নগরবাসীর এক দিনের স্বস্তি নগরবাসীর এক দিনের স্বস্তি - ajkerparibartan.com
নগরবাসীর এক দিনের স্বস্তি

3:45 pm , February 17, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ হোক সেটা বৈধ বা অবৈধ। নগরবাসীর বর্তমান সময়ের অন্যতম প্রধান দুর্ভোগ ও যন্ত্রনার নাম ব্যাটারীচালিত হলুদ অটো ও অটোরিক্সা। যে নগরবাসী কখনো যানজট দেখেনি কয়েক বছর ধরে তাও দেখতে হচ্ছে। শুধু দেখতে নয় যানজটের কবলে পড়তে হচ্ছে নগরবাসীকে। এর একমাত্র কারন হচ্ছে ব্যাটারীচালিত অবৈধ হলুদ অটোরিক্সা। সিটি করপোরেশনের তথ্য অনযায়ী নগরীতে লাইসেন্সকৃত অটোরিক্সার সংখ্যা আড়াই হাজারের মত হলেও গোটা নগরীতে বর্তমানে চলাচল করছে ২০ হাজারের বেশী হলুদ অটো। এই অবৈধ যানটি নগরবাসীর বিষফোড়ায় রূপ নিয়েছে। ট্রাফিক পুলিশের ভাষ্য মতে যানবাহনের দিক থেকে সুন্দর সুশৃঙ্খল নগরী বিশৃঙ্খল নগরীতে রূপ নিয়েছে শুধুমাত্র অবৈধ হলুদ অটোরিক্সার কারনে। এখন কোনভাবেই নগরীতে যানযট নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হচ্ছে না।
গতকাল বিভিন্ন দাবিতে ধর্মঘট ডেকে নগরীতে এক দিনের কর্মবিরতিতে ছিলো ব্যাটারী চালিত হলুদ অটো চালকরা। আর এতে করেই স্বস্তির নিঃশ^াস ফেলেছে গোটা নগরবাসী। পুরো নগরী যেন ছিলো যানজট মুক্ত সুশৃঙ্খল একটি পরিচ্ছন্ন নগরী। নগরীর ফজলুল এক এভিনিউ এর ব্যবসায়ী সোহাগ বলেন, অনেক দিন পর একদিনের জন্য একটু স্বস্তি পেলাম। যানজট, কোলাহলমুক্ত একটি শহরের দৃশ্য উপভোগ করলাম। এভাবে শহরের চিত্রটা থাকলে খুবই ভাল হতো। সবাই শান্তি মনে নগরীতে চলাচল করতে পারত। ফকিরবাড়ি রোডের ব্যবসায়ী আবদুল গাফফার বলেন, আজ মনে হচ্ছে উন্নত বিশে^র কোন দেশের কোন শহরে আছি। তিনি বলেন, আজকের দৃশ্য মনে উপলব্ধি হচ্ছে হলুদ অটোগুলো কিভাবে শহরটাকে বিশৃঙ্খল করে রেখেছে। এগুলো না থাকলে শহরটা কত ভাল থাকত। তিনি বলেন, প্রশাসনের উচিত কঠোর হাতে হলুদ অটোসহ সকল অবৈধ যানবাহন বন্ধ করা। সাইফুল নামে নগরীর বগুড়া রোডের এক বাসিন্দা বলেন, দুপুরে সদর রোডে প্রবেশ করেই পুরো শহরটাকে অন্যরকম মনে হচ্ছিলো। যেন ঈদের দু এক দিন পরের দৃশ্য। হঠাৎ জানতে পারলাম অটো চালকদের ধর্মঘট চলছে। তিনি বলেন, নগরীতে চলাচলকারী ৯০ শতাংশ হলুদ অটোই অবৈধ। সিটি করপোরেশন ও প্রশাসনের উচিত এগুলো পুরোপুরি উঠিয়ে দেওয়া।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT