উপকূলে ধেয়ে আসছে গভীর নি¤œচাপ প্রস্তুত ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক উপকূলে ধেয়ে আসছে গভীর নি¤œচাপ প্রস্তুত ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক - ajkerparibartan.com
উপকূলে ধেয়ে আসছে গভীর নি¤œচাপ প্রস্তুত ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক

4:24 pm , May 25, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥  বরিশাল সহ উপকূলভাগে ধেয়ে আসা মাঝারী মাত্রার গভীর নি¤œচাপের ক্ষয়ক্ষতি  মোকাবেলায় রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির প্রায় ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মাঠে থাকা দেড় লক্ষাধিক হেক্টরে পাকা এবং আধাপাকা বোরো ধান রক্ষা সহ আউশ বীজতলা ও রোপা আউশ নিয়ে চরম দুঃশ্চিন্তায় বরিশালের কৃষি যোদ্ধারা। তবে জৈষ্ঠের পূর্ণিমা ও অমাবশ্যার মরা কাটালের এ গভীর নি¤œচাপ খুব বড় ধরনের ক্ষতি নিয়ে আঘাত না হানলেও বঙ্গোপসাগর থেকে উপকূলজুড়ে গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা তৈরী হচ্ছে।  এর প্রভাবে বরিশাল উপকূলে ভারী বৃষ্টিপাতেরও সম্ভাবনা রয়েছে। তবে শনিবার দুপুরে সামান্য বৃষ্টিপাতের পরেও বরিশালে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পারদ ৩৬.৪ ডিগ্রী সেলসিয়াসে উঠে যায়। যা আগের দিনের চেয়ে ১.২ ডিগ্রী কম থাকলেও  স্বাভাবিকের ৩.৪ ডিগ্রী বেশী ছিল।
আবহাওয়া বিভাগের মতে, সঞ্চালনশীল এ মেঘমালার প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকা ছাড়াও পায়রা সমুদ্র বন্দর সহ সবগুলো সামুদ্রিক বন্দরের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।  শনিবার দুপুর ১২টার দিকে বরিশালে সামান্য বৃষ্টি হলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত আর কোন বৃষ্টির দেখা মেলেনি। পায়রা বন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেতের পরিবর্তে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। তবে বরিশাল সহ এ অঞ্চলের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরগুলোতে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কোন সতর্ক সংকেত ছিলনা।
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নি¤œচাপটির প্রভাবে যেকোন দুর্যোগ মোকাবেলায় বরিশালের বিভাগীয় প্রশাসন সহ দক্ষিণ উপকূলের সবগুলো জেলা প্রশাসন ইতোমধ্যে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচী-সিপিপি’র প্রায় ৭৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে সম্ভাব্য যেকোন দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আবহাওয়া বিভাগ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ পাওয়ার পর উপকূলজুড়ে ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার মানুষকে পৌঁছে দেয়া সহ গোটা উপকূল ভাগে সতর্ক বার্তা প্রচার করবে সিপিপি’র স্বেচ্ছাসেবকরা।
আবহাওয়া বিভাগের মতে, গভীর নি¤œচাপটি কেন্দ্রের ৪৮ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ৫০ কিলোমিটার, যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নি¤œচাপটির কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর যথেষ্ট উত্তাল রয়েছে বলে জানিয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছধরা নৌকা ও ট্রলারসমূহকে অতি দ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে। সর্বশেষ প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী গভীর নি¤œচাপটির অবস্থান পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৪শ কিলোমিটারেরও কম।
এদিকে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর-ডিএই থেকে যত দ্রুত সম্ভব বরিশাল কৃষি  অঞ্চলের মাঠে থাকা পাকা বোরো ধান ঘরে তোলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি বর্তমান দুর্যোগ এড়িয়ে আউশ রোপন সহ বীজতলা সমূহ সংরক্ষনে বিশেষ মনযোগী হবারও অনুরোধ করেছে ডিএই। এ লক্ষ্যে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের সম্ভব সব ধরনের পরামর্শ প্রদানেও মাঠকর্মীদের নির্দেশ দেয়ার কথা বলেছেন ডিএই’র দায়িত্বশীল মহল।
সদ্য সমাপ্ত রবি মৌসুমে বরিশাল অঞ্চলে ১৮ লাখ টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যে যে প্রায় ৪ লাখ হেক্টরে বোরো আবাদ হয়েছিল, তার প্রায় দেড় লাখ হেক্টরের ধান এখনো মাঠে। অপরদিকে ‘খরিফ-১’ মৌসুমে এবার বরিশাল অঞ্চলে ২.১০ লাখ হেক্টরে প্রায় ৫ লাখ ৭০ হাজার টন চাল উৎপাদনের লক্ষে মাঠে মাঠে আউশ আবাদে কৃষকের ব্যস্ততাও চলছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT