কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত বেড়েছে নগরীর পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত বেড়েছে নগরীর পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে - ajkerparibartan.com
কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত বেড়েছে নগরীর পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে

3:33 pm , March 8, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ মহানগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান সহ প্রায় সবগুলো পার্কই ধীরে ধীরে কিশোর গ্যাং ও বখাটেদের নিয়ন্ত্রন প্রতিষ্ঠা সহ অবাধ বিচরনস্থলে পরিনত হয়েছে। সাথে বাসি পচাঁ পথ খাবারের দোকান এ নগরবাসীর পেটের পীড়াকে অতীতের যেকোন সময়ের তুলনায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নিয়ে যাচ্ছে। ফলে নিকট অতীতের শ্রান্তি বিনোদনের এসব স্থানগুলোতে এখন আর নগরীর নারী-পুরুষ ও শিশুরা একটু কোলাহলমুক্ত পরিবেশে পরিপূর্ণ নিরাপত্তা সহ একটু বুক ভরে নিশ^াস গ্রহণে যেত সাহস পাচ্ছেন না।
নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান, কীর্তনখোলা নদীর পড়ের মুক্তিযোদ্ধা পার্ক, আমতলা মোড়ের স্বাধীনতা পার্ক নবগ্রাম রোড-চৌমহনীতে জাতীয় মহাসড়ক দখল করে সিটি করপোরেশনের গড়ে তোলা বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহনারা আবদুল্লাহ পার্কগুলো বখাটে ও কিশোর গ্যাং-এর বেপরোয়া তান্ডবে ক্রমশ তার মূল চরিত্র হারাচ্ছে। নিরাপত্তাহীনতায় ইতোমধ্যে এসব পার্ক থেকে বেশীরভাগ নারী ও শিশুরা দূরে সরে যাচ্ছেন। এসব কিশোর গ্যাং এতটাই বেপরোয়া যে, একটি কিশোর গ্যাং নগরীর শাহানারা আবদুল্লাহ পার্ক ও সংলগ্ন লেকের পূর্ব পাড়ে গভীর রাত পর্যন্ত  বিকট শব্দে হিন্দি গান আর উদ্যম নৃত্য করে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালনের নামে বেপরোয়া তান্ডব চালায়। কিন্তু নগরীর কেন্দ্রস্থলে একটি জাতীয় মহাসড়কের পাশে এ নোংরামি বন্ধে কোন পদক্ষেপ লক্ষনীয় ছিলনা। এখানে দৃষ্টিনন্দন লেকটির তিন পাড়ই পথ খাবারের দোকান ও বখাটেদের দখলে চলে গেলেও নগর ভবন বা সড়ক অধিদপ্তরেরও তেমন কোন পদক্ষেপ নেই।
কিশোর গ্যাং ও বখাটেদের বেপরোয়া কর্মকান্ড ক্রমে বরিশাল মহানগরীর সুস্থ সামাজিক পরিবেশকে বিপন্ন  করে তুলছে। বিষয়টি নিয়ে আইন-শৃংখলা বাহিনী সহ রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতবৃন্দের মাঝেও এখন পর্যন্ত তেমন কোন হেলদোল লক্ষনীয় নয় বলে অভিযোগ নগরীর বেশীরভাগ সাধারন মানুষের।
নগরীর ঐতিহ্যবাহী বঙ্গবন্ধু উদ্যানটির পুরো পরিবেশ এখন বিপন্ন পথ খাবারের দোকান, কিশোর গ্যাং সহ বখাটেদের সরব উপস্থিতিতে। অথচ বছর কয়েক আগেও নগরবাসী ঐতিহ্যবাহী এ উদ্যানটির জন্য গর্ব অনুভব করতেন। কিছুদিন আগে কিশোর গ্যাং-এর কয়েক সদস্যের হাতে এ ময়দানেই এক ট্রাফিক সার্জেন্টের স্ত্রী শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হন।
নগরীর মুক্তিযোদ্ধা পার্ক ও স্বাধীনতা পার্কের একই অবস্থা। এরমধ্যে কীর্তনখোলা নদী তীরের মুক্তিযোদ্ধা পার্কটি পুরোপুরিভাবেই কিশোর গ্যাং-এর নিয়ন্ত্রনে।
মহানগর পুলিশের দায়িত্বশীলদের মতে, যেকোন বেআইনী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে তারা সব সময়ই সচেতন আছেন। তারপরেও যেকোন অভিযোগ পেলে তা খতিয়ে  দেখে পুলিশ সব সময়ই ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও  দাবী দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তাদের। পাশাপাশি এসব পার্কগুলোতে আগত দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা সহ সার্বিক দেখভালের দায়িত্ব ট্যুরিষ্ট পুলিশের বলেও জানান হয়েছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT