দক্ষিনাঞ্চলের ২১টি ফেরি সেক্টরের ৪২টি ঘাট জোয়ারের পানিতে সয়লাব দক্ষিনাঞ্চলের ২১টি ফেরি সেক্টরের ৪২টি ঘাট জোয়ারের পানিতে সয়লাব - ajkerparibartan.com
দক্ষিনাঞ্চলের ২১টি ফেরি সেক্টরের ৪২টি ঘাট জোয়ারের পানিতে সয়লাব

3:52 pm , September 13, 2022

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ দক্ষিণাঞ্চল সহ সমগ্র উপকুলভাগ ফুসে ওঠা বঙ্গোপসাগরের জোয়ারের সাথে গত কয়েকদিনের অতি বর্ষণের পানিতে ভাসছে। বিগত দুটি বছর ভাদ্রের বড় অমাবশ্যায় উপকুলভাগ জোয়ারের পানিতে সয়লাব হলেও এবার শেষ শ্রাবনের মত ভাদ্রের পূর্ণিমাতেও প্রকৃতির বিরূপ আচরন আউশের পরে কৃষকের আমনের স্বপ্ন এখন পানির তলায়। দক্ষিণাঞ্চলের সবগুলো নদীর পানি এখনো বিপদ সীমার ওপরে প্রবাহিত হচ্ছে। দক্ষিণাঞ্চলের ২১টি ফেরি সেক্টরের ৪২টি ঘাটের প্রায় সবগুলোই জোয়ারের পানিতে সয়লাব। ফলে সড়ক যোগাযোগ দিন রাতে অর্ধেকেরও বেশী সময় বন্ধ থাকছে।
চলতি খরিপ-২ মৌসুমে দক্ষিণাঞ্চলে প্রায় ৭ লাখ হেক্টরে আমন আবাদের মাধ্যমে প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্য রয়েছে কৃষি মন্ত্রনালয়ের। রোপনের সময় শেষ হয়ে আসলেও বীজের অভাবে লক্ষ্যমাত্রার ২০ ভাগ পেছনে থাকা আমন আবাদ নিয়ে সমগ্র দক্ষিণাঞ্চলে কৃষকের হাহাকারের মধ্যে পূর্ণিমার ভরা কাটালে সাগরে সৃষ্ট লঘু চাপ থেকে নি¤œ চাপের প্রভাবে বৃষ্টির সাথে জোয়ারের জলোস্ফিতি কৃষকের স্বপ্ন ধুলিস্যাত করে দেয়ার পাশাপাশি জন জীবনও বিপর্যস্ত। সমগ্র দক্ষিণাঞ্চলের জনপদের পর জনপদ এখন পানির তলায়। এমনকি বৃষ্টির অভাবে সদ্য সমাপ্ত খরিপÑ১ মৌসুমে দক্ষিণাঞ্চলে আউশের আবাদ ও উৎপাদনে বিপর্যয় নেমে আসে। আউশ আবাদে লক্ষ্যমাত্রার অনেক পেছনে এবার খাদ্য উদ্বৃত্ত দক্ষিণাঞ্চল। বরিশাল কৃষি অঞ্চলের ১১ জেলায় এবার ২ লাখ ৪ হাজার ৬৭০ হেক্টরে আউশের আবাদ হলেও তা লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ২৪ হাজার হেক্টর পেছনে।
গত কয়েকদিনের মাঝারী থেকে ভারী বর্ষণে সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত ৩টি দিনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সরকারীÑবেসরকারী অফিস আদালতে অচলাবস্থা বিরাজমান।
বরিশাল সহ দক্ষিণাঞ্চলের নদী বন্দরগুলোতে ২ নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে ১ নম্বর নৌ হুশিয়ারী সংকতে দেখাতে বলা হয়েছে। তবে পায়রা বন্দরকে এখনো ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেতের আওতায় রাখা হয়েছে। সাগর এখনো মাঝারী মাত্রায় উত্তাল রয়েছে। মঙ্গলবার সকালের পূর্ববর্তী ৪৮ ঘন্টায় দেশের সর্বাধিক বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে কলাপাড়াতে। এরমধ্যে মঙ্গলবার সকালের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় ১১৬ মিলিমিটার এবং সোমবার একই সময়ে ১৩৯ মিলি বৃষ্টি হয়েছে সাগর পাড়ের কলাপাড়ায়। গত ২৪ ঘন্টায় পটুয়াখালীতেও ৬৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এ সময়ে বরিশালে ২৬ মিলি এবং ভোলাতে ১৩ মিলি বৃষ্টি হয়েছে।
উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎ সংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। অস্থায়ী দমকা হাওয়া এবং বিজলী চমকানো সহ হালকা থেকে মাঝারী বৃষ্টির সাথে বজ্র বৃষ্টির সাথে দক্ষিণাঞ্চলে ভারি থেকে অতি বর্ষণের সম্ভাবনার কথাও বলেছে আবহাওয়া বিভাগ।
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি সুস্পষ্ট লুঘচাপ থেকে নি¤œচাপে পরিনত হয়ে ভারতে উড়িশ্যা উপক’ল অতিক্রম করে দূর্বল হয়ে মধ্যপ্রদেশ এলাকায় অবস্থান করলেও তা ক্রমশ আরো দূর্বল হয়ে মিলিয়ে যাচ্ছে। ফলে বুধবার দুপুর থেকেই সাগর কিছুটা শান্ত হয়ে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে। এতে করে দক্ষিণাঞ্চলের নদ-নদীর পানিও ক্রমান্বয়ে হ্রাস পেয়ে শুক্রবার সকালের মধ্যে প্রায় স্বাভাবিক পর্যায়ে আসবে বলে আশা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বশীল মহল। বৃহস্পতিবার থেকে বৃষ্টিপাতের প্রবনতাও ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাবার কথা বলেছে আবহাওয়া বিভাগ।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT