ভাসমান হাসপাতাল জীবনতরী ভান্ডারিয়ায় ভাসমান হাসপাতাল জীবনতরী ভান্ডারিয়ায় - ajkerparibartan.com
ভাসমান হাসপাতাল জীবনতরী ভান্ডারিয়ায়

3:28 pm , August 30, 2022

তরিকুল ইসলাম, ভা-ারিয়া ॥ ভা-ারিয়া উপজেলার রোগীদের দুয়ারে আসছে ভাসমান হাসপাতাল। স্বল্প খরচে প্রতিবন্ধি রোগী সহ নানা রোগের চিকিৎসা দিতে সেবা দিতে উপস্থিত এ ‘ইমপ্যাক্ট জীবনতরী’ ভাসমান হাসপাতাল। মঙ্গলবার বিকালে ভা-ারিয়া হাসপাতাল সংলগ্ন পোনা নদীতে হাসপাতালটি নোঙ্গর করে। জাতীয় পার্টি (জেপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপির নির্দেশে ইতোমধ্যে এ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবার বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে জীবনতরীর কাছে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক সীমা রানী ধর, জেপির উপজেলা যুগ্ম আহবায়ক ও পৌর কাউন্সিলর মো. গোলাম সরওয়ার জোমাদ্দার, আওয়ামী লীগ নেতা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নিজামুল হক নান্না। এ সময় জীবন তরীর কর্মকর্তাদের সাথে আলাপকালে স্বল্পমূল্যে সেবা গ্রহীতাদের জানাতে মাইকিং সহ সবাত্মক সহযোগীতার আশ^াস প্রদান করেন। এ হাসপাতালে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল পর্যন্ত সেবা নিতে আসা রোগীদের বসার জন্য হাসপাতালের পক্ষ থেকে নদীর পাড়ে ভাসমান অস্থায়ী ব্যবস্থা করা হয়েছে। রয়েছে টিকিট কাউন্টার। কাউন্টারে ৫০ টাকা দিয়ে টিকেট কেটে সিরিয়াল করে রোগী দেখা হবে। রোগীর সংখ্যা বুঝে অনেক সময় বিকাল গড়িয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলবে রোগী দেখা। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা এখানে চলবে রোগীদের ব্যবস্থা পত্র। বিশেষ করে প্রতিবন্ধি রোগীর বাইরে অবস্থা ভেদে নাক, কান, গলা অপারেশন, হাড়ভাঙা, কানের ছিদ্র জোড়া লাগানো, ক্লাব ফুট (মুগুর পা), চোখের ছানি অপারেশন এবং ঠোঁট কাটা রোগীদের ভাসমান হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হবে। রয়েছে স্বল্পমূল্যে টেস্টের ব্যবস্থাও। হাসপাতালের প্রশাসক মো. আলাউদ্দিন জানান, ১৯৯৯ সালে দেশের নদী অববাহিকা এলাকার দরিদ্র, অতিদরিদ্র রোগীদের স্বল্পমূল্যে সেবা প্রদানের লক্ষ্যে এটি চালু করা হয়। সে থেকে এ পর্যন্ত ৫৫টি স্পটে এ জীবনতরী ভাসমান হাসপাতাল অগনিত মানুষের সেবা প্রদান করে আসছে। ২০০৪ সালে এই ভা-ারিয়ায়ও তারা সেবা প্রদান করে গেছেন। দীর্ঘ ১৮ বছর পর আবার ভা-ারিয়া সহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার মানুষের সেবা প্রদানের জন্য মঙ্গলবার নোঙ্গর করেছেন। আজ বুধবার থেকে শুরু হবে সেবা প্রদান কার্যক্রম। তিনমাস থাকার কথা রয়েছে তাদের। তবে যদি রোগীর ভিড় বেশি হয় সে ক্ষেত্রে সময় আরো বাড়তে পারে বলেও জানান প্রশাসক। হাসপাতালে ৪জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, ৪ জন বিশেষজ্ঞ নার্স, টেকনোলজিষ্টসহ ৩৫ জনের একটি টিম কাজ করবে। প্রশাসক মো. আলাউদ্দিন আরো জানান, এ হাসপাতালে সব শ্রেনী পেশার মানুষ স্বল্প খরচে চিকিৎসা সেবা নিতে পারে সে দাবীতে তারা এখানে আসছেন। তারা আরো জানান এখানে চক্ষু,নাক-কান-গলা, অর্থপেডিকসসহ বাকা হাত-পা সোজাকরার চিকিৎসা দেওয়া হয়। জটিল রোগী হলে বা অপারেশনের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে রেফার করা হবে। তাছাড়া, হাসপাতালে জটিল রোগী আনা নেওয়ার জন্য নদী পথে স্পীড বোট ও সড়ক পথে এম্বুলেন্স সার্বক্ষনিক প্রস্তুুত রাখা হয়েছে। এ উপজেলা ছাড়াও পাশ্ববর্তী কাছাকাছি উপজেলা অঞ্চলের মানুষের আহ্বানে তারা রোগীদের দুয়ারে চিকিৎসা দিতে আসছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT