সাবেক স্বামীর ঘরে উঠে আত্মহত্যার হুমকী তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর সাবেক স্বামীর ঘরে উঠে আত্মহত্যার হুমকী তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর - ajkerparibartan.com
সাবেক স্বামীর ঘরে উঠে আত্মহত্যার হুমকী তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর

4:15 pm , March 30, 2023

চরফ্যাসন প্রতিবেদক ॥ ভোলার চরফ্যাসনের এওয়াজপুর ইউনিয়নে তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী সোনিয়া বেগম সাবেক স্বামী আবুল কাশেমের ঘর দখল করে অবস্থান নিয়েছেন। মারধর করে শ্বাশুড়ী হোসনেয়ারা বেগমকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন। আদালতের গ্রেপ্তারী পরোয়ানা থাকায় আগে থেকেই পালিয়ে বেড়াচ্ছেন স্বামী আবুল কাশেম। এখন ভয়ে বাড়ি যেতে পারছেন না শ্বশুর আনিসুল হক ফরাজিও। ফাঁকা বাড়িতে স্বামী ও শ্বশুড়ের দু’টি ঘর দখলে রেখে আত্মহত্যার হুমকী দিচ্ছেন সোনিয়া বেগম। ফলে আতংকে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন বাড়ির বাসিন্দারা। এওয়াজপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের আনিসুল হক ফরাজির বাড়িতে ২৫ মার্চ থেকে চলছে এমন  কান্ড।
গতকাল বৃহস্পতিবার সরেজমিনে ওই বাড়িতে গিয়ে দেখাগেছে, বাড়ির দু’টি টিনশেড ঘরের একটিতে থাকেন আনিসুল হক ফরাজি এবং অপর ঘরটিতে থাকেন পুত্র আবুল কাশেম। এখন তাদের কেউ বাড়িতে নেই। বাড়ির ঘর দু’টি আবুল কাশেমের সাবেক স্ত্রী সোনিয়া বেগমের দখলে।
আনিসুল হক ফরাজি অভিযোগ করেন, লালমোহন উপজেলার চরলক্ষ্মী গ্রামের মো. আনসার মিয়ার মেয়ে সোনিয়ার সাথে আবুল কাশেমের বিয়ে হয় ৫বছর আগে। তাদের আরিয়ান নামে ৪ বছরের একটি ছেলে সন্তান আছে। সোনিয়া বেগম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টিকটকে আসক্ত হয়ে হয়ে পড়েন।  যা নিয়ে পারিবারিক সম্পর্কে অবনতি ঘটে। যার ধারাবাহিকতায় গত বছরের ডিসেম্বর মাসে আবুল কাশেম স্ত্রী সোনিয়াকে তালাক দেন। তালাকপ্রাপ্ত হয়ে সোনিয়া বেগম স্বামী আবুল কাশেমকে আসামী করে ভোলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী হলে আবুল কাশেম আত্মগোপনে চলে যান।
আবুল কাশেমের স্বজনরা জানান, গত ২৫  মার্চ  শনিবার বিকেলে সোনিয়া বেগম তার ফুফু হনুফা এবং ফুফাতো ভাই মন্নানসহ বাড়িতে হানা দেয়। তারা আবুল কাশেমের তালাবদ্ধ ঘরের তালা ভেঙ্গে দখল নেন। পাশে শ্বশুরের ঘর থেকে শাশুড়ী হোসনেয়ারা বেগমকে পিটিয়ে বের করে ওই ঘরেরও দখল নেন। এসময় শ্বশুর আনিসুল হক ফরাজি বাড়ি ছিলেন না।  পরে ঘরের মালামাল ভাংচুর এবং লুট করেন। ঘটনার পর থেকে আনিসুল হক এবং স্ত্রী হোসনেয়ারা বেগম বাড়ি থেকে পালিয়ে  চরফ্যাসন পৌর সদরের নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন।
হোসনেয়ারা বেগম অভিযোগ করেন, সোনিয়ার বেপরোয়া চলাচল ও জীবনযাপন নিয়ে সংসারে অশান্তির সূত্রপাত হয়েছে। তার পেছনে অনেক প্রভাবশালীদের প্রভাব কাজ করছে। তাদের প্রভাবে সোনিয়া স্বামী আবুল কাশেমকে খাবারে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। পরে আরো একবার অন্ডকোষে আঘাত করে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এসব নিয়ে দীর্ঘ অশান্তির পর আবুল কাশেম তাকে তালাক দেন। কিন্ত এখন প্রভাবশালীদের প্রভাব নিয়ে সে স্ত্রীর দাবী নিয়ে ঘর দখল করে মালামাল লুট করছে।
অভিযোগ প্রসঙ্গে সোনিয়া বেগম বলেন, তালাকের বিষয় তার জানা নেই । তবে সমাজিক ভাবে তার প্রাপ্য বুঝিয়ে দিলে তিনি চলে যেতেন।
শশীভূষণ থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান, বিষয়টি সমোঝতার জন্য উভয় পক্ষকে থানায় আসাতে বলা হয়েছে কিন্ত কেউ আসেনি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT