নলছিটিতে মা মেয়েকে বিবস্ত্র ও মারধরের ঘটনায় স্থানীয় বাবুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ নলছিটিতে মা মেয়েকে বিবস্ত্র ও মারধরের ঘটনায় স্থানীয় বাবুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ - ajkerparibartan.com
নলছিটিতে মা মেয়েকে বিবস্ত্র ও মারধরের ঘটনায় স্থানীয় বাবুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

3:11 pm , July 16, 2022

বিবাহিত মেয়েকে উত্যক্তের জের ধরে

ঝালকাঠি প্রতিবেদক ॥ নলছিটিতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা এবং মেয়েকে বিবস্ত্র করে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে দু.সম্পর্কের এক আত্মীয়ের বাবুল খানের বিরুদ্ধে। গত ১৪ জুলাই বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা ইউনিয়নের প্রতাপ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে প্রথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে যায় নির্যাতিতা ৩৫ বছর বয়সী মা এবং ২১ বছর বয়সী মেয়ে। লজ্জার কারনে বিষয়টি তারা ঐদিন গোপন রাখে। ঘটনার পরদিন শুক্রবার বিকেলে মেয়েটির স্বামী রিপন হাওলাদার বাদি হয়ে স্ত্রী ও শাশুরীর উপর নির্যাতনকারীদের বিচার চেয়ে নলছিটি থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়। ঘটনার বিষয়ে নির্যাতিতা নারী বলেন, বাবুল খান প্রায়ই আমার বিবাহিত মেয়েকে উত্যক্ত করতো। এ ঘটনার জের ধরে ঘটনার দিন বাবুল খান (৫৫) তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আমার ঘরে আসে। প্রথমে আমার মেয়েকে মারধর করে গায়ের জামা টেনে ছিড়ে ফেলে। তখন বাবুলের সাথে তার ছেলে আল-আমিন খান, মেয়ে নিশি বেগম, শারমিন এবং স্ত্রী আয়েশা বেগম সহ আরো কজন ছিলো। আমি মেয়েকে বাঁচাতে এলে তারা আমাকে মারধর করতে থাকে। তখন আমার শরীরের কাপড় খুলে আমাকে মেয়ের সামনে বিবস্ত্র করে ফেলে।
ওই নারী আরো বলেন, ‘বিবস্ত্র করার পর আমি দৌড়ে গিয়ে গায়ে একটি চাঁদর পেঁচিয়ে পাশের ঘরে থাকা মেয়ে জামাইয়ের কাছে আশ্রয় নেই। কিন্তু বাবুল সেখানে গিয়ে আমার জামাতাকেও ঝারু দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। আমরা ওদের নির্যাতন সইতে না পেরে ৯৯৯ নম্বারে ফোন দিলে তারা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ এসে আমাদেরকে থানায় গিয়ে অভিযোগ দিতে বলেন। আমরা থানায় অভিযোগপত্র লিখে দিয়ে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে রাতে বাড়ি চলে আসি।
এদিকে পরদিন ১৫ জুন বিকালে স্থানীয় গন্যমান্যরা ভৈরবপাশা ইউনিয়ন পরিষদে শালিস মিমাংসা করে দেয়ার কথা বললে ভূক্তভোগীরা সেখানে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। কিন্তু প্রতিপক্ষ সেখানে যায়নি।
মা এবং মেয়েকে মারধরের কথা স্বিকার করে অভিযুক্ত বাবুল খান বলেন মুঠোফোনে বলেন, মারামারির চলাকালে উভয় পক্ষের ধরাধরিতে তাদের গায়ের কাপড় খুলে যেতে পারে। আমি খুলি নাই। যা হবার হয়েছে, রিপোর্ট করার দরকার নাই, এটা নিজেরা মিমাংসা করে নেবো। নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান শনিবার দুপুরে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা পেলে দোষিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT