পদকে পিছিয়ে পড়ছে বরিশাল পুলিশ পদকে পিছিয়ে পড়ছে বরিশাল পুলিশ - ajkerparibartan.com
পদকে পিছিয়ে পড়ছে বরিশাল পুলিশ

2:54 pm , January 3, 2023

হেলাল উদ্দিন ॥ বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ সম্মাননা পদক প্রাপ্তিতে পিছিয়ে পড়ছে বরিশাল বিভাগ। পরিসংখ্যান বলছে কর্মক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকায় অবদান রাখায় পাওয়া এই পুরস্কার প্রতি বছরই কমছে বরিশালে। সর্ব শেষ ২০২২ সালে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ পহেলা জানুয়ারী প্রদানকৃত এই পদক পেয়েছেন বরিশাল বিভাগের মাত্র ১ জন পুলিশ সদস্য। ভোলার মনপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদ আহমেদ পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম)। এর আগে ২০২২ সালে বরিশাল বিভাগ থেকে ২ জন, ২১ সালে ২ জন বিপিএম ও পিপিএম পদ প্রাপ্ত হন। বিভাগে সর্বোচ্চ পদক প্রাপ্তি ঘটে ২০১৯ সালে। ওই বছর বিভাগে ১২ জন পুলিশ কর্মকর্তা এই পদক পান। তবে পদক কম প্রাপ্তির বিষয়টিকে নেতিবাচক বা পুলিশের দায়িত্বহীনতা বা ব্যর্থতা হিসাবে দেখছেন না বরিশাল পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। তারা বলছেন পদক প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অনেক বিষয় বিবেচ্য থাকে। তাই সব সময় ভাল কাজ করেও পদক পাওয়া যায় না। আবার পদক না পাওয়ার বিষয়টির ইতিবাচক দিকও রয়েছে। কারন আলোচিত, লোমহর্ষক ঘটনার ঘটলে সেই কাজ করতে গিয়ে কোন পুলিশ সদস্য স্বীকৃতি স্বরুপ পদক পেয়ে থাকে। বরিশালে এ ধরনের কোন আলোচিত, লোমহর্ষক বা আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেনি বলেই পদকের সংখ্যা কমেছে। তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন শুধু আইন শৃঙ্খলার অবনতি হলে সেই ক্ষেত্রে সফলতা দেখিয়েই পদক পাওয়া যায় বিষয়টি তেমন না। কারন এই পদক প্রদানের ক্ষেত্রে আরো অনেক বিষয় বিবেচনা করা হয়। যার মধ্যে অসীম সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ কাজ ও গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা এবং শৃঙ্খলামূলক আচরনও রয়েছে। পরিসংখ্যান বলছে ২০১৮ সালে কর্মক্ষেত্রে বিশেষ  অবদানের জন্য ২০১৯ সালে পুলিশ বাহিনীর ৩৪৯ জন সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক- বিপিএম, বিপিএম-সেবা, রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক- পিপিএম ও পিপিএম-সেবা পদক প্রদান করা হয়। এর মধ্যে বরিশাল বিভাগের ১৫ জন কর্মকর্তা ছিলেন। যাদের মধ্যে ৪ জন বিপিএম এবং ১১ জন পিপিএম পদক পান।
বিভাগের পদকপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে বিপিএম পদক পেয়েছিলেন বিপিএম পেয়েছিলেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোশারফ হোসেন (অতিরিক্ত আইজিপি), ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম, বরিশাল র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক আতিকা ইসলাম এবং বরিশাল পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম। পিপিএম পদক পেয়েছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বরিশাল মুহাম্মাদ আব্দুর রকিব (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত), ঝালকাঠি পুলিশ সুপার জোবায়েদুর রহমান, ভোলা পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেন, বরগুনা পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন, পিরোজপুর পুলিশ সুপার মো. সালাম কবির, পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মো. মইনুল হাসান, পিরোজপুর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কাজী শাহনেওয়াজ এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ঝালকাঠি এসএম মাহামুদ হাসান। বরিশাল মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এইচ এম আব্দুর রহমান মুকুল, বরিশাল অঞ্চলের হিজলা নৌ পুলিশ ইউনিটের পরিদর্শক মো. বেলাল হোসেন, স্পেশাল ব্রাঞ্চের এসআই মো. মনিরুজ্জামান।
২০২০ সালে বরিশাল বিভাগে মাত্র ২ জন পুলিশ কর্মকর্তা (পিপিএম সেবা) পদক পেয়েছিলেন। এরা হলেন পিরোজপুরের তৎকালীন এসপি হায়াতুল ইসলাম খান এবং বরিশাল মেট্টোপলিটনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মোঃ রাসেল। একই ধারা অব্যাহত থাকে ২০২১ সালে। বিভাগের মধ্যে মাত্র ২ জন মনোনীত হন এই পদকের জন্য। বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশের পরিদর্শক হোসনেয়ারা খানম বিপিএম এবং বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ শাহজাহান হোসেন পিপিএম পদকে ভুষিত হন। সম্প্রতি প্রদান করা ২০২২ সালের পুলিশ পদকে আরো অবনতি ঘটেছে বরিশালের। মাত্র একজন সদস্য পেয়েছেন এই পেশার সর্বোচ্চ সম্মানিত এই পদক। ভোলা জেলার মনপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইদ আহমেদ পেয়েছেন পিপিএম পদক।
বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি এস এম আক্তারুজ্জামান বলেন পদক পাওয়ার বিষয়টি বিভিন্ন ভাবে সংঙ্গায়িত। যেমন কোন স্থানে আলোচিত,লোমহর্ষক ঘটনা ঘটে। তখন সে ঘটনা নেপথ্য কারন উদঘটন এবং দোষীদের সনাক্ত করে বিচারের মুখোমুখি করতে পুলিশ কাজ করে। তখন সেই কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ পদক দেওয়া হতে পারে। সুতরাং এই দিক থেকে বলতে পারি বরিশালে তেমন কোন আলোচিত ঘটনা ঘটেনি বা আইন শৃঙ্খলার তেমন কোন অবনতি হয় নি। স্বাভাবিক ভাবেই পদক প্রাপ্তি কম হবে। তবে তিনি বলেন পদক প্রাপ্তি এই পেশার সর্বোচ্চ সম্মাননা হলেও আমরা পদকের জন্য কাজ করি না। দেশ ও দেশের মানুষকে ভাল বেসে কাজ করাটাই আমাদের মূল লক্ষ ও উদ্দেশ্য। বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন পদক কম পাওয়ার অনেক কারন হয়েছে। যেমন অনেকে আবেদন করেনি,আবার অনেকে আগে পেয়ে গেছে। আরো অনেক কারন রয়েছে। তবে পদক বেশী পেলে অবশ্যই ভাল লাগে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT