বরিশাল-৪ আসনে প্রার্থীতা না থাকলেও নৌকার কর্মীদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ বরিশাল-৪ আসনে প্রার্থীতা না থাকলেও নৌকার কর্মীদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ - ajkerparibartan.com
বরিশাল-৪ আসনে প্রার্থীতা না থাকলেও নৌকার কর্মীদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ

3:29 pm , December 24, 2023

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল-৪ আসনে নৌকার প্রার্থী না থাকলেও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের উপর আওয়ামী লীগের হামলার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার রাতে ও রোববার সকালে হিজলা উপজেলার দুই স্থানে ঈগল প্রতীকের কর্মীদের উপর হামলা করা হয়েছে। এছাড়াও নির্বাচনী কার্যালয় ও এক কর্মীর ঘরেও ভাংচুর চালানো হয়েছে বলে স্বতন্ত্র প্রার্থী পঙ্কজ নাথ অভিযোগ করেছেন। শনিবার দিনগত রাতে বরিশাল-৪ আসনের হিজলা উপজেলার টেকেরহাট বাজার ও রোববার ভোরে আলীগঞ্জ বাজার এলাকায় হামলা, ভাংচুর এবং মারধরের ঘটনা ঘটেছে।
বরিশাল-৪ আসন থেকে দুইবার দলীয় মনোনয়নে সংসদ সদস্য হয়েছেন পঙ্কজ নাথ। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে ২০২২ সালের নভেম্বর মাসে তাকে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সকল পদ থেকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়। তাই দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয় পঙ্কজ নাথ। এ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ। দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকায় তার প্রার্থীতা বাতিল করেছে রিটানিং কর্মকর্তা, নির্বাচন কমিশন ও চেম্বার বিচারপতি। এ আদেশের বিরুদ্ধে নৌকার প্রার্থী লিভ টু আপীল করেছে। এর শুনানী আগামী ২ জানুয়ারী।
বরিশাল-৪ আসনের স্বতন্ত্র ঈগল প্রতীকের প্রার্থী পঙ্কজ নাথ বলেন, নৌকার কোন প্রার্থী নেই। তবুও নৌকার শ্লোগান দিয়ে তার কর্মীদের মারধর ও কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। নির্বাচনী কার্যালয় ও কর্মীর বাড়ীতে ভাংচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পঙ্কজ নাথ।
প্রধান নির্বাচন কমিশনের কাছে দেয়া লিখিত অভিযোগে পঙ্কজ নাথ বলেছেন, নির্বাচনী পরিবেশ বিনষ্ট, আচরনবিধি লঙ্ঘন, ভয়ভীতি প্রদর্শন, সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া দাবী জানিয়েছেন।
সেখানে তিনি আরো অভিযোগ করেছেন, এ আসনে নৌকার কোন প্রার্থী নেই। দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকার কারনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ড. শাম্মী আহমেদ প্রার্থীতা হারিয়েছেন। অথচ হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জের বিভিন্ন রাজনৈতিক পদধারী কিছু সংখ্যক দুর্বৃত্ত নির্বাচনী পরিবেশ বিনষ্টের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।
গত ২১ ডিসেম্বর মেহেন্দিগঞ্জের উত্তর ইউপির চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জামাল মোল্লার নেতৃত্বে শাম্মী আহমেদের পক্ষে মিছিল করে ঈগল প্রতীকের সমর্থকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং সাম্প্রদায়িক উস্কানীমুলক বক্তব্য দিয়েছে।
২৩ ডিসেম্বর টেকের বাজার এলাকায় নির্বাচনী কার্যালয়ে কর্মী অহিদ সরদারকে রক্তাক্ত জখম করে। নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করেছে।
রোববার হিজলা উপজেলার আলীগঞ্জ বাজারে ঈগল প্রতীকের প্রচারনায় বাঁধা দেয়। আলীগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদের বাড়িতে ভাংচুর করা হয়।
হামলায় আহত পঙ্কজ নাথে কর্মী অহিদ সরদার জানান, শনিবার রাত ১০ টার দিকে টেকের বাজারে ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ের পাশে চায়ের দোকানে আলমগীর হোসেন নামে একজন পঙ্কজ নাথকে উদ্দেশ্যে করে কুরুচিপূর্ন কথা বলে। তখন প্রতিবাদ তিনি প্রতিবাদ করে নির্বাচনী কার্যালয় যান। কিছু সময় পর ৮/১০ লাঠি সোটা নিয়ে এসে দলীয় কার্যালয়ে হামলা করে। তারা কার্যালয়ের চেয়ার টেবিল ভাংচুর করেছে। এছাড়াও তাকে কুপিয়ে জখম করেছে।
এদিকে রোববার সকালে ধূলখোলা ইউনিয়নের আলীগঞ্জ বাজারে পঙ্কজ নাথে অনুসারীরা লিফলেট বিতরণ করার পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারণার করে। এ সময় ঈগল প্রতীকের কর্মীদের ওপর আকস্মিক লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালানো হয়। সেইসাথে আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদের বাড়িও ভাংচুর করা হয়।
আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদ জানান, সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাজারে আমরা ঈগল প্রতীকের প্রচারণার কাজ শুরু করি। তখন আকস্মিক ৪০-৫০ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। সে সময় মামুন নামে ঈগল প্রতীকের এক কর্মী আহত হয়।
পুলিশের উপস্থিতির কারনে সেই যাত্রায় প্রাণে রক্ষা পায় জানিয়ে রাম প্রসাদ বলেন, কয়েকদিন পূর্বে প্রয়াত বাবার আত্মার শান্তি কামনায় আজ শ্রাদ্ধের আয়োজন করা হয়। কিন্তু তার আগে ৫০-৬০ জন মিলে বাড়িতে দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা করেছে। হামলার সময় বাড়ির নারীদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেছে।
হিজলা থানার ওসি জুবাইর আহমেদ জানান, গত রাতের ঘটনায় মামলা দায়েরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীণ রয়েছে। আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদের বাড়িতে হামলার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
হিজলা প্রেসক্লাবের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, হিজলা ও মেহেন্দিগঞ্জ নিয়ে বরিশাল ৪ আসন। এ আসনে বর্তমানে তিন প্রার্থী রয়েছেন। লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থীর পোষ্টার থাকলেও তেমন জোড়ালো কোন প্রচারনা নেই। নির্বাচনী প্রচারনা দেখা যাচ্ছে না সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের প্রার্থী হৃদয় ইসলাম চুন্নুকে।
হিজলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ড. শাম্মী অনুসারী সুলতান মাহমুদ টিপু সিকদার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নৌকার কোন প্রার্থী নেই। হামলা ও ভাংচুর হয়েছে কিনা জানি না।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT