ভান্ডারিয়া থেকে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুরের রস ভান্ডারিয়া থেকে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুরের রস - ajkerparibartan.com
ভান্ডারিয়া থেকে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুরের রস

3:53 pm , February 6, 2024

ভা-ারিয়া প্রতিবেদক ॥ ভা-ারিয়া উপজেলা থেকে হারিয়ে যাচ্ছে আবহমান গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী সুস্বাদু খেজুরের রস। গৌরব আর ঐতিহ্যের প্রতীক মধুময় খেজুর গাছ আগের মতো এখন আর দেখা যাচ্ছে না বললেই চলে। তবুও অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখছে  উপকূলীয় অঞ্চলের নদীর তীরের বেড়িবাঁধ ও গ্রামাঞ্চলের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা খেজুর রস সংগ্রেহ গাছ কাটতে দেখা গেছে। প্রতিবছর শীত মৌসুম এলেই শহরের মানুষ গ্রামাঞ্চলে ছুটেন খেজুর রসের খোঁজে। চাহিদা অনুযায়ী প্রাপ্তি না হলেও মৌসুমি চাহিদা কিছুটা হলেও পূরণ করতে পারেন গাছিরা। শীতের মৌসুম শুরু হতেই খেজুরের রস আহরণে গ্রামে গ্রামে খেজুর গাছ কাটার প্রস্তুতি নেন তারা। জানা গেছে, শুধু খেজুরের রসই নয়, এর থেকে তৈরি হয় সুস্বাদু পাটালি গুড় ও প্রাকৃতিক ভিনেগার। খেজুর গুড় বাঙালির সংস্কৃতির একটা অঙ্গ। খেজুর গুড় ছাড়া শীতকালীন উৎসব ভাবাই যায় না। শীতের দিন মানেই গ্রামাঞ্চলে খেজুর রস ও নলেন গুড়ের মৌ-মৌ গন্ধ। খেজুর রসের পিঠা-পায়েস তো দারুণ মজাদার। এ জন্য শীতের শুরুতেই গ্রামাঞ্চলে খেজুর রসের ক্ষির, পায়েস ও পিঠা খাওয়ার ধুম পড়ে যায়। ভা-ারিয়া উপজেলার গ্রামগুলোতে সুস্বাদু এই খেজুরের রস আগুনে জ্বাল দিয়ে বানানো হয় বিভিন্ন রকমের গুড়ের পাটালি ও নালি গুড়। গাছিরা প্রতিদিন বিকেলে খেজুর গাছের সাদা অংশ পরিষ্কার করে ছোট-বড় কলসি (মাটির পাত্র) রসের জন্য বেঁধে রেখে, পরদিন সকালে কাঁচা রস সংগ্রহ করে মাটির হাড়িতে নিয়ে এসে হাট-বাজারে বিক্রি করেন। উপজেলার উত্তর শিয়ালকাঠী গ্রামের খেজুর গাছ কাটে রস আহরণ করেন হেমায়েত শিকদার। তিনি বলেন, তার এলাকায় নিজের ও অন্যের জমিতে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৩০টি খেজুর গাছ রয়েছে। নিজেদের এবং আত্মীয়-স্বজনের চাহিদা মিটিয়ে বাইরে বিক্রি করে প্রতিবছরই ভালো একটা উপার্জন করি। এ বিষয়ে কৃষিবিদ ড. চিত্ত রঞ্জন বলেন, মাটির নিচের জল এবং মাটির আর্দ্রতা কমে যাওয়ায় খেজুর গাছে আগের তুলনায় রস কম সংগ্রহ হচ্ছে। যত্রতত্র ইটভাটা গড়ে ওঠায়, ভূপৃষ্ঠের রূপ পরিবর্তন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পানির স্থর নিচে নেমে যাচ্ছে। অসাধু ইটভাটার মালিকরা অধিক মুনাফার লোভে খেজুর গাছ জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করছে। তিনি আরও বলেন, বেড়িবাঁধ ও রাস্তার পাশে খেজুর গাছের চাষ বাড়ানোর সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে বেশি বেশি খেজুর গাছ রোপণ করার পরামর্শ দেন। সেইসঙ্গে গাছিদের প্রশিক্ষণ দিয়ে খেজুর রস আহরণে উৎসাহিত করা একান্ত প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT