম জানিয়েছেন, মামলার প্রধান আসামী রিয়াজ হাওলাদার প্রেমজনিত বিষয়টি নিয়ে ভিকটিম লোপা আক্তারকে ব্লাকমেইল করার পাশাপাশি কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো।  যে প্রস্তাবে ভিকটিম রাজি না হলে ভয়ভীতি দেখাতে শুরু করে রিয়াজ হাওলাদার।  আর এ বিষয়টি বিষয়টি হত্যার ঘটনার কিছুদিন আগে লোপা তাকে জানিয়েছে।
বাদীর অভিযোগ এ ঘটনার সূত্র ধরে গত ২১ জুন রাতে মামলার আসামীরা পরষ্পর যোগসাজেশে ভিকটিমকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। সেইসাথে হত্যার পর ভিকটিমের গলায় ওড়না পেচিয়ে জানালার গ্রিলের সাথে বেধে আসামীরা চলে যায়। আর হত্যার আগে মামলার প্রধান আসামী রিয়াজ হাওলাদার ভিকটিমকে ধর্ষন করে।
বাদী জেসমিন বেগম জানান, ২২ জুন ফজরের নামাজের জন্য ভিকটিম লোপাকে ডাকতে তার কক্ষে যান বাদী। আর ওইসময়ই লোপাকে হাটুগেড়ে ফ্লোরে বসা এবং তার গলায় পেচানো ওড়না জানালার গ্রিলের সাথে বাধা অবস্থায় দেখত পান তিনি। তখন বাদী চিৎকার দিলে অন্য স্বজনদের সাথে আসামীরাও ঘটনাস্থলে আসেন এবং ভিকটিম লোপা হার্ট অ্যাটাক করেছে বলে কানে ফোন নিয়ে সবাইকে জানাতে ব্যস্ত হয়ে পরে। সেইসাথে ভিকটিম লোপার মরদেহ তাড়াহুরা করে দাফনের ব্যবস্থাও করে আসামীরা।
ভিকটিমের মায়ের অভিযোগ লোপার সাথে কলেজ পড়ুয়া একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ ঘটনা জানতে পেরে দাঁড়িয়াল ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আসামি রিয়াজ হাওলাদার তার কন্যাকে ব্লাকমেইল করে কুপ্রস্তাব দেয়। এতে লোপা রাজি না হওয়ায় রিয়াজ হাওলাদার তার কন্যাকে ধর্ষণ শেষে মেরে ফেলেছে।
এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ডাকুয়া সাংবাদিকদের জানান, আমরা দাড়িয়াল ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি রিয়াজের বিরূদ্ধে অভিযোগ পেয়ে জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে জানিয়েছি,অতি সত্তর তার ব্যাপারে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে বাদীর অভিযোগ এফআইআর হিসেবে নথিভুক্ত করার বিষয়ে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আফজাল হোসেন জানান, এ সংক্রান্তে এখনও কোন কাগজপত্র আমার হাতে এসে পৌছায় নি। পৌঁছালে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT