আজ বরিশালে বিএনপির গণসমাবেশ আজ বরিশালে বিএনপির গণসমাবেশ - ajkerparibartan.com
আজ বরিশালে বিএনপির গণসমাবেশ

3:11 pm , November 4, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ আজ শনিবার (৫ নভেস্বর) অনুষ্ঠিত হবে বরিশাল নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে (বেলস পার্ক)। সমাবেশে অংশগ্রহণের জন্য বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে সমাবেশস্থলে উপস্থিত হয়েছেন বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা বিএনপির কয়েক হাজার নেতাকর্মী। যে কারনে বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় গণ সমাবেশের নির্ধারিত সময়ের কমপক্ষে ৩৬ ঘণ্টা আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত থেকে নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছে বঙ্গবন্ধু উদ্যানে।
স্থানীয় বিএনপির নেতৃবৃন্দরা জানিয়েছেন, সড়ক ও নদীপথ বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা অনুযায়ী নেতাকর্মীরা আগেই সমাবেশস্থলে এসেছেন। তারা বৃহস্পতিবার রাতে সমাবেশস্থলের মাঠে রাত কাটিয়েছেন। আর নেতাকর্মীদের থাকার জন্য মাঠের মধ্যে সামিয়ানা ও ত্রিপলের ছাউনি দেয়া হয়েছে। গণসমাবেশ প্রস্তুতি কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কয়েক হাজার নেতাকর্মীর জন্য দুই রাত মাঠে কাটানোর প্রস্তুতি নিয়ে তাবু টানিয়ে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি এসব নেতাকর্মীদের খাবারের জন্য মাঠেই বিশেষ ব্যবস্থায় রান্না করা হচ্ছে।
বিএনপি দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নিত্যপণ্য ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি এবং বিভিন্নস্থানে গুলিতে দলের নেতাকর্মী নিহত হওয়ার প্রতিবাদসহ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপী বিভাগীয় শহরে গণসমাবেশের আয়োজন করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় আজ  শনিবার বরিশাল বিভাগীয় গণসমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া দলের কেন্দ্রীয় নেতারা গণসমাবেশে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন।
সমাবেশস্থল যেন পিকনিক স্পট ॥ নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে যেন পিকনিক চলছে। বড় বড় হাঁড়িতে বসানো হয়েছে রান্না। মাঠের মধ্যে তাবু টানিয়ে চলছে আড্ডা ও শ্লোগান। মধ্যরাতের পর ওই তাবুর নিচেই ঘুমিয়ে রাত্রিযাপন করেছেন বিএনপির কয়েক হাজার নেতাকর্মী। মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব মীর জাহিদুল কবির জাহিদ বলেন, আবাসিক হোটেলগুলোতে পুলিশ অভিযানের নামে নেতাকর্মীদের হয়রানি করতে পারে। তাই উদ্যানেই রাতে ঘুমিয়েছেন দূর দূরান্ত থেকে আসা বিএনপির নেতাকর্মীরা। এজন্য আগেই তাদের জন্য ত্রিপল টানিয়ে মাঠেই থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি সমাবেশস্থলেই রান্নার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলসিক জাহান শিরিন বলেন, বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে আসা নেতাকর্মীদের বিভিন্ন রকমের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়েছে। তারপরেও কোনো কিছুতেই বরিশালের গণসমাবেশে জন¯্রােত ঠেকানো যাবে না। প্রয়োজনে নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ পায়ে হেটে, বাই সাইকেলে, ট্রলার ও নৌকায় চেপে আসবেন।
রাতেই ভরে গেছে উদ্যান ॥ সমাবেশের একদিন আগে শুক্রবার রাতে বরিশালে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশের ভেন্যু বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জড়ো হয়েছেন হাজারো নেতাকর্মী। মাঠের একটি অংশ নেতাকর্মীদের সমাগমে মুখরিত হয়ে উঠেছে। কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি বরিশালের বিভিন্ন  জেলা ও উপজেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে ভিড় করছেন। জেলা ও উপজেলার নেতাকর্মীরা নিজেদের কর্মীদের দিয়ে ব্যানার টানানোর কাজ করছেন।
বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশকে ঠেকাতে দুইদিন পরিবহন ও লঞ্চ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। আমাদের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ যাতে সমাবেশস্থলে না আসতে পারে তাই সরকারের এতো তোরজোড়। জনগণের এমন ভোগান্তির রায় জনগণই দেবেন।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিএনপি নয়টি বিভাগীয় শহরে গণসমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করে। যার প্রথমটি চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শেষ সমাবেশটি হবে আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকার নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে। ওই সমাবেশকে ‘মহাসমাবেশ’ ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। ঘোষিত এ কর্মসূচির অন্য সমাবেশগুলোর মধ্যে গত ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহ, ২২ অক্টোবর খুলনা, ২৯ অক্টোবর রংপুর বিভাগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ ৫ নভেম্বর বরিশাল, আগামী ১২ নভেম্বর ফরিদপুর, ১৯ নভেম্বর সিলেট, ২৬ নভেম্বর কুমিল্লা, ৩ ডিসেম্বর রাজশাহী ও ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় সমাবেশ হওয়ার কথা রয়েছে।
পায়ে হেঁটে সমাবেশস্থলে নেতাকর্মীরা ॥ সড়ক ও নৌ-পরিবহনের ধর্মঘট উপেক্ষা করে একদিন আগে শুক্রবার দুপুরের মধ্যে পায়ে হেঁটে সমাবেশস্থলে পৌঁছেছেন বিএনপির কয়েক হাজার নেতাকর্মী। সরেজমিনে দেখা গেছে, শুক্রবার সকাল থেকে কোনো রুটের লঞ্চ বরিশাল নদী বন্দর ত্যাগ করেনি। এছাড়াও বন্ধ রয়েছে লঞ্চ, বাস, মাইক্রোবাসসহ যান্ত্রিক থ্রি-হুইলার চলাচল। বিএনপি নেতাকর্মীরা বলছেন, সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে আমাদের কর্মসূচিতে অসহযোগিতা করবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সরকারের কোনো বাঁধাই বিএনপি নেতাকর্মীদের দমাতে পারবে না।
বাউফল থেকে আসা শফিকুল ইসলাম বলেন, ভ্যানে করে দপদপিয়া জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত এসেছি। পরে রূপাতলী থেকে পায়ে হেঁটে বেলস পার্কে পৌছেছি। নলছিটি থেকে আসা বিএনপি কর্মী হারুন-অর রশিদ বলেন, শুক্রবার ভোর থেকে সবধরনের যোগাযোগ বন্ধ থাকায় আমরা পায়ে হেঁটে বরিশালে এসেছি।
এদিকে বরিশাল জেলার মুলাদী উপজেলার বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উত্তর জেলা বিএনপির ১ নং সদস্য আঃ ছত্তার খানের নেতৃত্বে ৮টি ট্রলারে শতাধিক মহিলা সদস্য সহ ৫ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে ৫ ঘন্টা নদী পথ পাড়ি দিয়ে সন্ধ্যায় পৌছাবেন বলে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এবং শনিবার গণ সমাবেশ শেষ হওয়া পর্যন্ত মাঠেই অবস্থান করবে।
নৌকায় এসেছেন নেতাকর্মীরা ॥ নৌকায় চরে বরিশালে বিএনপির বিভাগীয় সম্মেলনে এসেছেন আমতলী উপজেলার কয়েক হাজার নেতাকর্মী। উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব তুহিন মৃধা জানিয়েছেন, শুক্রবার ভোররাতে নেতাকর্মীদের নিয়ে তারা পাঁচটি ইঞ্জিন চালিত কার্গো নৌকায় চরে বরিশালে এসে পৌছেছেন।
সব পথেই বরিশাল ঢোকা বন্ধ ॥ বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের আগেরদিন (শুক্রবার) ভোর থেকে সব পথেই বরিশালে ঢোকা বন্ধ হয়ে গেছে। এ অবস্থায় চরম ভোগান্তিতে পরেছেন সাধারণ মানুষ। প্রয়োজনে বরিশাল ছাড়তে পারছেন না কেউ, আবার প্রবেশও করা যাচ্ছেনা। সার্বিক পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ এলাকার মোড়ে মোড়ে তল্লাশি করছে পুলিশ। মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশের অতিরিক্ত সদস্য।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT