উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: বরিশাল সদরে জনপ্রিয় খান মামুন: গ্রামে ঘুরছেন ছবি ও মধু উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: বরিশাল সদরে জনপ্রিয় খান মামুন: গ্রামে ঘুরছেন ছবি ও মধু - ajkerparibartan.com
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন: বরিশাল সদরে জনপ্রিয় খান মামুন: গ্রামে ঘুরছেন ছবি ও মধু

3:40 pm , February 8, 2024

আরিফ আহমেদ, বিশেষ প্রতিবেদক ॥ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘীরে সরগরম হয়ে উঠেছে বরিশাল সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ১৪৭টি গ্রাম। এই ১০টি ইউনিয়নকে ঘিরে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচনে এবার প্রার্থী সংখ্যা প্রায় অর্ধশত। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন বিদায়ী চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু। তবে শোনা যাচ্ছে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন না হলে তিনি নির্বাচন করবেন না। এদিকে তৃণমূল আওয়ামী লীগের বড় একটি অংশ দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করতে আগ্রহী। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারী কেন্দ্রীয় বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত পাওয়া যাবে বলে মনে করেন তারা। দলীয় প্রতীকে নির্বাচন না হলে শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে থাকার কথা বললেন চরকাউয়া ইউনিয়ন পরিষদের চারবারের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ছবি। এদিকে সাধারণ মানুষের মধ্যে ইতিমধ্যেই জোর আলোচনা শুরু হয়েছে যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন এবং বিদায়ী ভাইস চেয়ারম্যান আইনজীবী মাহবুবুর রহমান মধুকে নিয়ে। এছাড়াও সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিদায়ী ভাইস চেয়ারম্যান রেহানা ছাড়াও যুক্ত হয়েছেন সাজ্জাদুর রহমান শাকিল মৃধা, কামরুন নাহার এবং হ্যাপী হাসান। ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাকিল মৃধা বলেন, এই নির্বাচন যেহেতু সরকার গঠন প্রক্রিয়ার কোনো অংশ নয়, তাই এটা দলীয় প্রতীকে হবার সম্ভাবনা খুবই কম। বাংলাদেশ আমজনতা পরিষদের সহযোগী সংগঠন বরিশাল আমজনতা পরিষদের হয়ে আমি এই নির্বাচনে একজন প্রার্থী। মানুষের সেবা করার মানসিকতা নিয়ে এসেছি, সুযোগ পেলে সেবা করবো ইনশাআল্লাহ।
আর কামরুন নাহার দোয়া চেয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন গ্রামে গ্রামে। তিনি বলেন, দলীয় প্রতীকে এ নির্বাচন না হওয়াই উত্তম হবে। সত্যিকারের জনপ্রিয়তা স্পষ্ট হবে তাহলে।
তবে এ নির্বাচন দলীয় প্রতীকে না হলে নিজদের মধ্যে কোন্দল ও বিভক্তি বাড়বে বলে মনে করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চরকাউয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ছবি। তিনি বলেন, দলীয় প্রতীকে হলে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবো। দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার জন্য কাজ করবো।
তবে এ নির্বাচন দলীয় বা উম্মুক্ত হলেও ক্ষতি নেই বলে জানান বিদায়ী ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবর রহমান মধু।
এদিকে এই নির্বাচনকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি ও সদর উপজেলার উন্নয়ন পরিকল্পনা সাজিয়েছেন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন। বংশ পরম্পরায় তিনি বরিশালের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির সাথে সম্পৃক্ত দাবী করে খান মামুন বলেন, আমার বাবা এই বরিশালের কালেক্টর ছিলেন। তিনি আমৃত্যু বরিশালের উন্নয়নের জন্য কাজ করেছেন। আমিও ছাত্র রাজনীতি থেকে এই বরিশালের হাসি-কান্নার অংশীদার। যেখানে যতটুকু পেরেছি সাহায্য নিয়ে ছুটে বেড়িয়েছি।
খান মামুন সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ৮০ থেকে ৯০ দশক পর্যন্ত বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের যখন চরম দুঃসময় চলছিল তখন হাতেগোনা কয়েকজন নেতাকর্মী ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হাল ধরে বরিশালে আওয়ামী লীগকে বাঁচিয়ে রেখেছেন। তাদেরই একজন বর্তমান বরিশাল যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন। এলাকাবাসী ও সাধারণ মানুষের কাছে তিনি খান মামুন হিসেবেই বেশি পরিচিত। ছাত্র ও যুবদের মাঝে নেতৃত্ব দিতে অভ্যস্ত এই নেতা কখনোই দলের কাছে মূল্যায়িত হননি সে অর্থে। অনেকবার মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে আজো অপেক্ষায় আছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সুদৃষ্টির। কবে কখন দলীয় প্রধানের সুদৃষ্টি পড়বে তার উপর। জীবনের শেষধাপে একটাই চাওয়া তার – দলীয় মূল্যায়ন এবং বরিশালের মানুষের সেবা করার সুযোগ্য সুযোগ চান খান মামুন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT