গৌরনদীতে হত্যা মামলায় দুই ভাইয়ের যাবজ্জীবন কারাদন্ড গৌরনদীতে হত্যা মামলায় দুই ভাইয়ের যাবজ্জীবন কারাদন্ড - ajkerparibartan.com
গৌরনদীতে হত্যা মামলায় দুই ভাইয়ের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

2:27 pm , November 9, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ গৌরনদী উপজেলার শামীম হত্যা মামলায় আপন দুই ভাইকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এছাড়াও মামলার আরো তিন আসামীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। খালাস দেয়া হয়েছে মামলার অপর চার আসামীকে। বুধবার বরিশালের জননিরাপত্তা বিঘœকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক টিএম মুসা এই আদেশ দেন।
ওই ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট লস্কর নুরুল হক জানান, আপ দুই ভাইকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া ছাড়াও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। অপর তিন আসামীর এক জনকে দুই বছর ও অপর দুই জনকে এক বছর করে কারাদন্ড এবং এক এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।
যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্তরা হলো- গৌরনদী উপজেলার দক্ষিন বাউরগাতি এলাকার সোবাহান তালুকদারের ছেলে জুয়েল তালুকদার (২৫) ও সাদ্দাম তালুকদার (২৮)। রায় ঘোষনার সময় জুয়েল পলাতক ছিলেন।
দুই বছরের দন্ডিত জুয়েল বেপারী (২৬) দক্ষিন বাউরগাতি এলাকার মৃত খলিল বেপারীর ছেলে।
এক বছরের দন্ডিতরা হলো-একই এলাকার নির্বাষ হাওলাদারের ছেলে শাহাদাত হোসেন লিটন হাওলাদার (২০) ও শাহজাহান তালুকদারের ছেলে সাহেদ তালুকদার (২৮)।
খালাসপ্রাপ্তরা হলো-ডালিম ফকির, হান্নান মোল্লা, রাসেল ঘরামী ও রাবেয়া খাতুন। রায় ঘোষনার সময় রাসেল ঘরামী পলাতক ছিলো।
মামলার বরাতে জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০১১ সালের ১ মে আসামীরা শামীমকে হত্যা করে একটি পানের বরজে ফেলে রাখে। তিনদিন পর ৪ মে ওই উপজেলার আনন্দপুর গ্রামের পান বরজ থেকে শামীমের লাশ উদ্ধার করা হয়। একই দিন আকতার বেপারী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।
পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পরিদর্শক সাইদুর রহমান ওই ৯ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট জমা দেন।
আদালত ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহন শেষে ওই রায় দেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT