অমর ২১ শে গানের সুরকার আলতাফ মাহমুদের ভাতিজাকে হাতুরি দিয়ে দুই হাত ও পা থেতলে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা অমর ২১ শে গানের সুরকার আলতাফ মাহমুদের ভাতিজাকে হাতুরি দিয়ে দুই হাত ও পা থেতলে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা - ajkerparibartan.com
অমর ২১ শে গানের সুরকার আলতাফ মাহমুদের ভাতিজাকে হাতুরি দিয়ে দুই হাত ও পা থেতলে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা

3:40 pm , July 8, 2022

মুলাদী উপজেলা আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের দ্বন্দ্ব

নিজস্ব ও মুলাদী প্রতিবেদক ॥ অমর ২১ শে গানের সরকার শহীদ আলতাফ মাহমুদের ভাইয়ের ছেলের দুই হাত ও একটি পা হাতুরি পেটা করে থেতলে এবং কুপিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর মুলাদী পৌর এলাকার হাসপাতাল রোডে এ ঘটনার শিকার হয়েছেন বলে উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান খান মিঠু জানিয়েছেন। তিনি জানান, শহীদ আলতাফ মাহমুদের ভাই শাহজাহান মাহমুদের ছেলে নুরুল হুদা পাপ্পু (৫৪) ওই ঘটনার শিকার হয়েছে।পাপ্পু মুলাদী পৌর এলাকার থানার পাশে নিজ বাড়ীতে বাস করতো। উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, দুপুরে বাসা থেকে হাসপাতাল রোডে যায়। তখন মুলাদী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সুমন রাঢ়ির নেতৃত্বে তার সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা করে। তারা পাপ্পুকে বেধরকভাবে হাতুরি পেটা করে দুই হাত ও এক পা থেতলে দিয়েছে। এছাড়াও কুপিয়ে মৃত ভেবে মুলাদী সরকারী কলেজের পাশে ফেলে রেখে গেছে। মিঠু খান বলেন, পাপ্পুকে রক্ষায় এক দোকানী এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করা হয়েছে।
পাপ্পুর স্ত্রী শিমু বেগম জানান, বিকালে হঠাৎ করেই সুমনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী হাতুড়ি, ধারালো অস্ত্র এবং লাঠিসোটা নিয়ে পাপ্পুর উপর হামলা চালায়। তারা পাপ্পুকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে সড়কে ফেলে দেয়। এরপর পাপ্পুর দুই হাত ও এক পায়ের উপর হাতুড়ি দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাতের পর আঘাত করতে থাকে। এছাড়াও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখভম করেছে। তিনি বলেন, পাপ্পু ডাক-চিৎকার দিলেও সুমন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর কারনে কেউ এগিয়ে যেতে সাহস পায়নি। এক পর্যায়ে পাপ্পু জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সন্ত্রাসীরা মৃত ভেবে তাকে ফেলে পালিয়ে যায়।
খবর পেয়ে পাপ্পুকে উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নিয়ে রওনা হয়েছেন।
শিমু আরো জানান, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে গত ২৪ জুন নবাবেরঘাট থেকে লঞ্চে ওঠার সময় সুমনের সাথে বাক-বিতন্ডা হয়। এর জের ধরে পাপ্পুকে হত্যার উদ্দেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি তার।
শিমু জানান, তার স্বামীর কোন দলীয় পদ না থাকলেও সব সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক তারিকুল হাসান মিঠু খানের সাথে থাকতো। শিমু বলেন, পাপ্পুর উপর হামলাকারীদের নাম সে পুলিশ কর্মকর্তাদের জানিয়েছে।
তিনি আরো জানান, দুই হাত এমনভাবে থেতলে দিয়েছে, হাত কেটে ফেলতে হতে পারে বলে চিকিৎসকরা আশংকা প্রকাশ করেছে।
মুলাদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইদুর রহমান বলেন, পাপ্পুর অবস্থা আশংকাজনক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
মুলাদী থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান জানিয়েছেন, বিষয়টি তার নজরে আছে। লিখিত অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
সুমন রাঢ়ি জানান, পাপ্পু যুবদল নেতা ও ক্যাডার। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে পাপ্পু একাধিক আওয়ামী লীগ নেতাকে মারধর ও কুপিয়ে জখম করেছে। বর্তমানে মুলাদী উপজেলা চেয়ারম্যান মিঠু খানের বডিগার্ড হয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মিদের মারধর করে। পদ্মা সেতু উদ্বোধনে যাওয়ার সময় লঞ্চে এক নেতাকে মারধর করেছে। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ নেতকর্মিরা তাকে মারধর করেছে। ঘটনার সময় তিনি বরিশাল শহরে ছিলেন জানিয়ে সুমন বলেন, আমি খবর পেয়ে মুলাদী ছুটে এসেছি। বর্তমানে মুলাদীতে রয়েছি।

এই বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী মিরাজ মাহমুদ
 
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ কুশলা হাউজ, ১৩৮ বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক,
সদর রোড (শহীদ মিনারের বিপরীতে), বরিশাল-৮২০০।
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed by NEXTZEN-IT