ঝালকাঠির বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র হস্তান্তরের আগেই ট্রান্সফরমার বিকল ঝালকাঠির বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র হস্তান্তরের আগেই ট্রান্সফরমার বিকল - ajkerparibartan.com
ঝালকাঠির বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র হস্তান্তরের আগেই ট্রান্সফরমার বিকল

3:05 pm , November 13, 2022

রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু, ঝালকাঠি ॥ বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার সম্প্রসারণ ও আপগ্রেডেশন প্রকল্পের ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে নব নির্মিত ঝালকাঠির ৩৩/১১ মেগাওয়াট উপকেন্দ্রটি হস্তান্তরের আগেই বিকল হয়ে পড়েছে একটি ট্রান্সফরমার। একই প্রকল্পের আওতায় বরিশালের উপকেন্দ্রটি চালু হয়েছে অনেক আগেই। এ অবস্থায় উপকেন্দ্রটির সঠিক সময়ে হস্তান্তরের বিষিয়টি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ভারতীয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এলএনটি কোম্পানী এ উপকেন্দ্রটি নির্মাণ করে। শুরু থেকেই এটি নির্মাণে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও ত্রুটিপূর্ন যন্ত্রপাতি ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। তাই ঝালকাঠিতে বর্তমান সরকারের নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের পরিকল্পনার বিষয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।
বিদ্যুৎ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ঝালকাঠির পুরাতন উপকেন্দ্রটির বিদ্যুৎ সরবরাহের পর্যাপ্ত ক্ষমতা আছে। এ উপকেন্দ্রের বিদ্যুৎ সরবরাহের ক্ষমতার ৩ ভাগের ১ ভাগ চাহিদা আছে ঝালকাঠিতে। এটির আওতায় প্রায় ২৫ হাজার গ্রাহক রয়েছে। এরপরেও নতুন উপকেন্দ্রটি হস্তান্তরের আগেই অনিয়ম ও ত্রুটির কারণে ট্রান্সফরমার বিকল হওয়ায় এটি নির্মানের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। গত জুলাই মাসে উপকেন্দ্রটি হস্তান্তর করার কথা থাকলেও অজ্ঞাত কারণে তা হয়নি। এরপর আগামী ডিসেম্বর নাগাদ হাস্তান্তরের কথা থাকলেও তা পুনরায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।
প্রকল্প পরিচালনা কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানাযায়, ২০/২৬.৬৬ মেগাওয়াট ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন এই উপকেন্দ্রটির নির্মান কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালে। ২০২২ সালে এটি হস্তান্তরের কথা রয়েছে। চলতি বছরের ৩ আগষ্ট এটি পরীক্ষামূলক কমিশনিং চালু করার সময় ট্রান্সফরমারটি বিকল হয়ে পড়ে। এরপর আর এটি চালু করা সম্ভব হয়নি। এ অবস্থায় বিকল্প আরেকটি ট্রান্সফরমার না আনায় উপকেন্দ্রটি অচল অবস্থায় পড়ে আছে বলে জানা যায়।
ওজোপাডিকোর নির্বাহী প্রকৌশলী আবু দারদা জানান, উপকেন্দ্রটির কাজ শেষ। শুধু মাত্র আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর প্রক্রিয়া বাকি। কিন্তু গত ৩ আগষ্ট এটির কমিশিনিং চালু করার সময় একটি ট্রান্সফরমারে ত্রুটি দেখা দেয়। এরপর আর সেটি চালু করা সম্ভব হয়নি। ঠিকাদারকে খবর দেয়া হয়েছে। তারা এটি সরিয়ে আরেকটি নতুন ট্রান্সফরমার এনে চালু করবে। এ অবস্থায় উপকেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা সম্ভব কিনা জানতে চাইলে নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন,যেহেতু কমিশিনিং চালু করা হয়েছে। যদিও বাইরে বিদ্যুৎ সরবরাহ হচ্ছে না। তারপরেও ঝালকাঠি ওজোপাডিকো কর্তৃপক্ষ এখান থেকে পাওয়ার নিতে চাইলে নিতে পারেন। তিনি আরো জানান, ভবিষ্যতে বাড়তি লোডের প্রয়োজন হলে সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী এখান থেকে লোড নিয়ে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। তবে কবে নাগাদ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এ ট্রান্সফরমার সরবরাহ করবে তার কোন নিশ্চয়তা দিতে পারেনি প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা এই নির্বাহী প্রকৌশলী। এদিকে ওজোপাডিকো ঝালকাঠীর নির্বাহী প্রকৌশলী আঃ রহিম জাানান, নতুন উপকেন্দ্রটির কাজ শেষ হলেও এটি হস্তান্তরের কোন চিঠি পাওয়া যায়নি। পেলে এর মাধ্যমে বড় ফিডার গুলো ছোট করে তাতে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে ঝালকাঠিতে দীর্ঘ দিনের সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT