একমাসে দক্ষিণাঞ্চলে ডায়রিয়া আক্রান্ত সাড়ে ৫ হাজার মানুষ চিকিৎসা নিয়েছে একমাসে দক্ষিণাঞ্চলে ডায়রিয়া আক্রান্ত সাড়ে ৫ হাজার মানুষ চিকিৎসা নিয়েছে - ajkerparibartan.com
একমাসে দক্ষিণাঞ্চলে ডায়রিয়া আক্রান্ত সাড়ে ৫ হাজার মানুষ চিকিৎসা নিয়েছে

3:56 pm , August 31, 2022

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ দক্ষিণাঞ্চলের ৬ জেলার ৪২ উপজেলায় আগষ্ট মাসে আরো প্রায় সাড়ে ৫ হাজার ডায়রিয়া আক্রান্ত নারী-পুরষ ও শিশু সরকারী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা গ্রহন করেছেন। এরমধ্যে গত এক সপ্তাহেই হাসপাতালগুলোতে আগতের সংখ্যা ছিল প্রায় দেড় হাজার। আগষ্টের শুরু থেকে মধ্যভাগে ডায়রিয়া আক্রান্তের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেলেও মাসের শেষ দশকে তা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত মার্চের শুরু থেকে সমগ্র দক্ষিণাঞ্চল জুড়েই ডায়রিয়ার প্রকোপ শুরু হয়। যা এখনো অব্যাহত আছে। গত মার্চ থেকে ৩১ আগষ্ট দুপুর পর্যন্ত সরকারী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নেয়া ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ৫৩ হাজার ৭৪৩ জন। সরকারি হিসেবে এরমধ্যে সুস্থ্য হয়ে উঠেছে ৫৩ হাজার ২০৭ জন। গত বছরও মার্চ থেকে আগষ্ট পর্যন্ত প্রায় ৭৫ হাজার ডায়রিয়া আক্রান্ত মানুষ সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহন করলেও মৃত্যু হয়েছিল ২৫ জনের। এবার মৃত্যু না থাকলেও আগষ্ট মাসের শেষে এসে ডায়রিয়া পরিস্থিতির লক্ষনীয় উন্নতি হয়নি। বুধবার দুপুরের পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় এ অঞ্চলের বিভিন্ন জেলা-উপজেলাতে আরো ১৯৮ জন ডায়রিয়া রোগী সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার জন্য এসেছে। তবে এর বাইরে আরো কয়েকগুন ডায়রিয়া রোগী বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকসহ চিকিৎসকদের নিজস্ব চেম্বারে ব্যবস্থাপত্র নিয়ে বাসা বাড়ীতে চিকিৎসা গ্রহন করছে বলে জানা গেছে।
গত কয়েক মাসে ডায়রিয়া আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশী ছিল দ্বীপ জেলা ভোলাতে ১১ হাজার ৫০৩ জন। এর পরের অবস্থান পিরোজপুরে। সেখানেও গত কয়েক মাসে ১০ হাজার ৭৫০ জন ডায়রিয়া রোগী সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিয়েছেন। বরিশালের অবস্থাও প্রায় একই। মহানগরীসহ ১০ উপজেলার এ জেলায় ইতিমধ্যে ১০ হাজার ৩১২ জন সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার জন্য এসেছে বলে জানা গেছে। এছাড়া পটুয়াখালীতে ৯ হাজার ৬২৮ জন, বরগুনাতে ৬ হাজার ১৮৮ এবং ঝালকাঠীতে ৫ হাজার ৩৬২ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত নারীÑপুরুষ ও শিশু সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিয়েছেন।
গত একমাসে ভোলাতে ১ হাজার ১২জন, পিরোজপুরে ৮৭৭জন চিকিৎসা নিয়েছেন। বরিশালের অবস্থা আরো খারাপ। মহানগরীসহ এ জেলাটিতে গত একমাসে ১ হাজার ৭শ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত নারী-পুরুষ ও শিশু সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এ সময়ে পটুয়াখালীতে সংখ্যাটা ছিল প্রায় ৭শ। বরগুনাতে ৩৩৬ জন ডায়রিয়া রোগী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিয়েছেন। দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে ছোট জেলা ঝালকাঠীতে গত এক মাসে ৪৩০ জন ডায়রিয়া রোগী ৪টি উপজেলার সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা গ্রহন করে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাগজপত্রে ডায়রিয়া চিকিৎসায় ৪১৩টি মেডিকেল টিম কাজ করছে বলে জানানো হলেও এর কোনটিতেই চিকিৎসক নেই। তবে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের মতে, প্রতিটি মেডিকেল টিমের সাথেই একজন চিকিৎসককে দায়িত্ব দেয়া আছে। যেকোন জরুরী প্রয়োজনে তারা মেডিকেল টিমের ডাকে সাড়া দিয়ে সংকটাপন্ন রোগীদের চিকিৎসা সহায়তা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর।
পাশাপাশি দক্ষিণাঞ্চলের ৬টি জেলা ও ৪২টি উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্সসহ হাসপাতালগুলোতে ডায়রিয়া রোগীদের চিকিৎসায় প্রায় ১ হাজার সিসি’র প্রায় ৭৫ হাজার ও ৫শ সিসি’র ৩৮ হাজার ব্যাগ স্যালাইন মজুদ রয়েছে বলে জানিয়েছে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তর। এছাড়া প্রয়োজনীয় এন্টিবায়োটিক সহ প্রয়োজনীয় সব ওষুধের মজুদের কথাও বলছে স্বাস্থ্য দপ্তর।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT