বরিশালে ডায়রিয়ার বিস্তৃতি থামছেই না বরিশালে ডায়রিয়ার বিস্তৃতি থামছেই না - ajkerparibartan.com
বরিশালে ডায়রিয়ার বিস্তৃতি থামছেই না

4:00 pm , June 3, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ বরিশালের ডায়রিয়া পরিস্থিতি উন্নতির কোন লক্ষন নেই। গত মাসের প্রথম ২৫ দিনের প্রচ- দাবদাহে ডায়রিয়া পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটেছে। ২৬ ও ২৭ মে ঘূর্ণিঝড় রেমালের উপর ভর করে প্রবল বর্ষণে তাপমাত্রার পারদ নিচে নামায় ডায়রিয়ার বিস্তৃতি স্তিমিত হলেও পরবর্তীতে পরিস্থিতির আবারো অবনতি ঘটেছে। রেমাল পরবর্তী গত এক সপ্তাহে নতুন করে আরো প্রায় দু হাজার নারী-পুরুষ ও শিশু ডায়রিয়া রোগী সরকারী হাসপাতাল গুলোতে চিকিৎসার জন্য এসেছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানিয়েছে। ফলে মে মাসেই বরিশালের সরকারী হাসপাতালে আগত ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা প্রায় ১০ হাজারের কাছে পৌছেছে। আর চলতি বছরের প্রথম ৫ মাসে বরিশালের সরকারী হাসপাতালগুলোতে আগত প্রায় ৪৩ হাজার ডায়রিয়া রোগীর মধ্যে গত সপ্তাহে এক জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করেছে বরিশালের স্বাস্থ্য দপ্তরের দায়িত্বশীল সূত্র।
এদিকে গত মাসেই বরিশালের বিভিন্ন সরকারী হাসপাতালগুলোতে আরো শতাধিক ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসার জন্য আসেন। ফলে বরিশালে ইতোমধ্যে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা প্রায় ৩৯ হাজার ছুই ছুই করছে। মৃতের সংখ্যাও ২১৮ জনে উন্নীত হয়েছে। নতুন করে বরিশাল মহানগরীতে ডেঙ্গু হানা দিতে শুরু করেছে।
এদিকে গত এপ্রিল মাসেও বরিশাল অঞ্চলের সরকারী হাসপাতালগুলোতে প্রায় ১২ হাজার ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা গ্রহন করেছেন। তবে ডায়রিয়া ও পেটের পীড়া নিয়ে আরো কয়েকগুন রোগী বিভিন্ন চিকিৎসকের ব্যক্তিগত চেম্বার এবং বেসরকারী ক্লিনিক সহ রোগীদের বাসায়ও চিকিৎসা নিয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগীয় দপ্তরের হিসেব এপ্রিলের শেষ সপ্তাহেও সরকারী হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগী আগমনের সংখ্যাটা ছিল সাড়ে ৩ হাজারেরও বেশী। আর গত ১ জানুয়ারী থেকে ৩০ মে পর্যন্ত সরকারী হানসপাতালগুলোতে আগত ডায়রিয়া রোগীল সংখ্যাটা দাড়িয়েছে প্রায় ৪৩ হাজারে।
অপরদিকে গত বছরও বরিশাল অঞ্চলের সরকারী হাসপাতালগুলোতে প্রায় ৭২ হাজার ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। যে সংখ্যাটা ২০২৩ সালে ছিল ৭৭ হাজারেরও বেশী। আর ২০২১-এ করোনার সর্বোচ্চ সংক্রমনের মধ্যেও বরিশালে প্রায় ৮০ হাজার ডায়রিয়া রোগী সরকারী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার জন্য আসেন।
এদিকে ডায়রিয়া চিকিৎসায় বরিশালে ১ হাজার ও ৫শ এম এল-এর প্রায় ২৮ হাজার ব্যাগ আইভি স্যালাইন ছাড়াও বিপুল সংখ্যক ক্যাপসুল সহ সব ধরনের চিকিৎসা সামগ্রীর মজুদের কথাও জানিয়েছেন বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক। তবে অনুমোদিত জনবলের অর্ধেকেরও বেশী চিকিৎসকের পদ শূণ্য থাকায় ডায়রিয়া সহ সব ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থাই বাধাগ্রস্থ হলেও ডায়রিয়া চিকিৎসায় কোন সংকট হবে না বলেও দাবী করেন পরিচালক। পাশাপিশি তিনি ডায়রিয়া ও ডেঙ্গু সহ যেকোন অস্বাভাবিক পরিস্থিতিতে সরকারী হাসপাতাল সহ চিকিৎসকের স্মরনাপন্ন হবারও তাগিদ দিয়েছেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT