শুধু ইটভাটা নয় ওয়াজ মাহফিলের চাঁদা নিতেও বাড়ছে শিশুশ্রম  শুধু ইটভাটা নয় ওয়াজ মাহফিলের চাঁদা নিতেও বাড়ছে শিশুশ্রম  - ajkerparibartan.com
শুধু ইটভাটা নয় ওয়াজ মাহফিলের চাঁদা নিতেও বাড়ছে শিশুশ্রম 

3:25 pm , January 11, 2023

আরিফ আহমেদ, বিশেষ প্রতিবেদক ॥ শুধু ঝুঁকিপূর্ণ ইটভাঙ্গা আর গার্মেন্টসেই নয়, মসজিদ মাদ্রাসা কিংবা ওয়াজ মাহফিলের চাঁদা তুলতেও বাড়ছে শিশুশ্রম। বাংলাদেশের প্রায় ২০ লাখ শিশু ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োজিত রয়েছে। পরিসংখ্যানে অবশ্য ওয়াজ মাহফিলের জন্য কাজ করা শিশুদের কোনো হিসাব নেই। তবে আনুমানিক প্রায় ২ লাখ শিশু মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানার হয়ে এক শহর থেকে আরেক শহর, এক জেলা থেকে ভিন্ন জেলা কিংবা উপজেলায় ঘুরে বেড়াচ্ছে দান-খয়রাত চাওয়ার জন্য। এতেও কি ঝুঁকি কম? এসব শিশুদের যাতায়াত,  থাকা খাওয়া বিবেচনা করলে ঝুঁকি মোটেও কম নয় বলে মন্তব্য করেছেন বরিশালের বিশিষ্ট আইনজীবী ও আওয়ামী লীগ নেতা তালুকদার মোঃ ইউনুস। তিনি বলেন, শিশুশ্রম সেটা যে ধরণেরই হোক তা অবশ্যই অপরাধ। তিনি বলেন, শিশুর বিকাশে অন্যতম অন্তরায় শিশুশ্রম। পৃথিবীর প্রায় ১৫২ মিলিয়ন শিশু ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিযুক্ত। বাংলাদেশে প্রায় ১৮/২০ লাখ শিশু এই শিশুশ্রমে নিযুক্ত। এদের বেশির ভাগই রয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ কাজে।
সম্প্রতি মসজিদ,  মাদ্রাসা ও এতিমখানায় এধরণের শিশুশ্রম দেখা যাচ্ছে হাটবাজার, বাসাবাড়ি ও সড়কে অহরহ। গত ১০ জানুয়ারী বরিশালের আগৈলঝাড়ার পথে গৈলা গ্রামে দেখা গেছে এমনই চিত্র। চাঁদশী মাদ্রাসা ও এতিমখানার ওয়াজ মাহফিলের নিমন্ত্রণ পত্র নিয়ে দুয়ারে দুয়ারে সাহায্যের জন্য ঘুরছে ছোট ছোট এতিম শিশুরা। ওদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ১৫ জানুয়ারী গৌরনদী পৌরসভার মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান এই ওয়াজ মাহফিলের সভাপতি। ওরা চাঁদশী মাদ্রাসা থেকে আটজন ১৩০ টাকা গাড়ি ভাড়া দিয়ে এই গ্রামে এসে সকাল থেকে ওয়াজ মাহফিলের জন্য অর্থ সাহায্য চেয়ে ও লিফলেট বিতরণ করে ঘুরছে। দুপুরে আটজনেই রুটি কলা খেয়ে কাটিয়েছে। খাবার জন্য মাদ্রাসা থেকেই বাজেট দেয়া আছে বলে জানায় শিশুরা। ওদের মধ্যে বড় দুজনের বয়স ১৪/১৬ এর বেশি নয়। ওরা পবিত্র কোরআনের হাফেজ। অর্থাৎ সম্পূর্ণ কোরআন ওদের মুখস্থ (সুবহানআল্লাহ)। কিন্তু ওরা কেউই সূরা মাউন বা আছর এর বাংলা ব্যাখ্যা জানেনা বলে স্বীকার করলো। অথচ পবিত্র কোরআন তখনই মানবজাতির উপকারে আসবে যখন এর হেফাজতকারীগণ সঠিক অর্থ উদ্ধার ও বিশ্লেষণ করতে পারবেন।
তাইতো আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কোরআনের ভিতরে অসংখ্যবার নিজেই প্রশ্ন করেছেন – তারা কি কুরআন সম্পর্কে চিন্তাভাবনা করে না? (সুরা নিসা : আয়াত ৮২)
আমি এ কুরআনকে উপদেশ লাভের সহজ উৎস বানিয়ে দিয়েছি। তো উপদেশ গ্রহণকারী কেউ আছে কি? (সুরা কামার: আয়াত ১৭)
এই শিশুদের খয়রাত করা উপার্জনে ভর করে যখন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কোরআনের তাফসিরকারী ও ইসলামি বক্তারা দূর দূরান্ত থেকে বরিশালের গৌরনদী আগৈলঝারার চাঁদশী মাদ্রাসা মাঠে এসে বক্তব্য রাখবেন ও সম্মানী গ্রহণ করবেন তখন কি তাদের এতোটুকুও লজ্জা হবেনা?
এটা যে শুধু চাদশী এলাকায়ই ঘটছে তা কিন্তু নয়। সেই রংপুর থেকে এভাবে এতিমখানা ও মাদ্রাসার জন্য সাহায্য চাইতে বরিশালে এসে বিভিন্ন দোকানে- সড়কে ও বাড়িতে ঘুরতে দেখা গেছে শিশুদের। সাথে দুজন বয়স্ক মৌলভীও ছিলেন পথপ্রদর্শক।
শিশুশ্রম নিষিদ্ধ হলে এটা কি কোনো অপরাধ নয়?
প্রখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ ও এনটিভির আপনার জিজ্ঞাসা ইসলামি অনুষ্ঠানের নিয়মিত আলোচক মাওলানা সাইফুল ইসলাম বলেন, মুসলিম শরীফের এক হাদিসে হযরত মোহাম্মদ (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা তোমাদের সন্তানদের মহৎ করে গড়ে তোলো এবং তাদের উত্তম আদব তথা শিষ্টাচার শিক্ষা দাও। অপর এক হাদিসে রাসুলুল্লাহ  (সা.) বলেন, ‘সন্তানকে আদব তথা শিষ্টাচার শিক্ষা দেয়া সম্পদ দান করা অপেক্ষা উত্তম। তিনি শিশুদের জান্নাতের প্রজাপতি বলে উল্লেখ করেছেন।
মাওলানা সাইফুল ইসলাম আরো বলেন, হাদিসে শিশুকে ফুল ও পাখির সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে, যেন মানুষ কোমলমতি শিশুদের প্রতি স্নেহপরায়ণ ও সযতœ হয়। তার পেলব দেহ ও সংবেদনশীল মনের প্রতি সচেতন মনোযোগ দেয়। পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে, ‘আল্লাহ কারো ওপর এমন কোনো কষ্টদায়ক দায়িত্ব অর্পণ করেন না, যা তার সাধ্যাতীত।’  (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৮৬)
হজরত আনাস (রা.) তাঁর শৈশবের দীর্ঘ দশ বছর রাসুল (সা.)-এর সেবায় কাটিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য হলো, ‘আমার কোনো কাজে আপত্তি করে তিনি কখনো বলেননি, এমন কেন করলে বা এমন কেন করলে না।’ (মুসলিম, হাদিস : ২৩০৯)

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT