ভোলার বিভিন্ন উপজেলায় ভয়ংকর রাসেল ভাইপারের আতঙ্কে এলাকাবাসী ভোলার বিভিন্ন উপজেলায় ভয়ংকর রাসেল ভাইপারের আতঙ্কে এলাকাবাসী - ajkerparibartan.com
ভোলার বিভিন্ন উপজেলায় ভয়ংকর রাসেল ভাইপারের আতঙ্কে এলাকাবাসী

4:02 pm , June 20, 2024

মো. আফজাল হোসেন, ভোলা ॥ ভোলায় পরপর তিন দিনে ৩ টি রাসেল ভাইপার সাপ ধরার ঘটনায় সাধারন মানুষের মাঝে আতংক দেখা দিয়েছে। তবে আতংকিত না হয়ে সচেতন থাকার পরামর্শ সচেতন মহলের। ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতের পর প্রকাশ্যে দেখা মিলছে এই রাসেল ভাইপারের। বিষধর এই সাপ সম্পর্কে গ্রামগঞ্জের মানুষের মধ্যে ধারনা বা পরিচিতি একেবারেই নেই বললেই চলে। ইতোপূর্বে ভোলায় দু-একটি ধরা পড়লেও তা অবমুক্ত করা হয়েছিল বন বিভাগে। সম্প্রতি ভোলা জেলার বিভিন্ন এলাকায় এখন ধরা পড়ছে রাসেল ভাইপার। গত ১৬ জুন ভোলার লালমোহন উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সৈয়দাবাদ এলাকার হেমায়েত মাওলানা বাড়ির সাখাওয়াত হোসেন নামে এক ব্যক্তির বাথরুমে এই সাপটির দেখা মেলে। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যদিও আতঙ্কিত হয়ে সাপটিকে তাৎক্ষণিক পিটিয়ে মেরে ফেলে। গত ১৮ জুন ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের এক বসত বাড়ির পাশের রাস্তায় দেখা মেলে বিষধর এ সাপটির। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়। ১৮ জুন রাতে ফের
ভোলার দৌলতখান উপজেলার ভবানীপুর ১ নং ওয়ার্ডে জালু মাঝির ঘরে খাটের নিচে গর্তে লুকিয়ে থাকা সাপটির দেখা মিলে। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যদিও আতঙ্কিত হয়ে সাপটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলেন স্থানীয়রা।
স্থানীয়রা জানান, বিভিন্ন সময় ফেসবুকে রাসেল ভাইপার সাপ দেখেছি। এবার বাস্তবে জালু মাঝির বাড়িতে রাসেল ভাইপার সাপের দেখা মিললো। জালু মাঝি বলেন, এই দৃশ্য দেখে আমি আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। পরে প্রতিবেশীদের ডেকে এনে সাপটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলি। সাপটির পেটে বাচ্চা ছিল বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে ভোলার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক বলেন, রাসেল ভাইপার সাপ লোকালয়ে সাধারণত খুব কমই দেখা যায়। বাচ্চা দেওয়ার কারণে হয়তো ওই সাপটি লোকালয়ে চলে এসেছে। তবে সবাইকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এছাড়া কেউ এসব সাপ দেখলে মেরে না ফেলে স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তাদের জানানোর জন্য অনুরোধ করেন তিনি।
এদিকে ভোলার বিভিন্ন উপজেলায় রাসেল ভাইপার ধরা পড়ায় আতঙ্ক বিরাজ করছে প্রতিটি এলাকায়।
তথ্য অনুযায়ী উত্তর এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতেই এ সাপের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল। এ প্রজাতির সাপের সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি ছিল রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়। তবে বর্তমানে দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় এ প্রজাতির সাপের উপস্থিতি বেড়ে গেছে। উত্তরবঙ্গে রাসেল ভাইপার সাপ চন্দ্রবোড়া বা উলুবোড়া নামে পরিচিত।
যদিও এর আগে ভোলার দৌলতখান উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নে ২০২১ সালে ডিসেম্বরে এবং ভোলা সদর উপজেলায় ধনিয়া ইউনিয়নে এর দেখা মিললে স্থানীয়রা বন বিভাগের খবর দিয়ে তাৎক্ষণিক বনে অবমুক্ত করে দেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT