প্রবাসী স্বামীর টাকা-স্বর্নালংকার নিয়ে প্রেমিকের সাথে উধাও স্ত্রী প্রবাসী স্বামীর টাকা-স্বর্নালংকার নিয়ে প্রেমিকের সাথে উধাও স্ত্রী - ajkerparibartan.com
প্রবাসী স্বামীর টাকা-স্বর্নালংকার নিয়ে প্রেমিকের সাথে উধাও স্ত্রী

4:27 pm , May 17, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ কৌশলে ১৮ বছর ধরে প্রবাসী স্বামীর জমানো ৩০ লাখ টাকা ও ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে বাবার বাড়ি থেকে প্রেমিকের সাথে পালিয়েছে স্ত্রী মাহিনুর আক্তার (২৫)। এ ঘটনায় চারজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি জেলার হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের। শুক্রবার ওই গ্রামের বাসিন্দা মৃত জমদের আলী বেপারীর স্ত্রী ও দুবাই প্রবাসী আমির হোসেনের মা খাদিজা বেগম বলেন, কর্মের সুবাদে তার ছেলে আমির হোসেন বিগত ১৮ বছর ধরে দুবাইতে রয়েছে। ২০১৭ সালে মেহেন্দিগঞ্জের আন্দারমানিক ইউনিয়নের আজিমপুর গ্রামের বিল্লাল বেপারীর মেয়ে মাহিনুর আক্তারকে সামাজিকভাবে বিয়ে করে আমির। স্ত্রীর সুখের জন্য আমির হোসেন মাহিনুরকে দেড়বছর দুবাই নিয়ে রাখেন। একবছর পূর্বে মাহিনুর দুবাই থেকে বাড়িতে ফিরে বাবার বাড়িতেই অবস্থান করছিলো।
মোবাইল ফোনে প্রবাসী আমির হোসেন বলেন, সরল বিশ্বাসে ১৮ বছরের প্রবাস জীবনে সঞ্চিত প্রায় ৩০ লাখ টাকা স্ত্রী মাহিনুরের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা রেখেছি। এছাড়া তাকে (মাহিনুর) সর্বমোট ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার দেওয়া হয়েছে। ৩০ লাখ টাকা ও ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে মাহিনুর তার পরকীয়া প্রেমিক প্রতিবেশী মৃত আফছের সিকদারের ছেলে রমজান সিকদারের পালিয়ে গেছে।
প্রবাসী আমির হোসেনের বড় বোন অফেনুর বেগম বলেন, বিষয়টি জানতে পেরে মাহিনুরকে ফিরিয়ে আনতে অনেক চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয়েছি। উপায়অন্তুর না পেয়ে তাই বাধ্য হয়ে বরিশাল চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে চারজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিচারক মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের জন্য মাহিনুর ও রমজানের পরিবারের সদস্যরা তাদের ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে বিভিন্নধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন অব্যাহত রেখেছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT