বরিশালে শপিংমলে বাড়ছে ভিড় জমেনি ফুটপাতের বেঁচাকেনা বরিশালে শপিংমলে বাড়ছে ভিড় জমেনি ফুটপাতের বেঁচাকেনা - ajkerparibartan.com
বরিশালে শপিংমলে বাড়ছে ভিড় জমেনি ফুটপাতের বেঁচাকেনা

3:50 pm , March 23, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। ঈদ উপলক্ষে বরিশাল নগরীর অভিজাত শপিংমলগুলোতে ক্রেতাদের উপস্থিতি দিন দিন বাড়ছে। কিন্তু সেই তুলনায় নেই বিক্রি। পোশাক কিংবা জুতায় অতিরিক্ত দামের কারণে বাজেটের মধ্যে কেনার চেষ্টায় ঘুরছেন ক্রেতারা। গতকাল শনিবার বরিশাল নগরীর বেশ কয়েকটি শপিংমল ঘুরে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।এদিকে ১২ রোজা পার হলেও এখন পর্যন্ত ফুটপাতের দোকান গুলোতে ঈদের কেনাকাটা তেমন একটা শুরু হয়নি বললেই চলে। নগরীর হাজি মুহাম্মদ মহসিন মার্কেট ও সিটি মার্কেট ঘুরে কিছু ক্রেতার দেখা মিললেও বিক্রি খুব একটা চোখে পড়েনি। বিক্রেতারা বলছেন বর্তমানে টুকটাক বিক্রি হচ্ছে। তবে এ মাস শেষে তাদের বেচাকেনা বাড়বে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। নগরীর টপটেন, ইজি, প্লাস পয়েন্ট, চন্দ্রবিন্দু, আড়ং, আগোড়াসহ কয়েকটি নামি-দামি শপিংমল ঘুরে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে আবহাওয়া পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকার কারণে অনেকে দিনের বদলে সন্ধ্যার পর শপিংমলে যাচ্ছেন কেনাকাটার জন্য। এসময় পোশাক কেনার ভিড় থাকে জানিয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, প্রতি বছরে রমজান মাসে আমাদের বিক্রি সবচেয়ে বেশি হয়। শপিং মলে সাধারণত মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্ত লোকদের আনাগোনা বেশি থাকে। ক্রেতাদের রুচির দিকে তাকিয়ে পোশাকসহ তাদের পছন্দের পণ্য আনতে হয়। বেশি বিক্রির লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের ক্রেতার পছন্দ মতো পশরা সাজানো হয়। ব্যবসায়ীরা বলছেন, রমজান মাসের প্রথম ১০ দিনের তুলনায় গত শুক্রবার ও গতকাল শনিবার ক্রেতাদের আনাগোনা বেশ ভাল। বিক্রিও হচ্ছে বেশ। অনেকে পছন্দ করছেন, তবে দামে মিলাতে পাচ্ছেন না। পছন্দের পণ্য খুঁজতে বিপণিবিতানগুলো দেখছেন।নগরীর বগুড়া রোডের আড়ং-এ আসা নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক গৃহিনী বলেন, ছেলের জন্য কেনা হয়েছে। মা ও আমার কেনা বাকি রয়েছে। কয়েক ঘণ্টা ধরে ঘুরেছি, পছন্দও হচ্ছে কিন্তু দামে মিলাতে পারছি না। আরেক গৃহিণী বলেন, নগরীর কয়েকটি শপিংমল ঘুরেছি। পছন্দ হলেও বাজেটের সঙ্গে মিলাতে পারছি না। পোশাকের দাম শুনে হাঁপিয়ে উঠছি। নগরীর চকবাজারের শাড়ি বিক্রির একাধিক বিক্রয়কর্মীর সাথে কথা হলে তারা বলেন, আমাদের এখানে ক্রেতাদের আনাগোনা অন্যবারের এই সময়ের চেয়ে কম। তবে ধীরে ধীরে ক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে। পাশাপশি ক্রেতাদের ভিড়ের তুলনায় বিক্রি কিছুটা কম। একই এলাকার জুতার দোকানের একাধিক বিক্রয়কর্মী বলেন, সকালের দিকে ক্রেতা কম থাকে। বিকেলের দিকে ক্রেতাদের আনাগোনা বাড়ে। সন্ধ্যার পর জমজমাট থাকে। রমজান মাসের শুরুতে বিক্রি কম থাকলেও ঈদ যতো ঘনিয়ে আসছে বিক্রি ততোই বাড়ছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT