মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ নগরবাসী মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ নগরবাসী - ajkerparibartan.com
মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ নগরবাসী

4:23 pm , January 9, 2024

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ নগরীতে আবারও বেড়েছে মশার প্রকোপ। বিকেল হলেই মশার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে উঠছেন নগরবাসী। গত একসপ্তাহ ধরে মশার ওষুধ ছিটানো হলেও মরছে না মশা। নর্দমা ও নালায় বেড়েছে মশার লার্ভা। শুধু নগরীতে নয়, বরিশাল জেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ও গ্রামেও মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ জনজীবন। দিনের বেলাও মশারী টানিয়ে সন্তানদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হয় বলে একাধিক পরিবারের অভিযোগ। সাধারণ মানুষের দাবী, গত বছরের তুলনায় চারগুণ বেশি মশার উৎপাত এবছর। তবে সেই তুলনায় মশার ওষুধ তেমন একটা ছিটানো হয় না বললেই চলে। আর বিসিসি কর্তৃপক্ষের দাবী প্রতিদিনই ফগার মেশিন দিয়ে মশার ওষুধ দেওয়া হয়। তবে গত দুদিন নির্বাচন অনুষ্ঠানের কারণে বন্ধ ছিলো এ কার্যক্রম। সরেজমিনে মঙ্গলবার বরিশাল নগরীর কয়েকটি ওয়ার্ড এবং সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ও কড়াপুর ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে অনেক ঝোপঝাড় ও খালবন্দী পানিতে ময়লার স্তূপের মধ্যে মশার লাভা বাড়ছে। নগরীর ১৩ নং ওয়ার্ড দক্ষিণ আলেকান্দার সাগরদি খালের পুরোটাই মশার চাষাবাদ যেন। রুইয়ার পুল নবগ্রাম খাল পরিচ্ছন্ন করার কারণে মশারা সব বাসাবাড়িতে রাজত্ব জমিয়েছে বলে দাবী বাসিন্দাদের। দক্ষিণ আলেকন্দার বাসিন্দারা বলেন, এই সাগরদি খাল শুধু নয়, এখানের আশেপাশের বাড়িঘরের নর্দমাতেও প্রচুর ময়লা আবর্জনা জমে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। ফলে মশাদের বংশ বিস্তার ঘটছে। এই এলাকায় কদাচিৎ মশার ওষুধ ছিটানো হয়। একই অভিযোগ নগরীর বেশিরভাগ মসজিদে মুসল্লীদের। ব্রাউন কম্পাউন্ডের দারুল মোকাররম জামে মসজিদ ও জিলা স্কুল মসজিদে তিনটার পর থেকে মশার জন্য একটু বসা যায়না বলে অভিযোগ মুসল্লিদের। কালীবাড়ি রোডের শ্রী শ্রী পাষাণময়ী কালী মাতার মন্দিরের পূজারীদেরও একই অভিযোগ। মশার কামড়ে ইতিমধ্যেই অনেকে অসুস্থ হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন দাবী করে ব্যাপ্টিস্ট মিশন রোডের অপু গোমেজ বলেন, সবচেয়ে বড় সমস্যা শিশুদের নিয়ে। আমার দেড় বছরের শিশুটির হাতে পায়ে অসংখ্য কামড়ের দাগ। দিনেরবেলা মশারি টানিয়েও কাজ হয়না। আর কয়েলগুলোতো শিশুদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT