মরণফাঁদ এখন মুসলিম গোরস্থান সড়ক মরণফাঁদ এখন মুসলিম গোরস্থান সড়ক - ajkerparibartan.com
মরণফাঁদ এখন মুসলিম গোরস্থান সড়ক

4:37 pm , July 19, 2023

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ পাশাপাশি দুটো রিকশা পরষ্পরকে অতিক্রম করতে যেতেই সড়কে জমে থাকা পানিতে রাস্তার মাপ বুঝতে না পেরে উল্টে গেল একটি। রিকশায় থাকা বাবা ও তার দুই ছোট্ট শিশু মেয়ে ছিটকে পড়লো ড্রেনের মধ্যে। মেয়েকে নিয়ে স্কুলে যাচ্ছিলেন বাবা। ভাগ্য ভালো তাদের। বাবার কোলে ছিল ছোট্ট শিশুটি। বড় মেয়েটি রিকশাতেই ঝুলে ছিলো। আশেপাশের বাসিন্দারা ছুটে এসে তুলে নেন তাদের। এ ঘটনায় বাবা হারালেন নিজের মোবাইল। আর শিশুদের বইখাতা সব ভিজে গেল। ঘটনাটি গতকাল সকালের।  বরিশালের ২০ নম্বর ওয়ার্ডের মুসলিম গোরস্থান সড়কের এই চিত্র এখন প্রায় প্রতিদিনের। গত ফেব্রুয়ারী থেকে এখানকার সড়ক সংলগ্ন ড্রেনে পানি জমে এ পরিস্থিতি হয়েছে। ওই সময় স্থানীয় দুজন ঠিকাদার ড্রেনেজ ব্যবস্থা আধুনিকীকরণ কাজের দায়িত্ব নিয়েছেন সিটি করপোরেশন থেকে। কাজও শুরু করেন তারা, কিন্তু সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক
সরেজমিনে বুধবার বিকালে মুসলিম গোরস্থান এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, প্রায় আধা কিলোমিটার সড়কের ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ ধরা হয়েছিল এখানে। একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও অসংখ্য দোকানপাটের সামনে এই ড্রেনেজ ব্যবস্থা আধুনিকীকরণ কাজের চিহ্ন হিসেবে এখনো লোহার রডগুলো বিপদজনক অবস্থায় তাকিয়ে আছে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সময় খোকন সেরনিয়াবাত এর লোকজন এসে বিপদজনক কয়েকটি স্থানে বেড়া তুলে দিলেও ভেকু দিয়ে অতিরিক্ত মাটি কাটার কারণে বিভিন্ন স্থানে সড়ক ভেঙ্গে পরে পুরো সড়কই এখন ঝুকিপূর্ণ হয়ে আছে। এরউপর অসম্পূর্ণ ড্রেনে পানি জমে তা সড়কের উপর উঠে পড়েছে। ফলে সড়কের পরিমাণ বা সীমানা আর বোঝার উপায় নেই। আর এতেই ঘটছে দুর্ঘটনা।
আশেপাশের দোকানদার ও কয়েকজন বাসিন্দা জানান, গত ফেব্রুয়ারিতে এই ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ ধরা হয়। মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ মনোনয়ন না পাওয়ার পরদিন থেকে এই কাজ বন্ধ। প্রায় আধা কিলোমিটার এই ড্রেনেজ কাজের দায়িত্ব নিয়েছেন ২০ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা কামাল এবং সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হক রনি। তারা এখন আর তাদের এই কাজের খোঁজ নেন না। কেনন কাজ শেষে বিল পাওয়া নিয়ে সংশয়ে ভুগছেন বলে জানান তাদের একজন প্রতিনিধি।
নগরীর মুসলিম গোরস্থানে প্রবেশের অন্যতম পথ এটি। এই সড়কে প্রতিদিন শত শত  মানুষের যাতায়াত। সড়কের একপাশে এই ড্রেনেজ ব্যবস্থা কাজে ভেকু দিয়ে মাটি কাটার কারণে গভীর গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। প্রচুর মাটি উঠিয়ে তারা ট্রাক ভরে অন্যত্র নিয়ে গেছে বলে জানান বাসিন্দারা।
এলাকাবাসী কয়েকজন একসাথে অভিযোগ করেন, গত চারদিনে এখানের ড্রেনে জমে থাকা পানির কারণে সাত-আটটি রিকশা ও ইজিবাইক উল্টে পড়েছে।
এ বিষয়ে ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান বিপ্লব বলেন, গোরস্থান রোডের ওই অংশে তারা কিভাবে ড্রেনেজের কাজ কন্টাক্ট পেয়েছেন আমি কিছুই জানি না।  নিয়ম অনুযায়ী কাউন্সিলর অফিসে দরপত্রের একটা কপি জমা দেয়ার কথা। সেরকম কোন কাগজপত্রও কেউ জমা দেননি। বিষয়টি সিটি কর্পোরেশনের সিইও কে জানানো হয়েছে কিন্তু আজ পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে জানান বিপ্লব।
সিটি করপোরেশনের সিইও ফারুক আহম্মেদ বলেন, আসলে সিটি মেয়র পরিবর্তন হওয়ার কারণে বেশকিছু কাজের টেন্ডার নিয়েও ঠিকাদাররা তা সমাপ্ত না করে চলে গেছেন। বরিশালে টেন্ডার নিয়ে কাজ না করে বন্ধ করে রাখা ঠিকাদারের সংখ্যা বেশি বলে জানান সিইও ফারুক আহম্মদ।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT