গৌরনদীতে অগ্নিকান্ডে পুড়েছে দুইটি ঘর অর্ধ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ছাই গৌরনদীতে অগ্নিকান্ডে পুড়েছে দুইটি ঘর অর্ধ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ছাই - ajkerparibartan.com
গৌরনদীতে অগ্নিকান্ডে পুড়েছে দুইটি ঘর অর্ধ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ছাই

3:19 pm , July 22, 2022

নিজস্ব ও গৌরনদী প্রতিবেদক ॥ গৌরনদী উপজেলায় আগুনে পুড়েছে দুইটি ঘরসহ গোয়ালঘর। অগ্নিকান্ডে নগদ সাত লাখ টাকা, স্বর্নালংকার, টিভি, ফ্রিজসহ প্রায় ৪০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মো. শাহাদাত হোসেন জানিয়েছেন। শুক্রবার ফজরের নামাজের পর গৌরনদী পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের গেরাকুল সর্দার বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। ওই বাড়ির মোস্তাফিজুর রহমানের গোয়াল ঘর থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়েছে। পরে আগুন মোস্তাফিজুর রহমানের বসত ঘর, পাশের ভাই প্রভাষক নজরুল ইসলামের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকান্ডে দুইটি ঘর, তিনটি রান্না ঘর ও একটি গোয়াল ঘর সম্পূর্ন পুড়ে গেছে। ওই ঘরে বেশ কয়েকজন সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে চাকুরি করেন। তাই ওই ঘরে বিভিন্ন ধরনের মালামাল ছিলো। এর মধ্যে নগদ সাত লাখ টাকা, স্বর্নালংকার, দুইটি ফ্রিজ, আসবাপত্রসহ ৪০ লাখ টাকার মালামাল সম্পূর্ন পুড়ে গেছে। শাহাদাত বলেন, ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা প্রায় ৯০ লাখ টাকার মালামাল রক্ষা করেছেন। অগ্নিকান্ডে একটি গরু, ৪০ টি হাস, ১৫টি মুরগী ও ২০ টি কবুতর পুড়ে মারা গেছে। আরো দুইটি গরু পুড়েছে। এ গরু দুইটি বাঁচানো সম্ভব হবে না বলে ধারনা করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের লিডার শাহাদাত আরো বলেন, বাড়ির এক নারী ফজরের নামাজ পড়ে গোয়াল ঘরে প্রথমে আগুন দেখতে পেয়েছে। ওই আগুন দ্রুত রান্নাঘরের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ধারনা করা হচ্ছে কয়েল কিংবা শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবুও তদন্ত না করে নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না বলেন লিডার শাহাদাত।
মোস্তাফিজুর রহমানের জামাতা ও পুলিশের কনষ্টেবল মো. ই¯্রাফিল তালুকদার বলেন, অগ্নিকান্ডের ঘটনা সম্পূর্ন রহস্যজনক। যেখান থেকে অগ্নিকান্ডের শুরু হয়েছে, গোয়াল ঘরের সেই স্থানে আগুন ধরার কোন কারন নেই।
তিনি বলেন, অগ্নিকান্ডে মালামালের সাথে সরকারী চাকুরিজীবী স্ত্রী, শ্যালিকাদের শিক্ষাগত সনদসহ মুল্যবান কাগজপত্র পুড়ে ছাই হয়েছে। তার দাবি ৫২ লাখ টাকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। অগ্নিকান্ডের ঘটনার রহস্য উদ্ধারে থানায় অভিযোগ দেয়া হবে।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপিন চন্দ্র বিশ^াস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, দুইটি ঘরের তিনটি পরিবারের সম্পূর্ন পুড়ে গেছে। এতে তাদের নগদ অর্থ, স্বর্নালংকার, আসবাপত্র ও দলিল দস্তাবেজসহ সম্পূর্ন মালামাল পুড়ে গেছে। বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
আপাতত তিনটি পরিবারের জন্য ৫ বান টিন ও নগদ ৯হাজার টাকা বিকেলে মধ্যে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের কাছে পাঠিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছি। এর মধ্যে একটি পরিবারকে এক বান টিন ও তিন হাজার টাকা, অপর দুইটি পরিবারকে ২ বান করে টিন ও তিন হাজার টাকা করে দেয়া হবে বলে ইউএনও জানিয়েছেন।
গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলালউদ্দিন বলেন, তারা যদি অভিযোগ দেয়। সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT