হিজলায় কাদা মাটির রাস্তা ৫ বছরেও পাকাকরা হয়নি হিজলায় কাদা মাটির রাস্তা ৫ বছরেও পাকাকরা হয়নি - ajkerparibartan.com
হিজলায় কাদা মাটির রাস্তা ৫ বছরেও পাকাকরা হয়নি

3:09 pm , September 19, 2022

হিজলা প্রতিনিধি ॥ হিজলা উপজেলায় একটি কাদা মাটির রাস্তা পাকা করনের ৫ বছর পূর্বে প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাস্তবায়ন করা হয়নি। এ নিয়ে স্থানীয় দুই গ্রামের সাধারন মানুষের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। গত ৫ বছর আগে স্থানীয় এমপি পংকজ নাথ ওই রাস্তার মাঝে প্রায় ৫ শতাধিক মানুষের মধ্যে রাস্তাটি পাকা করনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি। উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের মাসকাটা গ্রামের আবুল মাষ্টার বাড়ি হতে পূর্ব কোড়ালিয়া গ্রামের ইউপি সদস্য কালাম বেপারী বাড়ি সংলগ্ন এ সংযোগ রাস্তাটি শত বছরের পুরানো। ১ কিলোমিটার এ রাস্তাটি দুই গ্রামের মানুষের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এ সংযোগ রাস্তাটি দিয়ে দুই গ্রামের শতশত স্কুল মাদরাসা কলেজের পড়–য়া ছাত্র ছাত্রীরা চলাচলা করছে। বর্ষা মৌসুম আসলেই হাটু পরিমান কাদা হয়ে যায়। তখন ছাত্রছাত্রীরা প্রায় ৫/৬ কিলোমিটার বিকল্প রাস্তা দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলাচল করতে হয়। এ রাস্তা দিয়ে গ্রামের মানুষ আসা যাওয়া করতে বর্ষা মৌসুমে পরিবর্তন করতে হয় পোশাকের। সারাদেশে উন্নয়ন ঘটলেও উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি এ রাস্তাটির। এ জন্য চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এই দুই গ্রামবাসীকে। মাসকাটা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবুল কালাম মাষ্টার বলেন, আমরা চরম অবহেলিত এলাকায় বাস করি। অনেক নতুন রাস্তার উন্নয়ন হলেও এ রাস্তার বেহাল দশা। এ রাস্তাটির আধুনিকতা ছোয়া লাগেনি। জরুরী প্রয়োজনে বয়স্ক লোক নিয়ে পড়তে হয় বিপাকে। অপরদিকে কোড়ালিয়া গ্রামের মৎস্য ব্যবসায়ী ডিপটি হাওলাদার বলেন আমরা যেনো অন্ধকার যুগে রয়েছে। উপজেলার অপ্রয়োজনীয় রাস্তার উন্নয়ন হলেও বঞ্চিত রয়েছে এ রাস্তাটি। প্রতিদিন মাছের রেনু ক্রয়ের জন্য শতাধিক ভ্যান গাড়ি আসে এ রাস্তায়। বর্ষার মৌসুম আসলে যেনো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, তার ষষ্ঠ শ্রেনীতে পড়–য়া ছেলে ৬ কিলোমিটার দুরের রাস্তা দিয়ে স্কুলে যেতে হয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য কালাম বেপারী জানায় এ রাস্তাটি আমার বাড়ি সংলগ্ন। পরিষদেও চেয়ারম্যানকে বলেছি রাস্তাটি এডিপি প্রকল্পে দেওয়ার জন্য। তিনি দিবেন বলে জানান। গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যান সাজাহান তালুকদার বলেন, গত কয়েক মাস পূর্বে এডিপির একটি প্রকল্পের কাজ অন্যত্রে দেওয়া হয়েছে। আগামীতে বরাদ্ধ আসলে এ রাস্তাটির উন্নয়ন কাজ করা হবে। উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী ওবায়েদ বলেন আমি সরোজমিনে গিয়ে রাস্তাটি আই ডি নাম্বার করেছি।পরবর্তি প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তাটির কাজ করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT