টানা বর্ষণে বরিশালের জনজীবন বিপন্ন টানা বর্ষণে বরিশালের জনজীবন বিপন্ন - ajkerparibartan.com
টানা বর্ষণে বরিশালের জনজীবন বিপন্ন

3:33 pm , September 20, 2023

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ আষাঢ়Ñশ্রাবণে বৃষ্টির আকালের পরে আশি^নের বর্ষণে বরিশাল সহ উপকূলীয় এলাকার স্বাভাবিক জনজীবন অনেকটাই বিপন্ন। বরিশাল মহানগরীর অনেক রস্তাঘাটও প্লাবিত হয়েছে। এমনকি বছরজুড়ে স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক কম বৃষ্টিপাতের পরে শ্রাবণের শেষভাগের অমাবশ্যার প্রবল বর্ষণে আগষ্টে অতিরিক্ত ৮০% বৃষ্টি হলেও চলতি মাসের প্রথম ১৫ দিন বরিশালে অনেক কম বৃষ্টিপাত লক্ষ্য করা গেছে । কিন্তু আশি^নের শুরু থেকেই গত ৫ দিনে মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণে জনজীবনে ছন্দ পতনের সাথে গ্রীষ্মকালীন শাক-সবজি সহ শীতকালীন আগাম সবজির বাগান অনেকটাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তবে এখনো বরিশাল কৃষি অঞ্চলের প্রধান দানাদার খাদ্য ফসল আমনের তেমন কোন ক্ষতির আশংকা তৈরী হয়নি বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।  বরিশাল কৃষি অঞ্চলে চলতি খরিপ-২ মৌসুমে ২২ লাখ ৮ হাজার টন আমন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যে প্রায় ৮.৭০ লাখ হেক্টর জমিতে আমন আবাদের লক্ষ্যে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছেন কৃষি যোদ্ধারা। তবে প্রায় ১৫ লাখ টন খাদ্যশস্য উদ্বৃত্ত বরিশাল কৃষি অঞ্চলে এখনো আমন সহ প্রায় সব ফসল আবাদ ও উৎপাদনই প্রকৃতির ওপর নির্ভরশীল।
আবহাওয়া বিভাগের মতে, বঙ্গেরাপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ বিরাজমান রয়েছে। মৌসুমী বায়ু উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র মাঝারি অবস্থায় রয়েছে। বরিশাল সহ উপকূলীয় এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি সহ বজ্রবৃষ্টির কথা বলেছে আবহাওয়া বিভাগ। সেই সাথে কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণের আশংকার কথাও বলা হয়েছে। বুধবার সকাল ৯টার পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে বরিশালের অদূরে সাগরপাড়ের খেপুপাড়ায় ( ৭৪ মিলিমিটার)। এ সময়ে বরিশালে ৪৭, পটুয়াখালীতে ৫৬ ও ভোলাতে ২৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। বুধবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বরিশালে আরো  প্রায় ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।
আশি^নের এ বর্ষণে বুধবারও বরিশাল অঞ্চলের জনজীবন প্রায় বিপর্যস্ত ছিল। গত কয়েকদিন ধরেই বরিশাল সহ সমগ্র দক্ষিণাঞ্চলে দিনরাত দফায় দফায় বর্ষণে স্বাভাবিক জনজীবন থমকে যাচ্ছে। আবহাওয়া বিভাগ থেকে বৃহস্পতিবার সকালের পরবর্তী ৪৮ ঘন্টা পরে দক্ষিণাঞ্চলে বৃষ্টিপাতের প্রবনতা কিছুটা হ্রাস পাবার সম্ভবনার কথা বলা হয়েছে।
গত মাসের প্রথমভাগে শ্রাবণের অমাবশ্যায় একটি লঘু চাপের প্রভাবে অস্বাভাবিক বর্ষণের সাথে ফুসে ওঠা সাগর ও উজানের ঢলের পানিতে বরিশাল কৃষি অঞ্চলের আমন বীজতলা ও রোপা আমন ছাড়াও আধাপাকা আউশের প্রায় পুরোটাই প্লাবিত হয়েছিল। তবে সাগর দ্রুত শান্ত হয়ে উজানের পানি গ্রহণ করায় নদ-নদী স্বাভাবিক ধারায় ফিরলেও প্রবল বর্ষণে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পুরো সপ্তাহ পেরিয়ে যায়। জুলাই মাসে যেখানে বরিশালে বৃষ্টিপাতের পরিমান ছিল স্বাভাবিকের ৫৮% কম, সেখানে আগস্টে তা ৮০% বেশী ছিল। গত মাসে বরিশালে স্বাভাবিক ৪৩৩ মিলিমিটারের স্থলে ৭৭৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া বিভাগ।
চলতি মাসে বরিশাল অঞ্চলে স্বাভাবিক ৩১৬ মিলিমিটারের স্থলে ২৮৫ থেকে ৩৫০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের কথা বলা হলেও মাসের প্রথম ১০ দিনে বৃষ্টিপাতের পরিমান ৮৮ মিলিমিটারের মত। আর ১১ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মাত্র ২৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হলেও ১৬ থেকে ২০ সেপ্টেম্বর সকাল পর্যন্ত প্রায় ১২৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। বুধবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আরো প্রায় ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বরিশালে।
বরিশাল অঞ্চলের কৃষি যোদ্ধারা বিরুপ প্রকৃতির বিরুদ্ধে লড়াই করেই প্রতি বছর আউশ,আমন ও বোরা ধান সহ গ্রীষ্ম ও শীতকালীন সবজি ঘরে তুলছেন। ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াশ’,‘অশণি’ ও ‘সিত্রাং’এর মত ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের বিরুদ্ধে লড়াই করেই বরিশাল কৃষি অঞ্চলের কৃষকরা গত অর্থ বছরের খরিপ-১,খরিপ-২ ও রবি মৌসুমে  প্রায় ৫০ লাখ টন দানাদার খাদ্য ফসল উৎপাদনে সক্ষম হয়েছিলেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT