জলাবদ্ধতা এড়াতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মহাপরিকল্পনা জলাবদ্ধতা এড়াতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মহাপরিকল্পনা - ajkerparibartan.com
জলাবদ্ধতা এড়াতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মহাপরিকল্পনা

4:02 pm , May 5, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল নগরীতে জলাবদ্ধতা এড়াতে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বরিশাল সিটি করপোরেশন। বর্ষার মৌসুমের আগেই গুরুত্বপূর্ণ খাল খনন থেকে শুরু করে নতুন ড্রেন নির্মানের কাজ শুরু করা হবে বলে জানিয়েছে নগর ভবন কর্তৃপক্ষ। এছাড়া যেসব সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় সেই সব সড়ক দ্রুত সংস্কারের উদ্যেগ নেওয়া হয়েছে। মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত বলছেন বর্ষা মৌসুমের আগে কিছুটা কাজ করা যাবে, তবে সম্পূর্ণ কাজ করতে সময় লাগবে। পরিচ্ছন্নতা বিভাগ বলছে ইতিমধ্যে নগরীর তিন ভাগের এক ভাগ ড্রেণ পরিষ্কার কাজ শেষ হয়েছে। সূত্র মতে, জলাবদ্ধতা সমস্যা থেকে স্থায়ী সমাধানে দুই মাস আগেই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কাজ শুরু করেছে বরিশাল সিটি করপোরেশন । ড্রেনগুলো পরিষ্কার করে পানি প্রবাহ সৃষ্টি করা হচ্ছে। পাশাপাশি সম্পন্ন হয়েছে নগরীর ৮টি খাল খননের কাজও। জলবায়ু পরিবর্তনকে মাথায় রেখে এবারে ড্রেন নির্মান করা হবে বলে জানিয়েছে করপোরেশন। ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে টেন্ডার প্রক্রিয়া।
বরিশাল সিটি করপোরেশন বলছে মেয়র খোকন সেরনিয়াবাত শপথ গ্রহণের পর ৭৯৭ কোটি টাকা নগর উন্নয়নে বরাদ্দ দেয় সরকার। প্রথম দিকে সেই বরাদ্দে জলাবদ্ধতা এড়াতে ২৬৭ কোটি টাকা টেন্ডারে ১৬১টি রাস্তা সংষ্কার ও ৪৭টি ড্রেন নির্মান করা হবে। রাস্তা ১শ কিলোমিটার ও ড্রেন নির্মান হবে ২১ কিলোমিটার।
পরিচ্ছন্নতা বিভাগ বলছে ইতিমধ্যে ১২টি ওয়ার্ডের ড্রেন পরিস্কার করা শেষ হয়েছে, প্রতিদিন ৫০ জন কর্মী কাজ করছেন শুধু জলাবদ্ধতা এড়াতে ড্রেন পরিষ্কারে। কেননা বর্ষার মৌসুমে মানুষকে যাতে আর না ভুগতে হয় সেদিকে খেয়াল দিচ্ছেন তারা। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড
কাউন্সিলররা বলছেন বরিশাল নগরীর প্রধান সমস্যাই এখন জলাবদ্ধতা। সামান্য বৃষ্টি হলেই এই সমস্যার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছেন মেয়র। বর্ষার মৌসুমের আগেই জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ দৃশ্যমান হবে। তাছাড়া ড্রেন বা রাস্তা নির্মানে টেন্ডার জলবায়ু পরিবর্তনের কথা মাথায় রেখে করা হয়েছে বলে জানান তারা।বিসিসির ১ নম্বর
প্যানেল মেয়র ও ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান বিপ্লব বলেন,জলাবদ্ধতার সমস্যা নতুন নয়। আর এটা রাতারাতি সমাধান করাও মুখের কথা নয়। তবে এই সমস্যা দ্রুতই সমাধান করা হবে। মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ বলেন সবাইকে সচেতন করা হচ্ছে যাতে খালে ময়লা আবর্জনা না ফেলা হয়। তিনি বলেন, ১৫ বছর ধরে অবহেলিত থাকা বরিশাল নগরীর উন্নয়নের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে, যা সকলে অচিরেই দেখতে পারবে।
বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ফজলুল করিম বলেন,খাল দখলের বিষয়টি আমাদের নজরে রয়েছে। সিটি করপোরেশন উচ্ছেদের উদ্যেগ নিয়ে পানি প্রবাহের সৃষ্টির ব্যবস্থা নিলে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।
উল্লেখ্য, বরিশাল নগরীর খাল খননের জন্য ৯২৭ কোটি টাকার প্রকল্প স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে অনুমোদন হয়ে প্লানিং কমিশনে অপেক্ষাধীন রয়েছে। প্রকল্পটি অনুমোদন হলে মহানগরের জলাবদ্ধতা দীর্ঘমেয়াদী ভাবে নিরসন হবে বলে দাবী বরিশাল সিটি করপোরেশনের।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT