বরিশাল-৫ (সদর) আসনে দুই নেতার অনুসারীদের আলহামদুলিল্লাহ পোষ্টে সরব বরিশাল-৫ (সদর) আসনে দুই নেতার অনুসারীদের আলহামদুলিল্লাহ পোষ্টে সরব - ajkerparibartan.com
বরিশাল-৫ (সদর) আসনে দুই নেতার অনুসারীদের আলহামদুলিল্লাহ পোষ্টে সরব

3:23 pm , November 22, 2023

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশাল-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কে ? এখনো কাউকে চুড়ান্ত করা হয়নি। নির্ভরযোগ্য কেউ নিশ্চিতও করেনি। তবু এ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের দুই নেতার অনুসারীরা সরব ফেসবুকে। দুই নেতার অনুসারীরা ফেসবুকে “আলহামদুলিল্লাহ” লিখে প্রচারে ব্যস্ত। কিন্তু বরিশাল- ৫ আসনে দলীয় মনোনয়ন পেতে ১০ জন ফরম সংগ্রহ করেছেন। আজ মনোনয়ন বোর্ডের সভায় সিদ্বান্ত নেয়া হবে কে পাচ্ছেন দলীয় মনোনয়ন। দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির তৃতীয় দিনে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানকের নামে ফরম সংগ্রহ করার পর বরিশালে শুরু হয় তোলপাড়। মঙ্গলবার মনোনয়ন ক্রয় ও জমা দেয়ার দিন শেষ হওয়ার পরেই শুরু হয় বর্তমান সংসদ সদস্য ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক শামীম এবং সদ্য সাবেক মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর অনুসারীদের আলহামদুলিল্লাহ বানী প্রচার। সকলেই শুধু আলহাদুলিল্লাহ লিখেছেন। এর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন দুই নেতার অন্য অনুসারীরা। মঙ্গলবার আলহামদুলিল্লাহ লিখে পোষ্ট দিয়েছেন কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক শামীম এমপি অনুসারী জেলা ছাত্রলীগের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি জোবায়ের আব্দুল্লাহ জিন্নাহ। তার সাথে যোগাযোগ করা হলে বলেন, জ্বি শতভাগ নিশ্চিত হয়েছি। আমাদের নেতা (কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক শামীম) বহাল। তার পোষ্টে মন্তব্য করেছেন ৫৯ জন। তাদের সিংহভাগও জবাব দিয়েছেন আলহামদুল্লিাহ লিখে। কেউ দিয়েছেন কর্নেল অব. শামীমের ছবি, কেউ দিয়েছেন তার পক্ষে সিটি মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাতের মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার ছবিও।
বরিশালে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ইমরান শহীদ চপল তো কয়েক ধাপ এগিয়ে। সদ্য সাবেক সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ অনুসারী সাবেক এ ছাত্রনেতা ১০০০% ভাগ কনফার্ম।
তার এ পোষ্টে ১৫ জন কমেন্টস করেছেন। কেউ লিখেছেন ইনশা আল্লাহ। একজন লিখেছেন হোপ এভরি থিংস গোছ ওয়েল। একজন লিখিছেন বরিশাল-৫ আসনে নতুন মুখ আসবে। একজন লিখেছেন চপল ১০০০% কনফার্ম কঠিন মজা নিয়েছে।
সাবেক ছাত্রনেতার মোবাইল ফোন নম্বরে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি।
মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুর রহমান মনির বুধবার তিনবার আলহামদুলিল্লাহ লিখে একটি পোষ্ট দিয়েছেন। মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সদ্য সাবেক মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ অনুসারী এ নেতার পোষ্টে ৫৮ জন কমেন্টস করেছেন। ৮ জন শেয়ার করেছেন। কমেন্টকারীর সিংহভাগ আলহামদুলিল্লাহ লিখেছেন। একজন লিখেছেন বরিশালের মাটি সাদিক ভাই ঘাটি তাকেই মাননীয় নেত্রী নৌকা তার হাতেই দেন।
এভাবে দুই নেতার অনুসারীরা ফেসবুকে নেতার পক্ষে প্রচারনা করছে।
এ বিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা ও বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এ্যাড. লস্কর নুরুল হক বলেন, গত ৮/৯ দিন ধরে ফেসবুকে ঢুকি না। তবে শুনেছি ফেসবুকে দুই নেতার অনুসারীরা আলহামদুলিল্লাহ লিখে ফেসবুকে পোষ্ট দিয়েছে।
এটা ঠিক না মন্তব্য করে এ্যাড. হক বলেন, আওয়ামী লীগ একটি গনতান্ত্রিক দল। বৃহস্পতিবার দলটির মনোনয়ন বোর্ড বৈঠক করবে। বৈঠকের পর কে প্রার্থী হবেন মনোনয়ন বোর্ডের প্রধান প্রার্থীতা ঘোষনা করবেন। সেটা দুইদিন হতে পারে আবার তিনদিন। এর পর আমরা আলহামদুল্লিাহ বলতে পারি। এরআগে কেউ নিশ্চিত করে আলহামদুলিল্লাহ লিখতে পারেন না।
কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন। আমার ধারনা প্রধানমন্ত্রী তাকে দলের মনোনয়ন দেবেন বলে আশা করছি জানিয়ে লস্কর নুরুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি কোন কারনে পরিবর্তন করেন, যাকে প্রার্থী করবেন তার পক্ষে কাজ করবো বলেন লস্কর নুরুল হক।
বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি এ্যাড. ফয়েজুল হক ফয়েজ বলেন, প্রধানমন্ত্রী যাকে দলীয় মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষে কাজ করবো। তবে সংগঠন টিকিয়ে রাখতে বরিশাল-৫ আসনে সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহকে মনোনয়ন দিলে ভালো হয়।
সোমবার শেষ বিকেলে বরিশাল-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানকের পক্ষে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা হয়। এ নিয়ে বরিশালে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়। তখন এ্যাড. নানক জানিয়েছেন, তিনি সংগ্রহ করেননি। কোন শুভাকঙ্খী হয়তো কিনেছেন। বিষয়টি তিনি জানেন না।
এ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানকের পক্ষে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা হলেও তা জমা পড়েনি বলে জানিয়েছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহীন সিকদার। বরিশাল মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শাহীন সিকদার বলেন, তিনি সারাদেশের রাজনীতি করেন। বরিশালের রাজনীতিতে তিনি আসেন না। তার পক্ষে কেউ মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলো। কিন্তু সেই ফরম জমা দেয়া হয়নি।
এ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানক ফরম জমা না দেয়ার খবরে আবারো চাঙ্গা হয়েছে বরিশালের আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে মন্ত্রী ও মেয়র অনুসারীরা। যা সোমবার থেকে ভাটিতে ছিলো।
দুই অনুসারীর বাইরে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে জোরেসোরে উচ্চারিত হয় মাহাবুবউদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম ও সদর উপজেলার চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টুর নাম।
মনোনয়নের দৌড়ে থাকা মাহাবুব উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম বলেন, অন্য প্রার্থী সম্পর্কে আমি কোন মন্তব্য করতে চাই না। তবে আমার ক্ষেত্রে আমি শতভাগ আশাবাদী। এ আসনে নেত্রী তাকে মনোনয়ন দেবেন।
সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, কাকে মনোনয়ন দেবেন সেটা প্রধানমন্ত্রী ভালো জানেন। এ জন্য বৃহস্পতিবার সভা করা হবে। এর আগে এ ধরনের পোষ্ট দেওয়া ঠিক নয়।
রিন্টু আরো বলেন, আমি আশাবাদী। তবে মনোনয়ন না পেলে যাকে দেওয়া হবে তার পক্ষে কাজ করবো। বিগত দিনে কাজ করেছি। ভবিষ্যতে কাজ করবো।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT