তামিলনাড়–র প্রেমকান্তকে নিয়ে বিব্রত নগর প্রশাসন তামিলনাড়–র প্রেমকান্তকে নিয়ে বিব্রত নগর প্রশাসন - ajkerparibartan.com
তামিলনাড়–র প্রেমকান্তকে নিয়ে বিব্রত নগর প্রশাসন

3:49 pm , August 4, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥  ভারতের দক্ষিণ তামিলনাড়– থেকে প্রেমিকার সাথে দেখা করতে এসে প্রেমিকার নতুন প্রেমিকের হাতে মার খেয়েছেন প্রেমকান্ত নামের ওই যুবক। পরবর্তীতে বরিশাল মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ বাসের ভাড়া দিয়ে তাকে ঢাকায় ভারতের দূতাবাসে প্রেরণ করলেও সে বরিশালেই থেকে যায়।
বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই যুবককে নগরীতে দেখার পর মিডিয়া কর্মীরা তার সাক্ষাতকার নেয়ার অনুরোধ জানালে উল্টো তিনি সকলের কাছে মাফ চেয়ে ওই স্থান ত্যাগ করেন। আর প্রেমকান্তের বরিশাল থেকে যাওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশও তার কর্মকান্ডে অপরাধের আলামত খুঁজছে।
সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সারাদিন প্রেমকান্ত নগরীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ান। দুপুরে তাকে নগরীর বান্দরোডে মিডিয়া কর্মীরা দেখে সাক্ষাতকার দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। কিন্তু তিনি কোনভাবেই সাক্ষাতকার দিতে রাজী হননি। আধাঘন্টাব্যাপী তাকে বিভিন্নভাবে অনুরোধ জানানো হলেও তিনি কোনভাবেই মুখ খুলতে রাজী হননি। তার মুখ থেকে একটি শব্দই বের হয়েছে। তা হচ্ছে প্লিজ প্লিজ। এ সময় মিডিয়া কর্মীদের কাছে হাত জোর করে মাপ চান প্রেমকান্ত। এরপর ওই স্থান ত্যাগ করেন।
এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমলেশ চন্দ্র হালদার প্রেমকান্তের উদ্বৃত্তি দিয়ে বলেন, প্রেমকান্ত নেটওয়ার্কিং ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেছে। তবে তার শখ হচ্ছে নৃত্য। আর নাচের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে আপলেড করতেন প্রেমকান্ত। তার নাচ দেখে মুগ্ধ হন বরিশালের একটি সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। তার বাড়ি বরগুনার তালতীতে। এরপর ধীরে ধীরে তাদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্ক গড়ে ওঠে তাদের দুই পরিবারের সদস্যদের মাঝেও। এভাবে তিন বছর ধরে চলে তাদের প্রেমের সম্পর্ক। কখনো ফেসবুকে কখনো মোবাইলে কথা বলার মধ্যে তারা দুইজনে ভাবের আদান প্রদান করতে থাকে। এ আদান প্রদান থেকে প্রেমকান্তের মনে ইচ্ছাজাগে তার প্রেমিকাকে কাছ থেকে দেখার। এরপর সে ভারত থেকে ভিসা নিয়ে বৈধপন্থায় বরিশাল নগরীতে আসেন।
ওসি আরো জানান, প্রেমকান্ত তার মিশন সফল করেন ২৪ জুলাই। ওই দিন নগরীর একটি রেস্তোরায় তারা দেখা করেন। কিন্তু সমস্যা দেখা দেয় ওই মেয়ের সাথে বরিশাল নগরীর একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। বিষয়টি ওই প্রেমিক জানতে পেরে ২৫ জুলাই নগরীর চৌমাথা এলাকায় প্রেমকান্তকে পেয়ে মারধর করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রেমকান্তের অভিযোগ তার সাথে থাকা টাকাও ওই প্রেমিক ছিনিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনার পরপরই প্রেমকান্তকে পুলিশী নিরাপত্তায় আনা হয়।
ওসি বলেন, এরপর প্রেমকান্তের বিষয়টি ঢাকায় অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসকে অবহিত করা হয়। তারা প্রেমকান্তের সাথে কথা বলেন এবং প্রেমকান্তকে ঢাকার দূতাবাসে পাঠিয়ে দেয়ার অনুরোধ জানান। তাদের নির্দেশনা মোতাবেক প্রেমকান্তকে ৩১ জুলাই ঢাকার বাসে তুলে দেয়া হয়। এমনকি ভাড়াও আমাদের পক্ষ থেকে দেয়া হয়। প্রেমকান্ত তাদের জানিয়েছে ঢাকা থেকে সে বিমানযোগে তার গন্তব্যে যাবেন।
ওসি বলেন, আপনাদের মাধ্যমে জানতে পারলাম সে বরিশাল নগরীতে রয়েছে। কিন্তু এটা তো সে ঠিক করেনি। এখন তো আমার সন্দেহ হচ্ছে সে কোন অপরাধ চক্রের সাথে জড়িত কিনা। তার অবস্থান নিশ্চিত হলে জানানোর অনুরোধ জানান ওসি। প্রেমকান্তকে নিয়ে প্রশাসন ও মেয়েটির পরিবার বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT