লালমোহনে চেয়ারম্যানের উপর হামলা ৬ ইউপি সদস্যসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা লালমোহনে চেয়ারম্যানের উপর হামলা ৬ ইউপি সদস্যসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা - ajkerparibartan.com
লালমোহনে চেয়ারম্যানের উপর হামলা ৬ ইউপি সদস্যসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

3:11 pm , March 29, 2023

মো. জসিম জনি, লালমোহন (ভোলা) থেকে ॥ ভোলার লালমোহনে জেলেদের ভিজিএফ চালের কার্ড বিতরণকালে চেয়ারম্যানের উপর হামলা ও মারধরের ঘটনার  ১৩ দিন পর ৬ ইউপি সদস্যসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন চেয়ারম্যান। হামলায় আহত হয়ে ঢাকার হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার ভোলার আদালতে মামলাটি দায়ের করেন ফরাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন মুরাদ। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে মঙ্গলবার ২৯ মার্চ ২৪ ঘন্টার মধ্যে লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে এফআইআর হিসেবে গ্রহণ করে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। একই সাথে মামলা দায়ের সংক্রান্ত প্রতিবেদনও আগামী ২ দিনের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দেন বলে নিশ্চিত করেছেন মামলা পরিচালনাকারী আইজনজীবী  মো. আরিফুর রহমান। বিবাদী ইউপি সদস্যরা হলেন : মোশারেফ হোসেন লাইজু, নুরুল আলম, আনোয়ার জাহিদ পারভেজ, সালাউদ্দিন শামীম, শাকিল মোল্লা ও মহসিন হাওলাদার। নাম উল্লেখ  করে মোট ২৬ জন এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৩০/৪০ জনকে বিবাদী করা হয়েছে এই মামলায়।
জানা গেছে, গত ১৬ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন মুরাদের ওপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়। ওইদিন ইউনিয়ন পরিষদে জেলেদের ১৪৯৭ পরিবারের মধ্যে ৪০ কেজি করে দুই মাসের ১১৯.৭৬০ মেট্রিক টন চালের স্লিপ বিতরণ করতে যান চেয়ারম্যান। চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন মুরাদ বলেন, জেলেদের পুনর্বাসনের চালের স্লিপ বিতরণ করতে গেলে সেখানে উল্লেখিত ইউপি সদস্যরা অর্ধেক অংশ চায়। এসময় চেয়ারম্যানের সাথে কথা কাটাকাটির  এক পর্যায়ে ইউপি সদস্যদের ইন্ধনে তাদের লোকজন চালের স্লিপ ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিলে চেয়ারম্যানের উপর অতর্কিত হামলা চালায় তারা। আহত অবস্থায় তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। চেয়ারম্যান মুরাদের শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চিকিৎসক তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখান থেকে ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। এ ঘটনার পর থেকে ওই ইউনিয়নে জেলেদের ভিজিএফ চাল বিতরণ বন্ধ রয়েছে। মার্চ  মাস শেষ হয়ে আসলেও গত ১ মাস নিষেধাজ্ঞার কারণে জেলেরা মাছ ধরা থেকে বিরত আছে। আরো এক মাস তারা মাছ ধরতে পারবে না। জেলেরা তাদের পুনর্বাসনের জন্য বরাদ্দকৃত চাল এখনো পায়নি। চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন মুরাদ জানান, দু /একদিনের মধ্যে এলাকায় এসে চাল বিতরণ করবেন তিনি।
২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল আলম জানান, চেয়ারম্যানের উপর হামলার ঘটনায় আমরা জড়িত না। তাকে অনিয়মের কারণে এলাকার জনগণ মারছে। তার বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ৬০/৭০ টি অভিযোগ জমা আছে। আমরা এখন সেগুলো প্রকাশ করবো। আরেক ইউপি সদস্য  শাকিল মোল্লা জানান, মোতালেব বেপারী নামে এক জেলের কাছ থেকে চালের স্লিপের বিনিময়ে টাকা দাবি করেন চেয়ারম্যান। ওই ব্যক্তি টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারধর করতে শুরু করেন। ভুক্তভোগী মোতালেব তার স্বজনদের এ খবর জানালে তারা এসে চেয়ারম্যানের ওপর হামলা চালান। এ সময় তাদের সঙ্গে ইউনিয়নের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বঞ্চিত জেলেরাও হামলায় অংশ নেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT