ব্যাংক কর্মকর্তা ও বনবিভাগের নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা দায়ের ব্যাংক কর্মকর্তা ও বনবিভাগের নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা দায়ের - ajkerparibartan.com
ব্যাংক কর্মকর্তা ও বনবিভাগের নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা দায়ের

3:28 pm , November 3, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সরকারি চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারনার মাধ্যমে ১৪ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে বন বিভাগের নিরাপত্তা কর্মী ও ব্যাংক কর্মকর্তা দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ এলাকার খলিলুর রহমানের স্ত্রী হিরামনি আক্তার। আদালতের বিচারক আগামী ২১ দিনের মধ্যে কাউনিয়া থানার ওসিকে মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার আসামীরা হচ্ছে, রংপুর রামনাথপুর ইউনিয়নের রামনাথপুর শেখ পাড়ার মৃত আঃ মজিদের ছেলে মোকাদ্দেছ ও শরিফুল ইসলাম। মোকাদ্দেছ চট্টগ্রামের সন্দীপের বন বিভাগের নিরাপত্তা প্রহরী ও শরিফুল রংপুরের বদরগঞ্জ থানাধীন অগ্রনী ব্যাংকে কর্মরত রয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, মামলার বাদী হিরামনির স্বামী খলিলুর রহমানের সাথে মোকাদ্দেছ একই সাথে কর্মরত রয়েছে। এ সুবাদে খলিলের সাথে মোকাদ্দেছের সুসম্পর্ক তৈরি হয়। এছাড়া উভয়েই তাদের পরিবারে বেড়াতেও আসা যাওয়া করে। ২০১৯ সালে খলিল তার স্ত্রীকে হিরামনিকে নিয়ে মোকাদ্দেছ ও শরিফুলের রংপুরের গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে যায়। এ সময় মোকাদ্দেছ ও শরিফুল হিরামনিকে সরকারি চাকরি করতে ইচ্ছুক কেউ আছে কিনা জানতে চায়। একপর্যায়ে মোকাদ্দেছ ও শরিফুল তাদের মামা সচিব বলে পরিচয় দিয়ে একেকজনকে ৩ থেকে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে চাকরি পাইয়ে দেবার প্রস্তাব দেয়।
পরে হিরামনি স্বজন নগরীর বেলতলা এলাকার সুলতান আহমেদ, মুগাকাঠীর আবুল কালাম এবং রিয়াজুল ও উজিরপুর ইছলাদীর আরিফকে বললে তারা চাকরি নিতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এতে করে সুলতান আহমেদ ৩ লাখ, আবুল কালাম ৩ লাখ, রিয়াজুল সাড়ে ৩ লাখ ও আরিফ দেড় লাখ টাকাসহ ১১ লাখ টাকা মোকাদ্দেছ ও শরিফুলকে ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করে। পরে মোকাদ্দেছ ও শরিফুল হিরামনির বাসায় বেড়াতে এসে আরো ২ লাখ টাকা নেয়। এরপর দীর্ঘদিন হয়ে গেলেও মোকাদ্দেছ ও শরিফুল চাকরি দিতে পারেনি। চাকরি না দেয়ায় সবাই মোকাদ্দেছ ও শরিফুলের নিকট টাকা ফেরত চায়। মোকাদ্দেছ ও শরিফুল টাকা ফেরত দিতে টালবাহানা শুরু করে। এরই ধারাবহিকতায় গত ৭ অক্টোবর শায়েস্তাবাদে হিরামনির বাসায় শালিস-মিমাংশা বসে। সেখানে মোকাদ্দেছ ও শরিফুল আশ্বাস দিলেও টাকা ফেরত দেয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT