বরিশালে অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে কৃষি ব্যাংক ৭শ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করলো বরিশালে অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে কৃষি ব্যাংক ৭শ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করলো - ajkerparibartan.com
বরিশালে অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে কৃষি ব্যাংক ৭শ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করলো

3:28 pm , January 14, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥  অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে বরিশাল অঞ্চলে রাষ্ট্রায়ত্ব কৃষি ব্যাংকের ১৩০টি শাখা প্রায় ৭শ কোটি টাকা কৃষি, শস্য, এসএমই এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে ঋণ বিতরণের পাশাপাশি প্রায় ৬৫৫ কোটি টাকা আদায়ে সক্ষম হয়েছে। মাত্র ৪% সুদে মসলা জাতীয় ফসল উৎপাদনসহ আরো কয়েকটি খাতে ঋণ বিতরণ করে এ ব্যাংকটির বরিশাল বিভাগের ১৮টি শাখা লোকসান কাটিয়ে মুনাফায় ফিরে এসেছে। ব্যাংকটি বরিশাল অঞ্চলে গত জুনে ২৮ কোটি ১১ লাখ টাকার লোকসান মাত্র ৬ মাসে ৯১ লাখ টাকায় হ্রাস করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানাগেছে। লাভজনক শাখার সংখ্যা ৪১টি থেকে ৬০টিতে উন্নীত হয়েছে ইতোমধ্যে। অর্থ বছরের শেষে বরিশাল অঞ্চলে কৃষি ব্যাংক পরিচালন মুনাফার লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হবে বলে জানিয়েছেন বরিশাল বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার ও প্রধান নির্বাহী গোলাম মাহবুব।
বর্তমানে বরিশাল অঞ্চলের কৃষকদের কাছে কৃষি ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের পরিমান প্রায় ৩ হাজার ১শ কোটি টাকা হলেও আদায়যোগ্য অনাদায়ী ঋণের পরিমান মাত্র ৩৪৫ কোটি টাকা। যা ১০ ভাগের কিছু বেশী। অথচ দেশের বানিজ্যিক ব্যাংকগুলোর খেলাপী ঋণের পরিমান প্রায় ২৫ ভাগের কাছে।
এসএমই খাতেও ব্যাংকটি গত ছয় মাসে ১৬১ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ ছাড়াও শহরমুখি মানুষকে নিজ আবাসস্থলে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে ‘ঘরে ফেরা’ কর্মসূচীর আওতায় মাত্র ৪% সুদে ১৩ কোটি টাকারও বেশী ঋণ বিতরণ করেছে। আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকারি এ প্রনোদনা ঋণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বরিশাল অঞ্চলের ১৩০টি শাখায় বর্তমানে প্রায় ২ হাজার ৭শ কোটি টাকা আমানত স্থিতির পাশাপাশি চলতি অর্থবছরে প্রায় ৫ লাখ গ্রহীতার মাঝে ঋণ বিতরণ করছে। যারমধ্যে অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসেই ৯০% গ্রহীতার মাঝে ঋণ বিতরণ সম্ভব হয়েছে বলে জানাগেছে। পল্লী এলাকার ‘কৃষক বন্ধু’ এ ব্যাংকটি চলতি অর্থ বছরে ৩৭০ কোটি টাকার বৈদেশিক রেমিটেন্স আনার লক্ষেও কাজ করছে। গত অর্থ বছরে রাষ্ট্রায়ত্ব এ বিশেষায়িত ব্যাংকটির মাধ্যমে বিশে^র বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১৩২ কোটি টাকারও বেশী বৈদেশিক মুদ্রা দেশে এসেছে।
অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে ব্যাংকটি নতুন প্রায় ৩৫ হাজার সঞ্চয়ী ও চলতি হিসেব খোলা ছাড়াও প্রায় ১৫ হাজার নতুন গ্রহীতার মাঝে ঋণ বিতরণ করেছে। এছাড়া আরো প্রায় ৪১ হাজার গ্রাহকের ঋণ নবায়ন সহ বর্তমানে বরিশাল অঞ্চলে ব্যাংকটির মোট ঋণ গ্রহীতার সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৪ লাখ। গত ৬ মাসে ব্যাংকটির বরিশাল অঞ্চলের ১৩০টি শাখা পুণঃতফসিলকৃত ঋণ থেকে প্রায় দেড়শ কোটি টাকা আদায়েও সক্ষম হয়েছে।
প্রায় ১২ লাখ টন খাদ্য উদ্বৃত্ত কৃষি নির্ভর বরিশাল অঞ্চলে এখনো কৃষক ও কৃষির অধুনিকায়ন না হলেও কৃষি ব্যাংক সরকারি সব সহায়তা নিয়ে কাজ করছে। রাষ্ট্রায়ত্ব বিশেষায়িত এ ব্যাংকটি কৃষি ও শস্য ঋণের বাইরে সরকারের করোনা প্রনোদনা প্যাকেজের আওতায় মাত্র ৪% থেকে ৭% সুদে গত অর্থ বছরে প্রায় ২০ হাজার উদ্যোক্তার মাঝে প্রায় ২শ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে।
অর্থ বছরের প্রথম ৬ মাসে ব্যাংকটি বরিশাল  অঞ্চলে বিতরণকৃত ৬৯৫ কোটি টাকার মধ্যে ৫৩৩ কোটি টাকাই কৃষি ও শস্যঋণ। এর বাইরে মৎস্য খাতে প্রায় ২১ কোটি, প্রাণি সম্পদ খাতে ২৪ কোটি এবং সরাসরি দারিদ্র বিমোচন খাতে প্রায় ১৫ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে। এছাড়াও কৃষি ভিত্তিক ক্ষুদ্র শিল্প স্থাপনেও প্রায় ৫০ লাখ টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।
তবে দক্ষিণাঞ্চলে দেশের সর্ববৃহৎ বিশেষায়িত রাষ্ট্রীয় এ ব্যাংকটির সার্বিক কার্যক্রমে প্রধান অন্তরায় জনবল সংকট। বরিশাল বিভাগে ব্যাংকটির ১৩০টি শাখা সহ বিভাগীয় ও আঞ্চলিক অফিসগুলোর জন্য কৃষি ব্যাংকের ১ হাজার ৬২৮ জনের মঞ্জুরিকৃত জনবলের অর্ধেকেরও বেশী এখনো শূন্য।
এদিকে সরকার এসডিজি অর্জনে ‘ক্ষুধা মুক্ত ও দারিদ্র মুক্ত বাংলাদেশ’ এর লক্ষ্যে দুটি বিষয়ে প্রাধান্য দিচ্ছে বলে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও সাবেক কৃষি সচিব মোঃ নাসিরুজ্জামান জানিয়েছে। তার মতে, ‘জিডিপি’তে কৃষি সেক্টরের অবদান ১২-১৩% এবং কর্মসংস্থানে কৃষি সেক্টরের অবদান ৪১%। কিন্তু এখনো কৃষকের ঋণ  চাহিদার মাত্র ২৪% ব্যাংক পূরণ করে।  অবশিষ্ট ৭৪%  মহাজনের কাছ থেকে চড়া সুদে কৃষকদের সংগ্রহ করতে হয়। ফলে কৃষকের দারিদ্রতা আরো বেড়ে যায়।  এসব কৃষকের পাশে দাঁড়াতে কৃষি ব্যাংক ছাড়া কেউ নেই।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT