কাউখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লড়াই হবে ত্রিমুখী কাউখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লড়াই হবে ত্রিমুখী - ajkerparibartan.com
কাউখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লড়াই হবে ত্রিমুখী

4:15 pm , May 15, 2024

রিয়াদ মাহমুদ সিকদার, কাউখালী প্রতিবেদক ॥ পিরোজপুরের কাউখালীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা কোন্দল, গ্রুপিং-বিরোধে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিরোধের জের এর প্রভাব পড়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে। স্থানীয় সংসদ সদস্যের সমর্থক নেতৃবৃন্দ, কর্মী বাহিনী তারা কাজ করছে দুই হেভিওয়েট উপজেলা প্রার্থীর পক্ষে। অপরদিকে জোটের পরাজিত প্রার্থী পক্ষে যারা নির্বাচন করছিলেন তারা কাজ করছে অপর দুই প্রার্থীর পক্ষে।২১ মে দ্বিতীয় ধাপেকাউখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ  নির্বাচনে পাঁচজন প্রার্থীর মধ্যে  তিনজনই হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা। এদের সাথে আরো আছেন স্থানীয় সংসদ সদস্যের আস্থাভাজন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবু সাঈদ মনু মিয়া।
প্রার্থীরা হলেন : উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মনু মিয়া। তিনি ঘোড়া প্রতীক নিয়ে লড়াই করছেন। নির্বাচনের শুরু থেকেই তার সাথে উপজেলার বর্তমান ও সাবেক অধিকাংশ জনপ্রতিনিধি তার পক্ষে নির্বাচন করছেন। ঘোরা প্রতীকের হেভিওয়েট প্রার্থী উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি নিয়ে  বিজয়ের জন্য দিনরাত মানুষের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন।
সংসদ সদস্যের কাছের মানুষ হিসেবে পরিচিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান তালুকদার পল্টনও কোন অংশে কম না।
কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে দিনরাত ভোটারদের কাছে গিয়ে ভোট চাইছেন। দিচ্ছেন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। কাউখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক   বিশ্বজিৎ পাল আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। তিনিও কাউখালী উপজেলাকে একটি আধুনিক উপজেলা হিসেবে গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটের প্রার্থীর প্রধান সমন্বয়ক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম আব্দুস শহীদ মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে  নির্বাচন করছেন।
ভোটের মাঠে রয়েছেন আরেক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ ফরিদুল ইসলাম খান পারভেজ।  তিনি দোয়াত-কলম প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, ‘এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে সজাগ রয়েছি। এখন পর্যন্ত নির্বাচনী পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রয়েছে। আশা করি ভোটের দিনও শান্তিপূর্ণ থাকবে।’উপজেলা নির্বাহী অফিসার সজল মোল্লা বলেন, কাউখালী নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে যা যা করার তার সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানোর কোনো সুযোগ থাকবে না। তবে এবারের নির্বাচন হবে প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের নির্বাচন। তাই ভোটাররা তাকিয়ে আছে কে হবেন আগামী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT