ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটে আগামী ১৬ নভেম্বর উদ্বোধন হচ্ছে এমভি সুন্দরবন-১৬ ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটে আগামী ১৬ নভেম্বর উদ্বোধন হচ্ছে এমভি সুন্দরবন-১৬ - ajkerparibartan.com
ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটে আগামী ১৬ নভেম্বর উদ্বোধন হচ্ছে এমভি সুন্দরবন-১৬

2:48 pm , November 9, 2022

হেলাল উদ্দিন ॥ পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর সবচেয়ে বড় ধাক্কা লাগে ঢাকা-বরিশাল রুটের যাত্রীবাহী নৌযান খাতে। সেই সংকট আরও বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি। যদিও সরকারের সঙ্গে দর কষাকষি করে লঞ্চের ভাড়া ৩০ শতাংশ বাড়িয়েছেন মালিকরা। একদিকে বাড়তি লঞ্চ ভাড়া অন্য দিকে পদ্মা সেতুর উন্মাদনা সব মিলিয়ে যাত্রী সংকটে পড়েছিলো এই রুটের লঞ্চ। কিন্তু সময় গড়াতে গড়াতে মানুষের পদ্মা সেতু দেখার স্বাদ মিটে যাওয়ায় আবার এই রুটে যাত্রীর সংখ্যা স্বাভাবিক হচ্ছে। এছাড়া সড়ক পথে নিত্য নতুন দূর্ঘটনা এবং সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে লঞ্চে ভাড়া কম রাখায় প্রতিনিয়িত যাত্রী বাড়ছে এই রুটে। ঢাকা-বরিশাল নৌ পথে নতুন যুক্ত হচ্ছে দেশ সেরা লঞ্চ এমভি সুন্দরবন-১৬। সব কিছু ঠিক থাকলে লঞ্চের নামের সাথে মিল করে ১৬ নভেম্বর বুধবার উদ্বোধন করা হবে এমভি সুন্দরবন-১৬।
সুন্দরবন নেভিগেশনের স্বত্ত্বাধিকারী ও বাংলাদেশ লঞ্চ মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ইচ্ছা পোষন করেছি ১৬ নভেম্বর উদ্বোধন করবো। এদিন বরিশাল ঘাটে উদ্বোধনী দোয়া মোনাজাতে বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন। ওই দিনই যাত্রী বহন করে লঞ্চটি ঢাকা যাবে এবং পরের দিন ঢাকা প্রান্তে দ্বিতীয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে। এই অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এবং নৌ-পরিবহন মন্ত্রী অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন।
সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, নৌপরিবহনে নতুন সংযুক্ত হতে যাওয়া সুন্দরবন-১৬ দেশের মধ্যে যাত্রীবাহী যতগুলো লঞ্চ রয়েছে তার মধ্যে সর্ববৃহৎ। লঞ্চটিতে যাত্রী ধরে রাখতে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। চেষ্টা করেছি আগের যতগুলো লঞ্চ রয়েছে তার থেকেও ভালো সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করার। আগামী এক মাসের মধ্যে যাত্রীসেবায় যুক্ত হবে লঞ্চটি।
বর্তমান পরিস্থিতিতে এত বড় এবং নতুন লঞ্চ সংযোজনের বিষয়ে তিনি বলেন, লঞ্চটি আমার অনেক আগেরই তৈরি করা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে গত কোরবানীর ঈদেই লঞ্চটি লাইনে যুক্ত করা হতো। কিন্তু পদ্মা সেতুর উদ্বোধন এবং যাত্রী একদম কমে যাওয়ায় তখন উদ্বোধন করিনি। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে এবং লঞ্চটি বসিয়ে রাখার আর সুযোগ নেই বিধায় আল্লাহর উপর ভরসা করে সবার দোয়া নিয়ে লঞ্চটি যাত্রী বহনে নামাচ্ছি। লঞ্চে যে সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে আশা করছি তাতে টিকে থাকতে পারবো। তিনি বলেন আমি এই ব্যবসার একজন পুরনো মালিক অন্য মালিকদের কথা জানিনা সব সময়ই চিন্তা করেছি যাত্রী সেবাকে প্রাধান্য দেওয়া। এখন পর্যন্ত সেই নীতিতে অটল আছি।
শিপইয়ার্ডে কোম্পানির দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এমভি সুন্দরবন-১৬ লঞ্চটি হবে সুন্দরবন নেভিগেশন কোম্পানির ফ্লাগশিপ। কোম্পানির অন্যান্য লঞ্চের ক্যাপসুল ডিজাইন থেকে বাহ্যিক কাঠামোতে পরিবর্তন এনে ডেক ও কেবিনের সামনে চলাচলের প্রশস্ত জায়গা, পর্যাপ্ত টয়লেট, ক্যান্টিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাত্রী সেবায় লঞ্চে থাকবে প্রশিক্ষিত কর্মী। নিচ তলা থেকে চার তলায় ৫ হাজারের অধিক এলইডি ও সাধারণ লাইটের সংযোজনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।
দৈর্ঘ্যে ৩০০ এবং প্রস্থে ৫৪ ফুটের লঞ্চটি সরকারিভাবে ১২০০ থেকে ১৫০০ যাত্রীর ধারণক্ষমতার অনুমতি পেতে পারে। তবে প্রয়োজন সাপেক্ষে ১০ হাজারের মতো যাত্রী বহন করা যাবে। এতে লিফট, ডুপ্লেক্সতো থাকছেই। তাছাড়া দুই শতাধিক শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিন ভিআইপি, সেমি ভিআইপি, ইকোনমি, ফ্যামিলি, সিঙ্গেল ও ডাবল শ্রেণিতে বিন্যস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি সোফার ব্যবস্থাও থাকবে। লঞ্চে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ইঞ্জিন যুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া থাকবে রাতে চলাচলের জন্য উন্নত প্রযুক্তির রাডার ও জিপিএস। নদীর ডুবোচর ও পানির পরিমাণ নির্ধারণ করে বসানো হচ্ছে ইকো সাউন্ডার।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT