ভোলা নর্থ-২ কুপে গ্যাসের সন্ধানে নতুন দিনের আশায় গ্রামবাসী ভোলা নর্থ-২ কুপে গ্যাসের সন্ধানে নতুন দিনের আশায় গ্রামবাসী - ajkerparibartan.com
ভোলা নর্থ-২ কুপে গ্যাসের সন্ধানে নতুন দিনের আশায় গ্রামবাসী

4:02 pm , January 24, 2023

মো. আফজাল হোসেন, ভোলা  ॥ ভোলা নর্থ-২ কুপসহ ভোলায় ৬২০বিছিএফ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মজুদ আছে বলে ধারনা বাপেক্সের। নতুন করে গ্যাস পাওয়ার খবরে আনন্দীত গ্রামবাসী। একই সাথে বুকভরা আশা নিয়ে নতুন করে বাচাঁর ইচ্ছা পোষন করেছেন অনেকেরই। সোমবার বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানির (বাপেক্স) ভোলা নর্থ-২ নামক কুপে নতুন করে গ্যাসের সন্ধান পাওয়ার খবর দেয়। বিকেলে আগুন প্রজ্জলন করে আনন্দ প্রকাশ করেন সফলতা আসায়। একই সাথে গ্রামবাসী উৎফুল্ল আর আনন্দিত হয়ে উঠে এমন সফলতার কারনে। তেমনি দক্ষিন চরপাতা গ্রামের মো. আজিজুল হক বলেন, আমার ৭২ শতাংশ জমি রয়েছে এই গ্যাস কুপে। আমার খুবই আনন্দ লাগছে গ্যাস পাওয়ার খবরে। তবে আমরা যদি গ্যাস ব্যবহারের জন্য পাই এবং আমাদের সন্তানরা চাকুরী পায় শিল্প কারখানায় তখন আনন্দটা আরে বেশি হবে। একই কথা বলেন মো. কিবরিয়া ও মো. সালাউদ্দিন। তাদের বক্তব্য এ গ্যাসকে কেন্দ্র করে এলাকায় যদি শিল্প কারখানা গড়ে উঠে সেটাই হবে সফলতা আনন্দ। একই সাথে ভোলার নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধসহ বেকার সমস্যার সমাধান হবে এমনটাই দাবী গ্রামের হাজারো মানুষের।  গত বছর ২০২২ সালের ৫ ডিসেম্বর ভোলা নর্থ-২-এর কূপ খনন শুরু হয়। ৩ হাজার ৪২৮ মিটার গভীরতায় সফলভাবে কূপ খনন শেষ হয় ১৭ জানুয়ারি। যে কারনে সোমবার নতুন এই কূপে গ্যাস পাওয়া যায়।  বাপেক্সের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এ কূপ থেকে প্রতিদিন উত্তোলনযোগ্য গ্যাসের পরিমাণ হবে ২০ থেকে ২২ মিলিয়ন ঘনফুট হবে বলে আশা তাদের।  মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ চরপাতা গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, নতুন এই কূপের প্রজ্বলিত আগুনের শিখা দেখতে মানুষ ভিড় করছেন। তাঁদের সবার চোখেমুখে আনন্দ উচ্ছ্বাস। স্থানীয় লোকজন মনে করছেন, নতুন এই গ্যাসকূপের মাধ্যমে তাঁদের জীবনযাত্রার মান পাল্টে যাবে। গ্যাসকূপকে কেন্দ্র করে ওই এলাকায় শিল্প ও কলকারখানা গড়ে উঠলে স্থানীয় লোকজনের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ঘটবে। প্রায় ৩ হাজার ৪০০ মিটার পর্যন্ত খনন করার পর গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গেছে। পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিন চরপাতা গ্রামের মো: কামাল। একজন ব্যবসায়ী। তার এলাকায় গ্যাস পাওয়ার খবরে ভোলা শহর থেকে দ্রুত এলাকায় চলে আসে এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আগুন প্রজ্জরন দেকেন। তিনি এলাকার উন্নয়ন হবে এই আশায় বুক বেধে আছেন। ভোলায় এখন পর্যন্ত আটটি কূপে গ্যাস পাওয়া গেছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া গ্রামে প্রথমবারের মতো শাহবাজপুর গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার হয়। এরপর বাপেক্স সেখানে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি কূপ খনন করে। পরবর্তী সময়ে ২০১৮ সালের দিকে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় গ্যাসের সন্ধানে ভূতাত্ত্বিক জরিপ চালানো হয়। তখন তিনটি স্থানে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া যায় বলে দাবী বাপেক্ষ কর্মকর্তাদের। এদিকে ভোলা নর্থ-২ কূপটি খননের জন্য বাপেক্স বাৎসরিক নগদ লগ্নির ভিত্তিতে চার থেকে পাঁচ মাস আগে ছয় একর জমি অধিগ্রহণ করে। গত ৫ ডিসেম্বর রাশিয়ার একটি প্রতিষ্ঠান আনুষ্ঠানিকভাবে খননের কাজ শুরু করে। প্রায় ৩ হাজার ৪০০ মিটার পর্যন্ত খনন করার পর সেখানে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া যায়। আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি কূপটি বাপেক্সের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের ১০ জেলায় তেল গ্যাস অনুসন্ধান করবে বাপেক্স। এ জরিপ কাজে ব্যয় হবে ২৬৬ কোটি টাকা। প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে আগামী অর্থবছরের অক্টোবর থেকে সিসমেক সার্ভের (ভূতাত্ত্বিক জরিপ) কাজ শুরু হবে। এতে জ্বালানি খাতে নতুন করে সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হবে।
বাপেক্সের মহাব্যবস্থাপক মো: আলমগীর হোসেন বলেন, আমরা এখন আরো অনুন্ধ্যান কাজে গুরুত্ব দিব। যত বেশি অনুসন্ধান হবে তত বেশিই আমাদের জন্য ভালো হয়।  ভোলায় ৬২০ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মজুদ আছে বলে ধারনা এই কর্মকর্তার। তিনি আরো বলেন, দ্রুত অনসন্ধানের মাধ্যমে গ্যাসের প্রাপ্তি নিশ্চিত  করতে না পারলে আমাদের যে ক্রাইসিস তা সমন্বয় করা কঠিন হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT