পরিবেশ রক্ষা ও বেকারত্ব ঘোচাতে ভূমিকা রাখছেন বরিশাল বিসিকের রিনা পরিবেশ রক্ষা ও বেকারত্ব ঘোচাতে ভূমিকা রাখছেন বরিশাল বিসিকের রিনা - ajkerparibartan.com
পরিবেশ রক্ষা ও বেকারত্ব ঘোচাতে ভূমিকা রাখছেন বরিশাল বিসিকের রিনা

4:19 pm , February 5, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ সারাদেশে প্রতিদিন লাখ লাখ পলিথিন ফেলে দেয়া হয়। আর এসব পলিথিন খাল-বিল, নদনদী ও জলাশয়ে পড়ে সৃষ্টি করে জলাবদ্ধতা। এ পলিথিন কখনোই মাটির সাথে মিশে যায়না, মাটির উর্বরতা নষ্ট করে বলে বিশেষজ্ঞ মতামত রয়েছে। ফেলে দেয়া এসব ময়লা আবর্জনা মাখা পলিথিন কুড়িয়ে এনে তা দিয়ে নতুন পলিমার তৈরি করে পরিবেশ দূষণ রোধের পাশাপাশি স্থানীয় নারীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন বরিশাল বিসিকের একজন উদ্যোক্তা নাজমুন নাহার রিনা। প্রতিদিন তার বিসমিল্লাহ পলিমার ও প্যাকেজিং ফ্যাক্টরির জন্য ২৬শ কেজি পলিথিন প্রয়োজন হয়। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ট্রাকের পর ট্রাক বোঝাই হয়ে এই ফেলে দেয়া পলিথিন আসে বিসমিল্লাহ পলিমারে। নাজমুন নাহার রিনা জানান, খুলনা, যশোর, ফরিদপুর, মাদারীপুরসহ সারাদেশ থেকেই ভাঙ্গারী ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে এই ফেলে দেয়া পলিথিন সংগ্রহ করেন তিনি। এখানে কর্মরত দরিদ্র মহিলারা বেশিরভাগই সামাজিকভাবে অবহেলিত ও প্রতিবন্ধী। প্রায় ৬০-৭০ জন লোকবল নিয়ে ময়লা ছেড়া পলিথিন পরিষ্কার করে তা দিয়ে পুনরায় ব্যবহার উপযোগী বড় পলিথিন তৈরি হয় এই কারাখানায়।
সরজমিনে সোমবার সকালে বিসমিল্লাহ পলিমার ঘুরে দেখা যায়, এখানে নারী-পুরুষেরা ব্যস্ত নতুন পলিথিন তৈরি কাজে। ট্রাক বোঝাই হয়ে আসা ময়লা ছেড়া পলিথিনগুলো পরিষ্কার করার দায়িত্ব নারীদের। আর পুরুষদের একাংশ ভারী মেশিনারী নিয়ে তিন ভাগে রিসাইকেল করছেন এসব পলিথিন। তারপর তৈরি হচ্ছে ভবন নির্মাণের জন্য ব্যবহৃত বড় পলিথিন। এগুলো কৃষিপণ্য, ট্রাকের মালামাল ঢেকে রাখার কাজেও ব্যবহার হয় বলে জানান নাজমুন নাহার রিনা। তিনি বলেন, প্রতিদিন চাহিদার তুলনায় অনেক কম উৎপাদন আমার। কেননা লোকবল ও অর্থাভাবে প্রয়োজনীয় উপকরণ কিনতে ব্যর্থ হচ্ছি। আমাকে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সহযোগিতা দিলে আমি বর্তমান উৎপাদন চাহিদার তিনগুণ মালামাল সাপ্লাই দিতে পারবো। বিসমিল্লাহ পলিমার এন্ড প্যাকেজিং ছাড়াও নাজমুন নাহার রিনা নক্সিকাথাসহ হস্তশিল্প উপকরণ তৈরি করে তা বাজারজাত করেন এই প্রতিষ্ঠান থেকেই। এ কাজে তাকে সহযোগিতা করে বরিশাল জেলা প্রশাসনের অধীন সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের পুনর্বাসন কেন্দ্রের মেয়েরা। জেলা প্রশাসনের প্রবেশন কর্মকর্তা সাজ্জাদ পারভেজ তা নিয়মিত তদারকি করেন। সাজ্জাদ পারভেজ বলেন, বিসমিল্লাহ পলিমানে আমাদের মেয়েরা নিরাপদ এবং তাদের শান্তিপূর্ণ জীবনের নিশ্চয়তা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের পরিচালক রিনা মেয়েদের জন্য একটা মাসিক সম্মানিও দেন যা তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে সহায়ক হবে বলে জানান সাজ্জাদ পারভেজ।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT