কম্বল চাইনা, গরম পোশাক দিন কম্বল চাইনা, গরম পোশাক দিন - ajkerparibartan.com
কম্বল চাইনা, গরম পোশাক দিন

3:09 pm , January 8, 2023

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ ‘কম্বল চাইনা, আমাদের গরম পোশাক দিন’ বরিশালের খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষের এই একটাই মিনতি এখন। রবিবার যশোরে যখন সর্বনি¤œ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ঠিক তখন কুয়াশাচ্ছন্ন সকালে আগুন জ্বালিয়ে রোদ্দুরের অপেক্ষায় বরিশাল নগরীর ঈদগাহ, কেডিসি, পলাশপুর ও মোহাম্মদপুরসহ ২২টি বস্তিতে বসবাসরত প্রায় ৫০ হাজার মানুষ। তাদের কেউ কেউ সরকারি ও বিভিন্ন সাহায্য সংস্থার দেয়া কম্বল পেয়েছেন। অনেকে কম্বল জড়িয়ে ঘরের দুয়ারে বসে বিড়বিড় করে সূর্যের জন্য প্রার্থনাও করছেন। বিশেষ করে নগরীর নতুন বাজার পুল, চৌমাথা ও নথুল্লাবাদ পুলের গোড়ায় নিজেকে বিক্রি করতে আসা শ্রমিকদের অবস্থা খুবই দুর্বিষহ। অনেকেই ঠা-া জ্বরে আক্রান্ত হয়ে তীব্র শীত উপেক্ষা করে এসেছেন মানুষ বেচাকেনার হাটে। তাদের একজন বয়োবৃদ্ধ মতি মিয়া বললেন, ‘বাবারে সরকার কম্বল দিছে। রাতে কম্বল খুব উপকারও করে। কিন্তু দিনে কাজে না বের হলে খামু কি। পোলা মাইয়া দুইডারে স্কুলে যাইতে হয়। গরম কাপড় দিতে পারি নাই বলে খ্যাতা কম্বলের ভিতর বইয়া রইছে, স্কুলে য়ায়না কেউ’। শ্রমবিক্রির এই হাটে প্রতিদিন গড়ে ৩০/৫০ জন মানুষের ওঠাবসা। এই শীতে এসেছেন মাত্র সাত/আট জন।
একই অভিযোগ কেডিসির শ্রমজীবী মায়েদের। তাদের চাহিদা গরম পোশাকের। নগরীতে এখন পর্যন্ত স্থানীয় সংসদ সদস্য পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুকের পক্ষে যুবলীগ নেতা মাহমুদুল হক খান মামুন বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিমখানার ছেলেমেয়েদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছেন। নগরীর ৩ নং ওয়ার্ডের হাফিজিয়া এতিমখানা ও  লিল্লাহবোর্ডিং মাদ্রাসার ছাত্ররা বললেন, ‘আমাদের গরম পোশাক নেই। নামাজ আদায়ের সুবিধা হতো যদি জ্যাকেট বা সোয়েটার পেতাম’।
নগরীর বিভিন্ন এলাকায় শীতবস্ত্র হিসেবে কম্বল বিতরণ করেছেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু। তিনি বলেন, কম্বল বিতরণ করতে গিয়ে অনেকেই আমার কাছে গরম পোশাক চেয়েছে। বিশেষ করে কলোনীর ছেলেমেয়েদের জন্য গরম পোশাক সোয়েটার বা জ্যাকেট আসলেই জরুরী। আমি তাই ওদের জন্য শ’তিনেক সোয়েটার আনার ব্যবস্থা করেছি।
বরিশালের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সোহেল মারুফ বলেন, বিষয়টি আমরাও লক্ষ্য করেছি কিন্তু সরকার থেকে এজাতীয় কোনো উদ্যোগ নেই। অনেক সময় সরকারিভাবে গরম কাপড় কেনার জন্য টাকা দেয়া হতো। চলতি বছর সেটাও বন্ধ আছে। এখন আমরা জেলা প্রশাসক স্যারকে বিষয়টি বলবো। তিনি যদি নিজ উদ্যোগে কোনো ব্যবস্থা করতে পারেন।
জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমি এজন্য  আপনাদের সংবাদ মাধ্যমের সহযোগিতা চাচ্ছি। আমার বরাত দিয়ে আপনারা সমাজের সামাজিক সংগঠন ও নেতৃবৃন্দের কাছে এই অনুরোধ পৌঁছে দিন। সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যেন শীতবস্ত্র হিসেবে শুধু কম্বল নয়, সোয়েটার বা জ্যাকেট জাতীয় গরম কাপড়ও বিতরণ করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT