ঈদ পরবর্তী যাত্রীদের শেষ চাপে বরিশাল ছাড়লো ১৫ লঞ্চ ঈদ পরবর্তী যাত্রীদের শেষ চাপে বরিশাল ছাড়লো ১৫ লঞ্চ - ajkerparibartan.com
ঈদ পরবর্তী যাত্রীদের শেষ চাপে বরিশাল ছাড়লো ১৫ লঞ্চ

3:34 pm , July 16, 2022

নিজস্ব প্রতিবদক ॥ ঈদ পরবর্তী যাত্রীদের শেষ চাপে শনিবার বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে ১৫ টি লঞ্চ। প্রতিটি লঞ্চে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় ছিলো। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক। এর আগে শুক্রবার ঈদ পরবর্তী সর্বোচ্চ চাপের দিনে ১৭ টি লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশ্যে বরিশাল ছেড়েছিলো। বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক রাত ৮ টার দিকে বলেন ১৫ টি লঞ্চ ছেড়ে যাচ্ছে। তবে আমরা লঞ্চ মালিকদের সাথে কথা বলে আরো একাধিক লঞ্চ প্রস্তুত রেখেছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর প্রয়োজন হয়নি। তবে তার মানে এই নয় যে যাত্রীদের চাপ ছিলো না? যা ছিলো তার জন্য ১৫ টি লঞ্চ যথেষ্ট ছিলো। তিনি বলেন, ঈদ পরবর্তী এটাই যাত্রীদের শেষ চাপ। আজকের পর যাত্রীদের চাপ অনেক কমে যাবে। শুক্রবার ছিলো যাত্রীদের সবার্ধিক চাপ।
সরেজমিনে দেখা গেছে উপচে পড়া যাত্রীদের সাথে ভাড়া নিয়ে চলছে দর কষাকষি। কেবিন ফাঁকা নেই কোথাও। সোফা ডেক পরিপূর্ণ। আর এই সুযোগে আবারো ৩৫০ টাকা ডেকের ভাড়া কাটতেবাধ্য হচ্ছেন বলে অভিযোগ যাত্রীদের।
ঘাটে অপেক্ষমাণ বেশ কয়েকটি লঞ্চের স্টাফ কেবিনের ভাড়া চাওয়া হচ্ছে সেমি ডাবল তিন হাজার টাকা। ডেক ভাড়া নিয়ে তর্কতর্কি চলছিল যাত্রীদের সাথে। ৩৫০ টাকা করে আগাম টিকিট কেটে লঞ্চে চড়ার নিয়ম নিয়ে শুরু তর্কাতর্কি। পরে বড় লঞ্চ ৩০০ টাকা ও ছোট লঞ্চে ২৫০ টাকা ধার্য হয়েছে। এদিকে সুন্দরবন লঞ্চ কর্তৃপক্ষের পরিচালক পিন্টু বলেন, ছোট লঞ্চে ভাড়া কমছিলো। আমাদের ভাড়া আগে যা ছিলো এখনো তা ই আছে। কেবিন ও সোফা আগামী ২০ জুলাই পর্যন্ত ফাঁকা নেই বলে জানান তিনি। পটুয়াখালী থেকে এসে লঞ্চে উঠতে না পেরে নগরীর কেন্দ্রীয় নথুল্লাবাদ বাসটার্মিনালে উদ্দেশ্যে ছুটেছেন শাহীন নামে এক যাত্রী।
এদিকে, লঞ্চের সাথে সাথে বাসেও ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ বেড়েছে কয়েকগুন। নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, ঢাকা যাওয়ার জন্য হন্য হয়ে বাসের টিকিট খুজছেন যাত্রীরা।
বহু কষ্টে ইলিশ পরিবহনের একটি টিকিট পেয়ে উল্লসিত শাওন বলেন, একটি টিকিট পেয়েছি। ছয়শ’ টাকা ভাড়া নিয়েছে।
সাড়ে ৪শ’ টাকা ভাড়া কেন ছয়শ’ টাকা কিনলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যান ৮০০ টাকায় যদি একটি টিকিট আনতে পারেন, তাহলের আমি নেব।
রোববারের মধ্যে ঢাকা পৌছুতে হবে জানিয়ে ইলিশ পরিবহনের কাউন্টারের সামনে দাড়ানো যাত্রী ইমরান বলেন, টাকা যা লাগে দেব, কিন্তু তারপরেও তো টিকিট মিলছে না।
সাকুরা পরিবহনের ম্যানেজার আনিসুর রহমান বলেন, সকাল থেকে তাদের ৫০টি বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে। সেই বাস ফিরলেও টিকিট দেয়া যাবে না।
হানিফ পরিবহনের ম্যানেজার আব্দুস সালাম বলেন, তাদের ২৩ বাস ছেড়ে গেছে। সেই বাস ফিরলেও আগামী ১৮ জুলাই পর্যন্ত কোন টিকিট নেই।
তিনি বলেন, তারা সাড়ে ৪শ’ টাকায় টিকিট বিক্রি করেন। ঈদের সময় ৫০০ টাকায় টিকিট বিক্রি করে ১০ হাজার টাকা জরিমানা দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, সাড়ে চারশ’ টাকায় টিকিটে ৩৬ সিটের বাসে দুই হাজার টাকা মালিকের লস হয়। তাই মালিক ইচ্ছে করে এ রুটে বাস বাড়াচ্ছে না।
তিনি বলেন, চোখের সামনেই তো দেখলেন ইলিশ পরিবহনে বেশি ভাড়া নেয়। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নেয় না। ইলিশ পরিবহনের কাউন্টারের গিয়ে কথা বলতে চাইলে কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT