শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ড হবে এখন মেডিসিন ওয়ার্ড শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ড হবে এখন মেডিসিন ওয়ার্ড - ajkerparibartan.com
শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ড হবে এখন মেডিসিন ওয়ার্ড

3:45 pm , September 3, 2022

শিকদার মাহাবুব ॥ বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের শয্যা ৬ ভাগের একভাগে নিয়ে আসা হচ্ছে। রোগী সামাল দিতে পুরুষ ও নারী মেডিসিন ওয়ার্ডের রোগীদের করোনা ভবনে স্থানান্তর করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। আগামী সপ্তাহে এ স্থানান্তরের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল পরিচালক ডা. এইচএম সাইফুল ইসলাম। তিনি জানান, বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মূল ভবন থেকে করোনা ভবনে আগামী সপ্তাহে মেডিসিন ওয়ার্ড স্থানান্তর করা হবে। এমনকি করোনা ভবনে ৩০০ রোগীর শয্যা কমিয়ে ৫০টি করা হচ্ছে। মেডিসিন ওয়ার্ডে ১৫০ শয্যার স্থলে প্রতিদিন গড়ে ৭০০ রোগীর চিকিৎসা দেওয়ার অভিজ্ঞতা থেকে চিকিৎসক ও নার্সদেরও মুক্তি মিলবে।
হাসপাতাল পরিচালক এইচএম সাইফুল ইসলাম বলেন, হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পর থেকে মেডিসিন ওয়ার্ড স্থানান্তরের ক্ষেত্রে এটাই প্রথম পদক্ষেপ। এক্ষেত্রে মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডের রোগীদের চিকিৎসা সেবা পাওয়ার জন্য আর দুর্ভোগ পোহাতে হবে না।
দেখা গেছে, বিগত ৫০ বছর যাবৎ হাসপাতালের একটি মাত্র মেডিসিন ওয়ার্ডে মহিলা রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। এই ১টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪টি ইউনিট বিদ্যমান রয়েছে। তবে পুরুষদের জন্য আলাদাভাবে ৪টি ইউনিটের ৪টি ওয়ার্ড রয়েছে। পুরুষদের তুলনায় এখানে নারী রোগীরা চিকিৎসা গ্রহণের ক্ষেত্রে পিছিয়ে রয়েছে। এমনকি পুরুষ ওয়ার্ডগুলোতে সুন্দর পরিবেশ বিদ্যমান। কিন্তু মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে অতিরিক্ত নারী রোগীদের ঠাসাঠাসিতে সর্বদা অস্বস্তিকর পরিবেশ তৈরি করে। ডাক্তার-নার্স তাদেরকে চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে হাঁপিয়ে উঠছেন। এমনকি ওয়ার্ড বয় ও আয়ারা ওয়ার্ডটি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করে ব্যর্থ হচ্ছেন। আনসার সদস্যরা দর্শনার্থীদের ভীড় সামলাতে মাইকিং করছে। তাতেও কাজ হচ্ছে না। মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রোগী আকলিমা বেগম বলেন, এখানে চিকিৎসা নিতে এসে মেঝেতে পড়ে থাকতে হচ্ছে। অতিরিক্ত রোগীর ভীড়ে ডাক্তারদের কাছে যেতেও অনেক কষ্ট। আরেক রোগী তাসলিমা আক্তার বলেন, রোগীদের তুলনায় টয়লেট-গোসলখানা একেবারে সীমিত। সিরিয়াল পেতে প্রসাব পায়খানার চাপে বিছানা নষ্ট হয়ে যায়। তবে এটা শুনে খুশি হলাম, যে মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ড অন্যত্র স্থানান্তর করা হবে। এতে অন্তত নারী রোগীদের কষ্ট লাঘব হবে। তাছাড়া হাসপাতালের বারান্দার মেঝেতে আর পড়ে থাকতে হবে না। এদিকে ওয়ার্ডে কর্মরত একাধিক নার্সের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, মেঝেতে চিকিৎসাধীন রোগীদের ইনজেকশন পুশ করতে অনেকটা ঘাম ঝড়াতে হয়। আর অন্তঃসত্ত্বা নার্সরা-তো মোটেও বসে কাজ করতে পারেন না। করোনা ভবনে মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ড স্থানান্তর করা সময়োপযোগী একটি পদক্ষেপ। আমরা চাই দ্রুত এসবের সমাধান হোক। পরিচালক ডা. সাইফুল ইসলাম বলেন, আগামী সপ্তাহের মধ্যে রোগীদের চিকিৎসা সেবা আরও সম্প্রসারিত করার লক্ষ্যে হাসপাতালের মূল ভবন থেকে করোনা ভবনে মেডিসিন ওয়ার্ড স্থানান্তর করা হবে। পাশাপাশি ৫০ শয্যার করোনা ইউনিটও চালু থাকবে। আমরা এটা উদ্বোধনের জন্য আনুষ্ঠানিক চিঠি বিলি করার প্রস্তুতি নিয়েছি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT