রাজাপুরের হতদরিদ্রদের কর্মসৃজন কর্মসূচির কাজে অনিয়ম রাজাপুরের হতদরিদ্রদের কর্মসৃজন কর্মসূচির কাজে অনিয়ম - ajkerparibartan.com
রাজাপুরের হতদরিদ্রদের কর্মসৃজন কর্মসূচির কাজে অনিয়ম

3:10 pm , December 27, 2022

বুলবুল আহমেদ, রাজাপুর ॥ রাজাপুরে রাস্তা সংস্কার কাজে নেই অতি হতদরিদ্ররা। রাজাপুরের বড়ইয়া ইউনিয়নের ৫ নং চল্লিশকাহনিয়ায় অতি দরিদ্রদের জন্য ৪০ দিনের কর্মসৃজন কর্মসূচি কাজে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। দরিদ্রদের দিয়ে এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করার কথা থাকলেও কিছু কাজ করা হচ্ছে ঠিকাদারের মাধ্যমে। দরিদ্র শ্রমিকের বদলে ঠিকাদারের মাধ্যমে রাস্তা সংস্কার করার কারনে সরকারের উদ্দ্যেশ্য ভেস্তে যেতে বসেছে। দরিদ্র শ্রমিকরা হচ্ছেন উপেক্ষিত, নেই শতকরা তেত্রিশভাগ নারী শ্রমিকও। নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে সড়ক সংস্কারের নামে নামমাত্র কাজ করে বাকি টাকা লুটপাট করার পাঁয়তারা চলছে বলে অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। প্রকল্পের সাথে জড়িত লোকজন নিজেদের লোকদের নামে একাউন্ট করে টাকা উত্তোলনের মাধ্যমে লুটপাটের আয়োজন করেছে। অথচ কাজটি ঠিকাদারের মাধ্যমে করানো হচ্ছে। কার্যাদেশ অনুযায়ী প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে সেখানে তদারকি কর্মকর্তারা দেখভাল করছেন না বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের।অপরদিকে অভিযোগ প্রকল্পের সংশ্লিষ্টরা ক্ষমতাশীন হওয়ায় তদারকি কর্মকর্তাদের তাঁরা পাত্তা দেয় না। এ কারণেই সম্ভবত প্রকল্পের কাজ যথাযথভাবে দেখভাল করতে পারছেন না তদারকি কর্মকর্তারা। সরকার কর্মহীন মৌসুমে স্বল্পমেয়াদী কর্মসংস্থান তৈরী এবং স্বল্পমেয়াদী কর্মসংস্থানের মাধ্যমে কর্মক্ষম দুস্থ পরিবারগুলোর সুরক্ষা দেয়ার জন্য অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি(ইজিপিপি) প্রকল্প গ্রহন করে। প্রকল্পে অদক্ষ শ্রমিক যারা কাজ করতে আগ্রহী কিন্তু কোন কাজ পায় না। অদক্ষ শ্রমিক বলতে যারা দিন মজুর, রাজমিস্ত্রি, কাঠমিস্ত্রি, ইলেকট্রিক মিস্ত্রি, গ্যাস মিস্ত্রি এবং কারখানা শ্রমিক অথবা যার অন্য কোন কাজের সুযোগ নেই। মহিলা এবং পুরুষ নির্বিশেষে একটি পরিবার থেকে মাত্র ১ জন এ কাজের জন্য নির্বাচিত হবেন। দরিদ্র জনগোষ্ঠির অন্তর্ভূক্ত ব্যক্তি যার কাজের সামর্থ্য আছে এবং ভুমিহীন হওয়ার নিয়ম থাকলেও সে নিয়ম না মেনে ঠিকাদারের মাধ্যমে নামেমাত্র ৪ লাখ ১৬ হাজার টাকায় সড়ক সংস্কারের কাজ চলছে। এ ছাড়া প্রকল্প নিয়ে প্রকল্প এলাকায় সভায় মহিলাসহ সর্বস্তরের জনগণের উপস্থিতির লক্ষ্যে ব্যাপক ভিত্তিক প্রচারনা চালানোর নিয়ম থাকলেও সে নিয়ম মানা হয়নি। যাদের বিপরীতে জব কার্ড প্রদান করা হয়েছে তাদের দেখা মেলেনি। প্রকল্প সভাপতি মাকসুদা বেগম জোসনা অনিয়মের ব্যাপারে বলেন, সব নিয়ম মানা সম্ভব না। ট্যাগ অফিসারের নামও তিনি জানেন না। জানেন না ইজিপিপির উদ্দেশ্য। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন এটা দলীয় কাজ আমাদের খরচের জন্য এ প্রকল্প দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে রাজাপুর উপজেলা বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বলেন, আমি খোজ খবর নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবো। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি জেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মোঃ আশ্রাফুল হক জানান, অনিয়ম হলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT