প্রাণ ফিরে পেয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের শতবর্ষের ভাসমান নৌকার হাট প্রাণ ফিরে পেয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের শতবর্ষের ভাসমান নৌকার হাট - ajkerparibartan.com
প্রাণ ফিরে পেয়েছে দক্ষিণাঞ্চলের শতবর্ষের ভাসমান নৌকার হাট

3:30 pm , August 14, 2022

বিশেষ প্রতিবেদক ॥ বিগত দুটি বছরের করোনা মহামারীর ছোবলে দক্ষিণাঞ্চলের শতবর্ষের পুরনো ভাসমান নৌকার হাটগুলো মন্দা কাটিয়ে এবার যথেষ্ট প্রাণ ফিরে পেয়েছে। ফলে কাঠ ব্যবসায়ীসহ নৌকার মিস্ত্রি এবং বিক্রেতাদের মুখে কিছুটা হলেও হাসি ফিরে এসেছে। তবে কাঠ, লোহাসহ উপকরণের পাশাপাশি মিস্ত্রির মজুরী বৃদ্ধির ফলে নৌকার দামও বেড়ে যাওয়ায় বিক্রি আশানুরূপ হলেও বিগত দুটি বছরের তুলনায় কিছুটা হলেও ভাল। বানারীপাড়া, পিরাজপুরের নেছারাবাদ ও ঝালকাঠীর ভাসমান হাটগুলোতে ক্রেতা সমাগম কিছুটা বৃদ্ধির ফলে এবার আগের দুটি বছরের তুলনায় নৌকা শিল্প করোনার বিরূপ প্রভাব কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছে।
তবে গত দুটি বর্ষা মৌসুমের মত এবারো নৌকা তৈরীর মিস্ত্রি সংকটে কিছুটা বিপর্যস্থ দক্ষিণাঞ্চলের নৌকার মোকামগুলো। সাথে কাঠ, লোহাসহ বিভিন্ন উপকরণের দাম প্রায় দ্বিগুন বৃদ্ধি পেলেও নৌকার দাম সে তুলনায় না বাড়ায় বিক্রেতাদের মুখে পরিপূর্ণ হাসি নেই। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, কাঠসহ নৌকা তৈরির উপকরনের দাম বাড়লেও সেই তুলনায় নৌকার দাম বাড়ানো যাচ্ছে না। ফলে এ শিল্পের সাথে জড়িতরা কিছুটা বিপাকে। পাশাপাশি এসব ভাসমান ও মৌসুমী হাটে মিস্ত্রির অভাবে নৌকা তৈরিও যথেষ্ট বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। গত দুটি বছর লকডাউনে পরিবহন বন্ধ থাকায় দূর-দূরান্তের ক্রেতারা এসব হাটে আসেনি। ফলে বেচা কেনাও তেমন একটা ছিলোনা । খাল-বিল, নদী-নালা বেষ্টিত দক্ষিণাঞ্চল জুড়েই বর্ষা মৌসুমে নৌকার কদর অন্য যেকোন সময়ের তুলনায় অনেক বেশী। বিশেষ করে বর্র্ষার এ সময়ে কৃষকরা ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকায় করেই রোপা আমনের বীজসহ নানা কৃষি উপকরণ নিয়ে অর্ধ নিমজ্জিত ফসলের জমিতে যায়। এছাড়াও বর্ষার পানিতে প্লাবিত বানারীপাড়া ও আগৈলঝাড়া, গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া, পিরোজপুরের নাজিরপুর ও নেছারাবাদের অনেক এলাকায়ই এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে যেতে এখনো নৌকাই একমাত্র বাহন। আউশ ধান কাটা ছাড়াও ঝালকাঠী ও নেছারাবাদের পানি বেষ্টিত বাগান থেকে পেয়ারা, আমড়া ও সব্জিসহ অন্যান্য ফসল সংগ্রহ এবং বাজারজাত করতেও এখনো নৌকার কোন বিকল্প নেই। ঝালকাঠীর ভিমরুলীতে গত অর্ধ শতাব্দীকাল ধরে নৌকার ওপরই পেয়ারার ভাসমান হাট বসছে। যা দেখতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতি বছর বর্র্ষা মৌসুমে বিপুল সংখ্যক পর্যটক সমাগম ঘটে। বানারীপাড়াতেও সপ্তাহে দুদিন ধান-চালের ভাসমান হাট বসলেও কালের বিবর্তনে তার রমরমা বানিজ্য এখন অনেকটাই অতীত। এবার ভরা বর্ষা মৌসুমে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের অভাবে এতদিন দক্ষিণাঞ্চলের নদী-নালা এবং খাল-বিলগুলো পানিতে টই-টুম্বুর না থাকলেও শেষ শ্রাবনের পূর্ণিমায় ফুসে ওঠা সাগরের জোয়ার আর গভীর সঞ্চালণশীল মেঘমালার বর্ষনে বর্ষার প্রকৃত রূপ বিলম্বে হলেও অনেকটাই ফিরে এসেছে। ফলে নৌকা নির্ভর এলাকায় চাহিদাও অনেকটা বেড়ে গেছে। একশ বছরের পুরানো ঝালকাঠী-পিরোজপুরের সীমান্তবর্তী আটঘর কুড়িয়ানার হাটে এবার আগের দুটি বছরের সংকট কাটিয়ে নৌকার হাটে যথেষ্ট প্রাণ ফিরেছে। বানারীপাড়া ও পিরোজপুরের নেছারাবাদের নৌকার হাটও এখন অনেকটাই সজীব।তবে ক্রেতাদের দাবী, এবার নৌকার দাম আগের কয়েকটি বছরের তুলনায় অনেক বেশি। ফলে অনেক চিন্তা ও হিসেব করেই তাদের নতুন নৌকা কিনতে হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT